১৪ নভেম্বর শুরু হচ্ছে জাতীয় আয়কর মেলা
শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

১৪ নভেম্বর শুরু হচ্ছে জাতীয় আয়কর মেলা

আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে দেশব্যাপী শুরু হচ্ছে জাতীয় আয়কর মেলা-২০১৯। দেশের সব বিভাগীয় শহরসহ ৬৪ জেলা ও ৫৬ উপজেলায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এবারের আয়কর মেলা। চলবে ২০ নভেম্বর পর্যন্ত। মেলায় ব্যক্তিশ্রেণীর করদাতারা হয়রানিমুক্তভাবে রিটার্ন জমা দিতে পারবেন। বিভাগীয় শহরে ৭ দিনব্যাপী, জেলা শহরে ৪ দিনব্যাপী, ৪৮ উপজেলায় দুই দিন এবং আট উপজেলায় দিনব্যাপী করমেলা আয়োজন করবে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

দেশের ১২০ স্থানে অনুষ্ঠিত হবে আয়কর মেলা। এবারের কর মেলার স্লোগান-‘সবাই মিলে দেব কর, দেশ হবে স্বনির্ভর।’এছাড়া ৩০ নভেম্বর পালিত হবে জাতীয় আয়কর দিবস। এরপর আয়কর রিটার্ন জমা দেয়া যাবে না। তবে উপ কর-কমিশনারের কাছে সময় বৃদ্ধির আবেদন এবং জরিমানা দিয়ে রিটার্ন জমা দেয়া যাবে। এনবিআর সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

রাজধানীতে মেলা হবে বেইলি রোডের অফিসার্স ক্লাব প্রাঙ্গণে। ১৪ নভেম্বর সকাল ১০টায় অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন। ওই দিনই রাজধানীর র‌্যাডিসন হোটেলে সেরা করদাতাদের সম্মাননা দেওয়া হবে। যেখানে ১৪১ জন সেরা করদাতাকে ট্যাক্স কার্ড দেওয়া হবে।

ওই দিন সারা দেশে মোট ৫১৮ জনকে সেরা করদাতার সম্মাননা দেয়া হবে। এনবিআরের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা সৈয়দ এ মু’মেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে এনবিআর সদস্য কালিপদ হালদার (কর প্রশাসন) বলেন, ‘এবার দেশের ১২০ স্থানে আয়কর মেলার আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবারো করদাতাদের সর্বোচ্চ সেবা দেওয়ার লক্ষ্য থাকবে। ডিজিটাল বাংলাদেশে এবারের আয়কর মেলায় ডিজিটাল সুযোগ-সুবিধা রাখা হয়েছে। বাংলাদেশের যেকোনো প্রান্তে বসে গুগলম্যাপে আয়কর মেলার স্পটে নাম লিখে সার্চ দিলেই করদাতাকে মেলার অবস্থান, দূরত্ব ও সময় বলে দেবে। ফলে করদাতাদের আয়কর মেলা প্রাঙ্গণ খুঁজতে বাড়তি সময় ব্যয় হবে না।

তিনি আরো বলেন, ‘এবারের মেলার বিশেষ আকর্ষণ হচ্ছে, করদাতারা অনলাইনে www.aikor.gov.bd প্রবেশ করে আয়কর বিবরণীর ফরম পূরণ করে মেলায় এসে জমা দিতে পারবেন। এ ছাড়া আয়কর সংক্রান্ত যেকোনো তথ্য পাওয়া যাবে এই ওয়েবসাইটে।

এনবিআর সূত্রে আরো জানা যায়, প্রতিবছরের মতো করদাতাদের জন‌্য এবারের মেলায়ও আয়কর বিবরণীর ফরম থেকে শুরু করে কর পরিশোধের জন্য ব্যাংক ও বুথ থাকবে। একই ছাদের নিচে সব সেবা মিলবে।

করদাতাকে শুধু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সঙ্গে আনতে হবে। মেলায় নতুন করদাতারা ইলেকট্রনিক কর শনাক্তকরণ নম্বর (ই-টিআইএন) নিতে পারবেন। এ ছাড়া ই-পেমেন্টের জন্য পৃথক বুথ থাকবে। মুক্তিযোদ্ধা, নারী, প্রতিবন্ধী ও প্রবীণ করদাতাদের জন্য থাকবে আলাদা বুথ। গতবারের মতো এবারও মেলায় অডিও-ভিডিও সম্প্রচারের মাধ্যমে কর শিক্ষণ প্রদান করা হবে। কর সচেতনতা তৈরিতে এই কর শিক্ষণ পদ্ধতির ব্যবস্থা থাকবে।

২০১০ সাল থেকে এনবিআর কর প্রদানে উৎসাহিত করতে আয়কর মেলা চালু করে। প্রথম দিকে ঢাকা ও চট্টগ্রামে ওই মেলা আয়োজন করা হয়। পরবর্তীতে জেলা ও উপজেলায় পর্যায়ে মেলা সম্প্রসারণ করা হয়।

অর্থসূচক/এমআরএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ