১৭ মে ১৯৯৮ প্রথম ওয়ানডে জয়, ১৭ মে ২০১৯ প্রথম শিরোপা সিরিজ জয়!
শনিবার, ৭ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

১৭ মে ১৯৯৮ প্রথম ওয়ানডে জয়, ১৭ মে ২০১৯ প্রথম শিরোপা সিরিজ জয়!

কি অদ্ভুত মিল! যে দিনে মিলেছিল প্রথম ওয়ানডে জয়ের দেখা, ২১ বছর পর ঠিক সেই ১৭ মে’তেই প্রথম শিরোপা জয় টাইগারদের। কি গোলমেলে ঠেকছে? নাহ, তা ঠেকবে কেন?

একদম সহজ হিসেব। ইতিহাস জানাচ্ছে ১৯৮৬ সালের ৩১ মার্চ শ্রীলঙ্কার মোরাতোয়ায় পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে খেলা শুরু করেছিল বাংলাদেশ। আর তারও প্রায় একযুগ পর ১৯৯৮ সালের ১৭ মে ভারতের হায়দরাবাদের লাল বাহাদুর শাস্ত্রী স্টেডিয়ামে কেনিয়ার বিপক্ষে ৬ উইকেটের প্রথম জয়টিও ছিল এই ১৭ মে তারিখে, মানে কালকের দিনে।

একই দিনে প্রথম ওয়ানডে জয় আর তার ২১ বছর পর কোন ওয়ানডে টুর্নামেন্ট বা তিন জাতি আসরের ট্রফি বিজয়! রীতিমত কাকতালীয়, অতিকাকতালীয়।

হায়দরাবাদের লাল বাহাদুর শাস্ত্রী স্টেডিয়ামে ত্রিদেশীয় সিরিজের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল কেনিয়া এবং আকরাম খানের নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ। বাংলদেশের ক্রিকেটের অগ্রযাত্রার রূপকার গর্ডন গ্রিনিজ ছিলেন তখন জাতীয় দলের কোচ। বিখ্যাত স্পিন তারকা মোহাম্মদ রফিক সেদিন ৩ উইকেট নিয়েছিলেন। তারপর দারুণ ব্যাটিং করে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেন তিনি। ২টি করে উইকেট নিয়েছিলেন খালেদ মাহমুদ সুজন এবং এনামুল হক। এতেই কেনিয়া থেমে যায় ২৩৬ রানে। বাংলাদেশ তখনই জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করে। এই জয়ের পেছনে কোচ গ্রিনিজের দারুণ একটি কৌশল শতভাগ কাজে দিয়েছিল।

স্পিনার হলেও রফিক নিচের দিকে দারুণ ব্যাট করতেন। বাঁ হাতি অলরাউন্ডারের মারকাটারি ব্যাটিংয়ের সুবিধা পেতে পাকা জহুরি গর্ডন গ্রিনিজ সেদিন তাকে তুলে আনেন ওপেনিংয়ে। আতহার আলী খানের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নেমে রফিক খেলেন ইনিংসের সর্বোচ্চ ৮৭ বলে ১১ চার ১ ছক্কায় ৭৭ রানের ইনিংস। তবে ছক্কাটা গ্রিনিজের পছন্দ হয়নি। তিনি ডাগ আউট থেকে ইশারায় রফিককে ইনিংস লম্বা করতে বলেন। অন্যপ্রান্তে আতহার ৪৭ রান করলে ওপেনিং জুটিতে আসে ১৩৭ রান। যেটি এখন পর্যন্ত ওয়ানডেতে বাংলাদেশের নবম সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি। এরপর আকরাম খানের ৩৯ রানে ৬ উইকেট এবং ১২ বল হাতে রেখে প্রথম জয়ের স্বাদ পায় বাংলাদেশ।

আর গতকালর গল্পটা তো সবার জানাই। আয়ারল্যান্ড এবং উইন্ডিজকে নিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজে প্রথমবারের মতো অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। উইন্ডিজের বিপক্ষে ফাইনালে বৃষ্টি এসে বাগড়া দেয়। তবে ম্যাচ বাতিল হতে পয়েন্টে এগিয়ে থাকায় বাংলাদেশই চ্যাম্পিয়ন হতো। কিন্তু বিধাতা অন্যকিছুই ভেবেছিলেন। প্রথম জয় যখন আসবেই, তখন বীরের বেশেই আসুক। তাই কর্তিত ওভারের ম্যাচে ২১০ রানের বড় টার্গেট তাড়া করে ৫ উইকেটে জিতল বাংলাদেশ। যে জয়ের নায়ক দুই তরুণ তারকা সৌম্য সরকার এবং মোসাদ্দেক হোসেন।

১৭ মে। টাইগারদের জন্য পয়মন্ত একটি তারিখ। এদেশের ক্রিকেটের জন্য ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ এবং ঐতিহাসিক তারিখও বটে।

অর্থসূচক/এমএস

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ