বাংলাদেশকে না দিলেও মালদ্বীপকে 'আমদানি করে' পেঁয়াজ দিচ্ছে ভারত
সোমবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বাংলাদেশকে না দিলেও মালদ্বীপকে ‘আমদানি করে’ পেঁয়াজ দিচ্ছে ভারত

বৃষ্টি-বন্যায় পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে মূল্যবৃদ্ধির কথা বলে গত মাস থেকেই বাংলাদেশে পণ্যটির রপ্তানি সম্পূর্ণ বন্ধ রেখেছে ভারত। নিজেদের চাহিদা পূরণে কয়েকটি দেশ থেকে পেঁয়াজ আমদানিও করছে তারা। অথচ, এ অবস্থার মধ্যেই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে দক্ষিণ এশিয়ারই আরেকটি দেশ মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি করছে তারা।

পেঁয়াজসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জন্য ভারতের ওপর সম্পূর্ণ নির্ভরশীল মালদ্বীপ। দেশে পেঁয়াজের সংকট থাকা সত্ত্বেও মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি করবে ভারত। এতে পরিমাণেরও কোনো হেরফের হবে না। আগে দেশটিতে যে পরিমাণ পেঁয়াজ রপ্তানি হতো সেই পরিমাণই রপ্তানি করা হবে পেঁয়াজ।

রোববার (১০ নভেম্বর) মালের ভারতীয় দূতাবাস এক টুইটে তাদের ‘মালদ্বীপীয় বন্ধুদের’ জানায়, পেঁয়াজ সংকটের কারণে এক লাখ টন আমদানি ও মূল্যবৃদ্ধি সত্ত্বেও ভারত মালদ্বীপে পেঁয়াজ রপ্তানি অব্যাহত রাখবে।

আজ সোমবার ভারতীয় সংবাদমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়া জানায়, মালদ্বীপ তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের জন্য প্রায় পুরোটাই ভারতের ওপর নির্ভরশীল। এজন্য মোদী সরকার আগের মতোই পেঁয়াজসহ অন্য সব পণ্য দ্বীপ দেশটিতে রপ্তানি অব্যাহত রাখছে।

গত শনিবার (৯ নভেম্বর) ভারতের খাদ্যমন্ত্রী রাম বিলাস পস্বন জানিয়েছিলেন, চলমান সংকটের কারণে ভারত এক লাখ টন পেঁয়াজ বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানি করছে।

ভারত পেঁয়াজ পাঠানোয় নিষেধাজ্ঞা দেওয়ার পর আফগানিস্তান, তুরস্ক, ইরান ও মিসর থেকে পেঁয়াজ আমদানির চেষ্টা করছে বাংলাদেশ। ভারতও এসব দেশ থেকেই পেঁয়াজ আমদানি করে তা আবার মালদ্বীপে রপ্তানি করবে।
এদিকে রপ্তানি বন্ধ করে দেয়ার পরপরই বাংলাদেশে হু হু করে বাড়তে থাকে পেঁয়াজের দাম। বর্তমানে দেশে প্রকারভেদে প্রতিকেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১২০ থেকে ১৫০ টাকা।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ