ArthoSuchak
সোমবার, ৩০শে মার্চ, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অর্থনীতি

বাজারে আসছে রংবেরঙের বৈশাখী পোশাক-অলংকার

বৈশাখী পোশাকএসো হে বৈশাখ, এসো এসো..। হ্যাঁ আর কিছুদিন পর বাঙালির দুয়ারে আসছে ঐতিহ্যবাহী সেই দিনটি। যেদিন সবাই উৎসুক সকালে পান্তা ইলিশ খেয়ে বৈশাখের পোশাক পরে রমনার বটমূলে প্রাণ খুলে গাইবে গান। আর বৈশাখকে উপলক্ষ করে বাজারে আসতে শুরু করেছে বৈশাখী ডিজাইনের রকমারি পোশাক। সেই সাথে সাথে পাওয়া যাচ্ছে বৈশাখের বিভিন্ন গিফট আইটেম।

বৈশাখের প্রথম দিনে রাজ্যের রঙ ছড়িয়ে পড়ে বাংলার মাঠ-ঘাট, অলিগলি আর রাজপথে। গাও-গেরামে নতুন ফসলের ঘ্রাণে মুগ্ধ কৃষক আনমনে গুণগুণিয়ে যায়। পাশেই মুগ্ধ কৃষাণীর মুখে ফুটে ওঠে আলো মাখা হাসি। হালখাতায় মিষ্টি বিলিয়ে পুরোনো বছরের হিসাব চুকিয়ে চিরাচরিত নিয়মে নতুন বছরে স্বাগত জানায় দোকানিরা। মনে স্বপ্নিল অনুভূতি জাগিয়ে দেয় বৈশাখ।

বৈশাখ শুধু আমাদের কাছে নতুন বছরের শুরুই নয়, বৈশাখ মানে জীবনের নতুন স্পন্দন। আর হালে এতে যোগ হয়েছে নতুন পোশাক পরার রেওয়াজ।

লাল- সবুজ, সাদা, গোলাপী ও লেমন গ্রিনের প্রাধান্য। গত কয়েক বছর ধরেই বৈশাখে লাল-সাদার পাশাপাশি এই ঋতুর সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ আকাশী, গোলাপী, সবুজ, কমলাসহ বিভিন্ন হালকা রঙের পোশাক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। আর তাই বৈশাখের পোশাকেও থাকছে ঋতুভিত্তিক রঙের ছোঁয়া।

বৈশাখী পোশাক হিসেবে মেয়েদের  রয়েছে সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, টিউনিক, টপস ইত্যাদি। উৎসবমুখর এই বৈশাখের দিনগুলোতে শাড়ির পাশাপাশি মেয়েদের সালোয়ার কামিজ পরার চল বাড়ছে। পরতে স্বাচ্ছন্দ্য আবার দেশীয় ঐতিহ্য এ দুয়ের সংমিশ্রনে সালোয়ার কামিজ এখন সকল বয়সের নারীদেরই প্রিয় পোশাক। এই বৈশাখে বড় দৈর্ঘ্যের কামিজ-চুড়িদারের সঙ্গে যোগ করেছে ফ্রককাট, অ-কাট, ঠ-কাট এবং ইরেগুলার লোপ কাটের ভিন্নধর্মী বৈশাখী ফ্যাশন।

ছেলেদের জন্য পাঞ্জাবি, ধুতি-পাজামা, শার্ট, টি-শার্ট, পলো টি-শার্ট। ছেলেদের বৈশাখের পাঞ্জাবির কালেকশনে লম্বা বা মাঝারি দৈর্ঘ্যের পাশাপাশি জিন্সের সঙ্গে পরার উপযোগী শর্ট পাঞ্জাবিও রয়েছ। বরাবরের মতো এবারও বৈশাখের কালেকশনে শিশুদের জন্যও আছে ভিন্নধর্মী ডিজাইন ও বাহারি রঙ্গের বৈশাখী পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, শার্ট, ফতুয়া, ফ্রক।Gifts 1

রাজধানীর আজিজ সুপার মার্কেট, কাটাবন, এলিফ্যান্ট রোড, নিউমার্কেট, গুলশান, ধানমন্ডি-২৭ মীরপুর উত্তরাসহ দেশের বিভিন্ন মার্কেটে আসতে শুরু করেছে এই বৈশাখের পোশাক।

আজিজ সুপার মার্কেটের মর্মর শোপিস দোকানে বাঙলার ঐতিহ্যের মার্বেল পাথরের বিভিন্ন গিফট আইটেম পাওয়া যাবে। বন্ধু কিংবা একান্ত প্রিয় মানুষটিকে কাঠ, বাঁশ বা বেত, মার্বেল পাথর দিয়ে বানানো আকর্ষণীয় শোপিস উপহার হিসেবে দিতে পার। ছাড়াও নারীর জন্য রয়েছে বৈশাখের নানা ধরনের মাটির ও কাঠের গহনা।

সিরামিক ও মার্বেল পাথরের বৈশাখে আপনি আপনার প্রিয়জন উপহার দিতে পারেন জয়নুল আবেদীনের সংগ্রাম গরুর গাড়ি যার দাম পড়বে ৩০০ টাকা, পালকি ৩০০ টাকা, তাজমহল ৭০০ টাকা, রিক্সা ২০০ টাকা, কুঁড়ে ঘর ৩০ থেকে ৭০ টাকা, স্মৃতি সৌধ ২০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকা, বিভিন্ন ধরেন ছোট পাখি ১৫০ টাকা, চেগুয়েভার, শেখ মজিব, জিয়া, কাজী নজরুল, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা পিস হিসাবে কিনতে পারেন।

এছাড়া পোশাক ছেলেদের ফতুয়া ও টি শার্ট ১৯০  থেকে ৪৫০ টাকা, পাঞ্জাবি ৫০ থেকে ১ হাজার ৫০০ টাকা এবং মানভেদে এর চেয়ে কম বেশি দামে পাওয়া যাবে এসব বৈশাখী পোষাক।

বৈশাখে শিশুদের পাঞ্জাবি ৩০০ টাকা থেকে হাজার টাকার উপরে, টি-শার্ট ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকা, শার্ট ২০০ থেকে ৫০০, ফতুয়া ২০০ টাকা ৩৫০ টাকা।

মেয়েদের সালোয়ার-কামিজ ৬০০ টাকা ২ হাজার ৫০০ টাকা, ফতুয়া ২৫০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা , শাড়ি ৫০০ টাকা থেকে ৫ হাজার ও তার ওপরে।Gifts 4-1

মেয়ের জন্য মৃৎ ও কাঠ শিল্পের বিভিন্ন গহনা পাবেন বৈশাখকে উপলক্ষ করে। গলার ও কানের দুল  সেট ২৫০ টাকা, চুড়ি ২০০ থেকে ৫৮০ টাকা, গলার সেট ১৭০ টাকা, কানের দুল ১০০ টাকা ২৫০ টাকা, লকেট ৪৫০ টাকা থেকে ১ হাজার ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়াও মার্কেটে কোয়ালিটি অনুযায়ী পোশাকের দাম কিছুটা তারতম্য রয়েছে।

মর্মর শোপিসের ম্যানেজিং ডিরেক্টর ফারুখ এইচ খান বলেন, বৈশাখের জন্য এ বছর তেমন কোন অর্ডার পাইনি। বছরের সব সময়ই একই ধরনের অর্ডার হয়। কোনো বিশেষ দিনকে উপলক্ষ করে আলাদা অর্ডার হয় না।

ধান শালিক ফ্যাশনের ম্যানেজার মো. মামুন বলেন, বাজারে বৈশাখের পোশাক এখন পর্যন্ত তেমন আসেনি। তবে আগামি সপ্তাহে আসতে শুরু করবে বৈশাখের বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাক।

অর্থসূচক.কম/এসএস/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ