চকবাজারের ইফতার
শুক্রবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চকবাজারের ইফতার

রমজান এলেই ব্যস্ত হয়ে পড়ে রাজধানীর পুরান ঢাকার চকবাজার। ব্যস্ততা থাকে পুরো মাস। ইফতারির ঐতিহ্যের প্রসঙ্গ এলেই সবার আগে উচ্চারিত হবে চকের নাম। চকবাজারের ইফতারির খ্যাতি আর ঐতিহ্যের কথা এখন আর কারও অজানা নেই। শুধু ইফতার সামগ্রী নিয়ে এমন বাজার আর দেশের কোথাও বসতে দেখা যায় না। ১শ’ বছরের ঐতিহ্য ধরে রেখেছে চকবাজারের ইফতার সামগ্রীতে। মিডিয়ার কল্যাণে চকবাজারের ইফতারির কথা পৌঁছে গেছে দেশের আনাচে কানাচে।

রমজান উপলক্ষে চকবাজার এখন জমজমাট। বাহারি সব আইটেম নিয়ে এখন প্রতিদিন বসে ইফতারির বাজার। সব আইটেম ছাড়িয়ে যে নাম সবার মুখে মুখে আসে তা হলো ‘বড় বাপের পোলায় খায়, ঠোঙ্গায় ভইরা লইয়া যায়।’ দুপুরের পর থেকেই হাঁকডাকের মাধ্যমে বিক্রি হয় ‘বড় বাপের পোলায় খায়, ঠোঙ্গায় ভইরা লইয়া যায়।’ সুপরিচিত হাজী শহীদ বাবুর্চির এক পদের খাবারের নাম এটি।

চকবাজারে গরুর কিমা, কলিজি, মগজ, মুরগির মাংস, চিড়া, ডাল, সুতি কাবাব, আলু ও ডিম দিয়ে ১২টি মসলার সমন্বয়ে বানানো ইফতারির এই পদটি ‘বড় বাপের পোলায় খায়’ নামে পরিচিত।

চকবাজারের ইফতারির বাজারে নানা রকম ইফতারির পসরা নিয়ে বসেছেন বিক্রেতারা।

প্রথম রোজায় মঙ্গলবার পুরান ঢাকার চকবাজারে ইফতার বেচাকেনা।

প্রথম রোজায় মঙ্গলবার পুরান ঢাকার চকবাজারের একটি শাহি জিলাপি। এ জিলাপি প্রতিটি ২৫০ গ্রাম থেকে শুরু করে এক কেজির ওপরে হয়।

গরুর কিমা, কলিজি, মগজ, মুরগির মাংস, চিড়া, ডাল, সুতি কাবাব, আলু ও ডিম দিয়ে ১২টি মসলার সমন্বয়ে বানানো ইফতারির এই পদটি ‘বড় বাপের পোলায় খায়’ নামে পরিচিত।

চকবাজারে ইফতারি কিনতে প্রতিদিন ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজির হন হাজারো মানুষ।

ছবি: আহাম্মদ শাকিল।

অর্থসূচক/কেএসআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ