এক বছরের মধ্যে জেরুজালেমে দূতাবাস সরছে না: ট্রাম্প

এক বছরের মধ্যে মার্কিন দূতাবাস তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে সরিয়ে নেয়ার পরিকল্পনা নাকচ করে দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বছর খানেকের মধ্যেই মার্কিন দূতাবাস জেরুজালেমে স্থানান্তরিত হতে পারে বলে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু  এমন ইঙ্গিত দেয়ার পর ট্রাম্প এ ঘোষণা দিয়েছেন।

গত ৬ ডিসেম্বর জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে ঘোষণা করেন ট্রাম্প। একই সঙ্গে ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে মার্কিন দূতাবাস সরিয়ে নেওয়া হবে বলে জানান।

ট্রাম্পের ওই ঘোষণার পর বলে যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমা মিত্রসহ আরব বিশ্বজুড়ে নিন্দার ঝড় ওঠে। মধ্যপ্রাচ্যের শান্তি প্রক্রিয়া নষ্ট হতে পারে বলে তখন ট্রাম্পের কঠোর সমালোচনা করা হয়।

নেতানিয়াহু’র ওই মন্তব্য সম্পর্কে বার্তা সংস্থা রয়টার্স ট্রাম্পের কাছে জানতে চায়, এ বছরের শেষদিকে কি মার্কিন দূতাবাস স্থানান্তর করা হচ্ছে? জবাবে ট্রাম্প ওই বক্তব্য নাকচ করে দেন। তিনি বলেন, বিভিন্ন পরিস্থিতি নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কথা বলছে। এখনই দূতাবাস হস্তান্তরের দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে না।

ট্রাম্পের ওই ঘোষণার পর মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসনও বলেছেন, তেল আবিব থেকে জেরুজালেমে দূতাবাস স্থানান্তরে অন্তত তিন বছর সময় লাগবে।

১৯৯০ এর দশকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিনটনের মধ্যস্থতায় ইসরায়েল-ফিলিস্তিন অসলো চুক্তি হয়। ১৯৯৩ সালে সইকৃত ওই চুক্তির মধ্য দিয়ে ইসরায়েল ও ফিলিস্তিনের ক্ষমতাসীন দল পিএলও প্রথমবারের মতো পরস্পরকে স্বীকৃতি দেয়।

চুক্তিতে গাজা উপত্যকাকে পশ্চিম তীর থেকে পৃথক করার সুপারিশ করা হয়। তবে সব আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘন করে প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত ৬ নভেম্বর জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী ঘোষণা করে।

অর্থসূচক/জেডআর