ভোট ছাড়াই নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন ১৫১ প্রার্থী !

সংসদ ভবন
জাতীয় সংসদ (ফাইল ছবি)

সংসদ ভবনআগামি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সারাদেশে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ১৫১ জন প্রার্থী নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগের ১১৭ জন, জাতীয় পার্টির ১৩ জন, জাতীয় পার্টি মঞ্জু ২ জন, ওয়ার্কাস পার্টির ২ জন। এর মধ্যে আরো ১৫ আসনের তথ্য আমাদের হাতে এসে পৌঁচেছে। নির্বাচন কমিশন সচিবালয় থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

আসন্ন দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ১৬টি দল। এগুলো হলো: আওয়ামী লীগ, জাপা, জাতীয় পার্টি (জেপি), গণতন্ত্রী পার্টি, বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাসদ, তরীকত ফেডারেশন, বাংলাদেশ মুসলিম লীগ, গণফ্রন্ট, ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি (ন্যাপ), বাংলাদেশ জাতীয় পার্টি, ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট ও বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)।

ঢাকা মহানগরে ১৫টি আসনের মধ্যে যে ৭ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হতে যাচ্ছেন তারা হচ্ছেন- ঢাকা-২ আসনে অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ঢাকা-৩ আসনে নসরুল হামিদ বিপু, ঢাকা ৮ আসনে রাশেদ খান মেনন, ঢাকা-১০ আসনে ফজলে নুর তাপস, ঢাকা-১২ আসনে আসাদুজ্জামান খান, ঢাকা-১৩ আসনে জাহাঙ্গীর কবীর নানক এবং ঢাকা-১৯ আসনে এ ড. এনাম।
এছাড়া সারা দেশে যারা একক প্রার্থী হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন তারা হচ্ছেন-  কিশোরগঞ্জ-১ আসনে  সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, চট্টগ্রাম-৭ আসনে  হাছান মাহমুদ , ভোলা-১ আসনে  তোফায়েল আহমেদ, রাজশাহী-৪ আসনে এনামুল হক , সিরাজগঞ্জ-৩ আসনে  ইসাহাক হোসেন তালুকদার, ফেনী-২ আসনে  নিজাম উদ্দিন হাজারী, নাটোর: ১ আসনে জুনাইদ আহমেদ, ফরিদপুর-১ আসনে আবদুর রহমান ও ফরিদপুর-৩ আসনে খন্দকার মোশাররফ হোসেন একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।
এছাড়া নোয়াখালী-৫ আসনে ওবায়দুল কাদের ও নোয়াখালী-২ আসনের মোরশেদ আলম এখন একক প্রার্থী।
গাজীপুর-২ আসনে  জাহিদ আহসান রাসেল, নারায়ণগঞ্জ-৪ ও নারায়ণগঞ্জ-২ আসনে যথাক্রমে শামীম ওসমান ও সাংসদ নজরুল ইসলাম বাবু একক প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত প্রার্থীদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলেন- বন ও পরিবেশমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, যোগাযোগমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম (বীর উত্তম), মহাজোটের সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মহিউদ্দীন খান আলমগীর, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি, মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, আ হ ম মুস্তফা কামাল, জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী, নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান,নুর-ই-আলম চৌধুরী লিটন,আফম বাহাউদ্দীন (নাছিম),প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন,কাজী কেরামত আলী, শামীম ওসমান, নজরুল ইসলাম বাবু, সাবেক টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী রাজি উদ্দীন আহমেদ রাজু, ভূমি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য আ ক ম মোজাম্মেল হক, দলের উপ-দপ্তর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, কণ্ঠশিল্পী মমতাজ বেগম, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, মহাজোটের সাবেক সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী প্রমোদ মানকিন, প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদ, আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ, শেখ হেলাল উদ্দীন, শেখ আফিল উদ্দীন, মোহাম্মদ নাসিম, এনামুল হক, মহাজোট সরকারের শিল্প প্রতিমন্ত্রী ওমর ফারুক চৌধুরী, এইচ এন আশিকুর রহমান, নসরু হামিদ বিপু, আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, ফজলে নূর তাপস, স্থানীয় সরকার প্রতিমন্ত্রী জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাভারের ডা. এনামুর রহমান, বেঙ্গল গ্রুপ ও আরটিভির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলম। এছাড়া জাতীয় পার্টির (জেপি) আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন।