ডিসি-এসপি ভালো হলে দুর্নীতি কমবে: দুদক চেয়ারম্যান

একটি জেলার ডিসি-এসপি যদি ভালো হন তাহলে সেখানে দুর্নীতি কমে আসবে বলে মন্তব্য করেছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ।

তিনি বলেন, দুর্নীতি বন্ধ হবে না। তবে সবাই আন্তরিক হলে দুর্নীতি কমিয়ে আনা সম্ভব।

আজ রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা পর্যায়ের কর্মকতাদের সঙ্গে দুর্নীতি প্রতিরোধ বিষয়ক সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, আমরা সবাই জানি দেশ অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। অর্থনীতি যতো এগিয়ে যাবে, দুর্নীতিও পিছু নেবে। কারণ, দুর্নীতি হচ্ছে উন্নয়নের ভাই-বোন। এটা হচ্ছে পুঁজিবাদী ব্যবস্থার সংজ্ঞা।

কমিশনের কার্যক্রম সম্পর্কে তিনি বলেন, অনেক মামলা হয়েছে। অনেক আটক হয়েছে। অনেককে ডাকা হয়েছে। আমরা কাজ করে দেখিয়েছি। সমাজে একটি বার্তা দেয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু আমরা এমনটা চাই না। আমরা মামলা করতে চাই না। কারণ, মামলার যে কি পরিণতি তা আমরা জানি।

দুদক চেয়ারম্যান বলেন, সারাদেশে আমাদের এতো অফিসের দরকার নেই। আমি চাই, এই অফিস যতটা কমবে ততই ভালো। এ প্রসঙ্গে তিনি ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, এখনো আমার কমিশনে অনেক দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারী রয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আসে। আর অফিস বাড়ালে অভিযোগ আরও বাড়তে পারে। তবে এখনো ১৬টি অফিস নতুন করে করার প্রস্তাব রয়েছে। ভেবে-চিন্তে সেগুলো করা হবে।

পুলিশকে দেখলে আমরা ভয় পাই। এটি কাটানোর জন্য পুলিশকে জনবান্ধব হতে হবে। পুলিশ অনেক সময় আসামি ধরতে মানুষের বাড়ি যায়। কিন্তু আমরা কী ওই পুলিশ হতে পারি না- যারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের খোঁজ খবর নেবেন। তার মেয়েটা ভালো আছে কী না। কেউ তাকে টিজ করে কি না?, যোগ করেন তিনি।

দুদক চেয়ারম্যান আরও বলেন, আমাদের অনেক উন্নয়ন হয়েছে। কিন্তু কতোটা টেকসই হয়েছে তা কী বলতে পারি। যতোটা উন্নয়ন হয়েছে সেটা ধরে রাখাই বড় উন্নয়ন। উদাহরণ স্বরুপ বলা যায়, শতভাগ শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ে এসেছে। এটা বড় ধরনের উন্নয়ন। যা বিশ্বের রোল মডেল। কিন্তু কতোজন শিক্ষার্থী ড্রপআউট হলো, ক্লাসে ঠিক মতো পড়ানো হয় কি না তা মনিটরিং না হলে এ উন্নয়ন অর্থহীন।

অর্থসূচক/কেএসআর