বিরোধীদলীয় নেতার বিবৃতিতে ১৪ দলের বিস্ময়

Nasim

Nasimবিরোধীদলীয় নেতা ও বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে দেওয়া বিবৃতিতে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট।

 

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে শুক্রবার দুপুরে ১৪ দলীয় জোটের বৈঠক শেষে এ মন্তব্য করেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

 

মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিরোধীদলীয় নেত্রী অযথাই বিদেশিদের ডেকে এনে সাহায্য চেয়েছেন, কিন্তু কেন তারা আমাদের সাহায্য করবেন, যদি বাংলার জনগণ আমাদের সাহায্য না করেন। এটি আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়।

 

বিরোধীদলীয় নেতাকে উদ্দেশ্য করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, আপনি সহিংসতাকে উস্কে দিচ্ছেন। একাত্তরের ঘাতকদের জ্বালাও-পোড়াওয়ে শুধু মদদই দিচ্ছেন না, তাদের পক্ষে প্রকাশ্যে অবস্থান নিচ্ছেন।

 

তিনি বলেন, গতকাল (বৃহস্পতিবার) একাত্তরের ঘাতকদের একটি ঐতিহাসিক রায় কার্যকর হয়েছে, কিন্তু তাঁর মুখ দিয়ে একটি কথা নেই, একটি বক্তব্য নেই। তিনি (খালেদা জিয়া) যে কথাগুলো বলেছেন এতে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তিকেই উস্কে দিয়েছেন, মদদ দিয়েছেন।

 

নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে বিরোধীদলের সঙ্গে সমঝোতার বিষয়ে তিনি বলেন, কিসের সমঝোতা হবে আপনার সঙ্গে? কি জন্য সমঝোতা হবে? স্বাধীনতাবিরোধীদের সাথে কোনো সমঝোতা হতে পারে না। মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধ শক্তির সাথে কোনো সমঝোতা হতে পারে না।

 

তিনি আরও বলেন, স্পষ্ট করে বলতে চাই শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলার জনগণ একাত্তরের ঘাতক কোন প্রতিক্রিয়াশীল শক্তির সঙ্গে সমঝোতা হতে পারে না।

 

সাবেক এই স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, একাত্তরের ঘাতকদের আপনি প্রশয় দিয়েছেন, বিচারের বাধা সৃষ্টি করেছেন, আপনার সঙ্গে কোন সমঝোতা হতে পারে না। প্রকান্তরে আপনিই স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে সমঝোতা করেছেন বলেও অভিযোগ করেন নাসিম।

‘এরশাদকে সরকার আটক করছে কি না’ সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে নাসিম বলেন, এ ধরনের গ্রেপ্তারের কোন ঘটনা ঘটেনি। উনি অসুস্থ বোধ করায় উনাকে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) নেয়া হয়েছে।

 

উনি একজন সাবেক সেনাপ্রধান হিসেবে সিএমএইচে চিকিৎসা নিতেই পারেন, প্রশাসন বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি তাঁকে নিরাপত্তা হেফাজতে নিয়ে যেতেই পারেন বলে মুচকি হেসে কথাগুলো বলেন তিনি।

 

কাদের মোল্লার রায়কে একটি ঐতিহাসিক রায় উল্লেখ করে ১৪ পক্ষের মোহাম্মদ নাসিম বলেন, অত্যন্ত কৃতজ্ঞতার সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানাই। তিনি একজন বিরল নেত্রী, সাহসী নেত্রী। তিনি সব অনিশ্চয়তাকে দূর করে দন্ড কার্যকর করার ক্ষেত্রে সাহসী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

 

এ সময় তিনি জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, যে নেত্রী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে একজন সফল রাষ্ট্রনায়ক হিসেবে কাজ করছেন। তাঁকে আগামিতে বিজয়ী করুন, সাহস দিন।

 

এর আগে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে বৈঠকে অনেকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক,  সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসন, কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সুজিত রায় নন্দী, ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান মল্লিক, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ওয়াজেদুল ইসলাম, বাসদের আহ্বায়ক রেজাউর রশীদ খান প্রমুখ।

 

এমআইকে