আজ থেকে চলবে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথের জাহাজ
বুধবার, ১৫ জুলাই, ২০২০
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

আজ থেকে চলবে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথের জাহাজ

আজ শুক্রবার থেকে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল ফের শুরু হচ্ছে। সাগর উত্তাল থাকার কারণ দেখিয়ে গত ৮ মে এই নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দিয়েছিল স্থানীয় প্রশাসন। এরপর প্রায় সাড়ে পাঁচ মাস এই পথে জাহাজ চলাচল বন্ধ ছিল।

Saint Martin.jpg

প্রবাল দ্বীপ সেন্ট মার্টিন

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) সূত্র জানা গেছে, চলতি মৌসুমে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে তিনটি পর্যটকবাহী জাহাজকে আগামী বছরের ৩০ মার্চ পর্যন্ত চলাচলের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। জাহাজগুলো হলো- কেয়ারি সিন্দাবাদ, কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন ও বে-ক্রুস। এর মধ্যে কেয়ারি ক্রুজ অ্যান্ড ডাইন ও বে-ক্রুজ শুক্রবারই সেন্টমার্টিনের উদ্দেশে টেকনাফ থেকে ছেড়ে যাবে। কেয়ারি সিন্দাবাদ চলাচল শুরু করবে একদিন পরে। তবে শনিবার এটি টেকনাফের উদ্দেশ্যে টেকনাফ থেকে যাত্রা করবে।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রবিউল হাসান জানিয়েছেন, বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউটিএ) অনুমতি সাপেক্ষে এই নৌপথে শুক্রবার থেকে জাহাজ চলাচল শুরুর অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সেন্টমার্টিনে হোটেল, কটেজসহ প্রতিটি আবাসিক ও খাবার হোটেলে মূল্য তালিকা টাঙানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি জাহাজ কর্তৃপক্ষ যাতে কোনো ধরনের অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহন না করে এবং ভাড়ার তালিকা টাঙানোর নিদেশ দেওয়া হয়। ভাটার সময় কোনো পর্যটক যাতে সেন্টমার্টিন সৈকতের পানিতে না নামেন, সে ব্যাপারে প্রচারণা চালানোর জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, জাহাজ চলাচল শুরুর সম্ভাবনাকে সামনে রেখে কয়েকদিন ধরেই সেন্টমার্টিনের হোটেল-মোটেলগুলোতে পর্যটককে বরণ করে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। জাহাজ চলাচলের অনুমতির খবরে তাদের কাজের গতি বেড়ে গেছে।

অন্যদিকে এই খবরে স্থানীয় অধিবাসীদের মধ্যে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরে এসেছে। এই জনপদের বেশির মানুষই দরিদ্র। মূলত মাছ ধরাই তাদের পেশা। পর্যটক চলাচল শুরু হলে দ্বীপটিতে খণ্ডকালীন কাজের অনেক সুযোগ তৈরি হয়। নানাভাবে স্থানীয়দের আয়-রোজগার বেড়ে যায়।

আগামী পাঁচ মাসে দেশের একমাত্র প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে পর্যটকদের ঢল নামবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। কারণ আগামী বছরের এপ্রিল থেকে এ দ্বীপে পর্যটক চলাচল সীমিত করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। তখন থেকে প্রতিদিন মাত্র ৫শ পর্যটককে সেন্টমার্টিনে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হবে। শুধু তা-ই নয়, মার্চের পর থেকে কোনো পর্যটককে সেন্টমার্টিনে রাত যাপনের অনুমতি দেওয়া হবে না। পুরো দ্বীপে রাতে সব ধরনের বাতি বন্ধ রাখতে হবে। অতিরক্তি মানুষের পদচারণা থেকে দ্বীপটি রক্ষার জন্য এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ