খাবার খেয়ে আয় করেন যে নারী
শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

খাবার খেয়ে আয় করেন যে নারী

পেটভরে খাবার খাওয়ার জন্য অর্থপ্রাপ্তি! শুনলেই মনে হবে, এ যেন স্বপ্নের চাকরি। ঠিক এমন চাকরিই করেন ফ্যাবিও ম্যাটিসন। তবে এটা কেবল চাকরিমাত্র নয়— এটা একটা ইন্টারনেট ট্রেন্ড নিজের দশকওয়ারি আহার ব্যাধিকে নিয়ন্ত্রণ করার জন্য।

২০১০ সালে কোরিয়ার মুকব্যাং জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন ইউটিউবে (YouTuber) খাবার খেয়ে। সেই থেকে এই ট্রেন্ড শুরু হয়। এটাই অনুসরণ করেছেন ফ্যাবিও। এই ‘মুকব্যাং ক্রেজ’ হল এমন এক বিষয়, যেখানে ইউটিউবার নিজের খাওয়ার ভিডিও পোস্ট করেন। ডেইলি মেল অনুযায়ী, ২০১৮ সালে ফ্যাবিও তার প্রথম ভিডিও পোস্ট করেন।

বহু বছর ধরেই তার মধ্যে সমস্যা ছিল, তিনি অন্যের সামনে খাবার খেতে পারতেন না। কিন্তু এই ভিডিও পোস্ট করে সকলের সঙ্গে সংযোগ তৈরি করার ফলে তার সমস্যা দূরীভূত হয়।

ডেইলি মেলকে তিনি জানান, হাজার হাজার মানুষ আমাকে অনলাইনে খেতে দেখছেন। এর ফলে আমি আবার খাওয়া ব্যাপারটা উপভোগ করতে শুরু করি। আমি ১৯ বছর থেকেই খাওয়া নিয়ে সমস্যায় ভুগছিলাম। আমার ভয় হত খেলে ওজন বেড়ে যাবে। এবং অন্যের সামনে খেলে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতাম।

ফ্যাবিও জানান, পরিস্থিতি এমন জায়গায় চলে গিয়েছিল, তিনি ঘরের মধ্যেই স্টোভে রান্না করে খেয়ে নিতেন। রান্নাঘরেও যেতেন না। কিন্তু মুকব্যাং-এর ভিডিও দেখে তার উপলব্ধি হয়, খাওয়া ব্যাপারটা খুব খারাপ নয়।

আট হাজারেরও বেশি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে তার। এখন তিনি নিজের আহারের ভিডিও আপলোড করে রোজগার করেন। একে তিনি ‘হোম থেরাপি’ বলেন। ২০১৮ সালের জুন থেকে এযাবৎ ২০০ ভিডিও পোস্ট করেছেন তিনি! সেই সব ভিডিওয় ধরা রয়েছে তার খাদ্যগ্রহণের বৈচিত্রময় সব মুহূর্ত। বার্গার থেকে চকোলেট কেক, কিংবা নিছকই চিপস— হাজার হাজার ‘ভিউ’ পেয়েছে তার ভিডিওগুলি।

ফ্যাবিও জানান, আমি অনেক মানুষকে দেখেছি যারা উদ্বেগে ভুগছেন, তারা আমাকে মেসেজ করেন। তারা জানিয়েছেন আমার ভিডিও দেখে তাদের উদ্বেগ কমেছে। এইসব কথা আমার আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সাহায্য করে।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ