সিএফএ ডিগ্রির জন্য যা প্রয়োজন
বৃহস্পতিবার, ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » পুঁজিবাজার

সিএফএ ডিগ্রির জন্য যা প্রয়োজন

নাফিজ আল তারিক সিএফএ, এফআরএম।তিনি দেশের অন্যতম শীর্ষ ব্রোকার প্রতিষ্ঠান সিটি ব্রোকারেজ লিমিটেডের প্রধান রিসার্চ কর্মকর্তা। বিশ্বব্যপী সিএফএ ডিগ্রির অনেক মূল্য। অনেক মূল্যবান ডিগ্রী হলেও বাংলাদেশের ছাত্র-ছাত্রীদের বড় অংশই এ বিষয়টি সম্পর্কে তেমন জানেন না। আবার কেউ কেউ জানলেও সঠিক দিকনির্দেশনার অভাবে সিএফএ করতে পারছেন না। যারা এই সিএফএ করতে আগ্রহী, তাদের জন্য কিছু দিক-নির্দেশনা উঠে এসেছে নাফিজ আল তারেকের সাক্ষাতকারে।

Nafeez-Al-Tareq

সিএফএ হচ্ছে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ বিশ্লেষণ সংক্রান্ত একটি ডিগ্রি। সিএফএ’র পূর্ণ অভিব্যক্তি হচ্ছে-চার্টার্ড ফাইন্যান্সিয়াল অ্যানালিস্ট। সিএফএফএ ইনিস্টিটিউড হলো ইনভেস্টমেন্ট প্রফেশনালদের বিশ্বব্যাপী একটি প্রতিষ্ঠান। সিএফএ ইনিস্টিটিউড অনেকগুলো প্রোগ্রাম করছে। এর মধ্যে সিএফএ প্রোগ্রাম, সিআইবিএম প্রোগ্রাম এবং ইনভেস্টমেন্ট ফাউন্ডেশন প্রোগ্রাম। যারা ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রামে কাজ করতে চায় বা ফাইন্যান্স ইন্ডাস্ট্রিতে লিডার হতে চায় তাদের জন্য এই প্রোগ্রামগুলো। মূলত ইকোনোমিকস, কর্পোরেট ফাইন্যান্স, ফাইন্যান্সিয়াল অ্যানালাইসিস, ইক্যুইটি ভ্যালুয়েশন, ফিক্সড ইনকাম, বন্ড ভ্যালুয়েশন, ডেরিভেটিভস এবং পোর্টফোলিও ম্যানেজমেন্ট ইত্যাদি। তিনটি লেভেলেই এই বিষয়গুলো পড়ানো হয়। এ সকল জায়গাগুলোতে সিএফএ চার্টার্ডরা অনেক যোগ্য ভূমিকা পালন করতে পারে। এছাড়াও উন্নয়ন সংগঠন, রিস্ক ম্যানেজার্স এই জায়গাগুলোতে একটি ভালো রুল প্লে করতে পারছে। এটি ইনভেস্টমেন্ট ভিত্তিক হলেও এর ক্ষেত্রটা অনেক বড়।

সিএফএ এর জন্য প্রথম যোগ্যতা হলো অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্র-ছাত্রী হতে হবে। কিন্তু  লেভেল ওয়ান পাশ করার আগে আপনাকে অনার্স শেষ করতে হবে। অন্যদিকে সবগুলো লেভেল শেষ করার পর সনদের জন্য সংশ্লিষ্ট খাতে চার বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। সিএফএ প্রফেশনের তিনটি লেভেল। লেভেল ওয়ান, লেভেল টু এবং লেভেল থ্রি। একটি পাশ করার পরই আরেকটি লেভেলের পরীক্ষা দেওয়ার যোগ্যতা অর্জন করা যাবে। জুনে ও ডিসেম্বরে লেভেল ওয়ান পরীক্ষা হয়। আর লেভেলে টু ও থ্রি জুনেই হয়।

লেভেল ওয়ানে ফোকাস করা হয় ইনভেস্টমেন্ট টুলস অ্যান্ড টেকনিক্স,লেভেল টুতে ভ্যালুয়েশন এবং থ্রিতে থাকে পোর্টফলিও ম্যানেজমেন্ট। প্রত্যেকটি লেভেলে ছয়টি বই আছে। এতে ১০টি বিষয়কে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রতি লেভেলেই ৬ ঘন্টার পরীক্ষা। লেভেল ওয়ানে মাল্টিপল প্রশ্ন থাকে ১২০ টি। টুতেও মাল্টিপল প্রশ্ন থাকে, তবে এটি হয় অন্যরকম। যেমন একটি প্রবন্ধ থাকে তার থেকে উত্তর দিতে হয়। লেভেল থ্রিতে লিখিত ও মাল্টিপল চয়েজ দুটিই থাকে। প্রথম লেভেলে বেসিক বিষয়গুলো পড়ানো হয় (অর্থনীতি, ফাইন্যান্স এবং অ্যানালাইসিস)। পরের দিকে অ্যাসেট ভ্যালুয়েশন, পোর্টফলিও ম্যানেজমেন্ট এগুলোর দিকে নজর দেয়।  এর পর প্রায় দুই মাসের মত সময় লাগে রেজাল্ট আসতে।

অর্থসূচক/গিয়াস

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ