যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি ফিলিস্তিনের
রবিবার, ৩১শে মে, ২০২০ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকি ফিলিস্তিনের

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ফিলিস্তিন সরকার। যুক্তরাষ্ট্র থেকে প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশনের (পিএলও) কার্যালয় বন্ধ করে দেওয়ার মন্তব্যের পর ফিলিস্তিন সরকার থেকে এ ঘোষণা আসে।

গতকাল শনিবার ফিলিস্তিনের সিনিয়র দূত সায়েব ইরেকাত বলেন, যদি যুক্তরাষ্ট্র তার দেশ থেকে পিএলওর কার্যালয় বন্ধ করে দেয়, তাহলে তারা সম্পর্ক ছিন্ন করতে বাধ্য হবেন। আল জাজিরার সূত্রে এ খবর জানা যায়।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানীতে পিএলও অফিস চালানোর ক্ষেত্রে ১৯৮০ সালের পর প্রথমবার এমন বাধা এলো। ওয়াশিংটনে পিএলও অফিস চালু রাখার কোনো যুক্তি খুঁজে পাচ্ছে না এমন মন্তব্য করেছিল মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট।

স্টেট ডিপার্টমেন্ট কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, অবৈধ বসতি স্থাপনসহ ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে ইসরাইলের যুদ্ধাপরাধ তদন্তে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) কাছে আবেদনের পরই যুক্তরাষ্ট্র এমন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে।

পিএলও মহাসচিব সায়েব ইরেকাত বলেন, আমরা জানতে পেরেছি যুক্তরাষ্ট্রের স্টেট ডিপার্টমেন্ট ওয়াশিংটনে পিএলও’র কূটনৈতিক কার্যালয় পরিচালনা আর নবায়ন করবে না। ট্রাম্প প্রশাসন পিএলও কার্যালয় বন্ধ করে দিলে দেশটির সঙ্গে সম্পর্ক আর টেনে নেওয়া সম্ভব হবে না উল্লেখ করে আনুষ্ঠানিকভাবে চিঠি দেওয়া হয়েছে।

ফিলিস্তিনের সিনিয়র দূত সায়েব ইরেকাত।

এ সিদ্ধান্ত শান্তি প্রক্রিয়ার জন্য ভয়াবহ উল্লেখ করে পিএলও’র এই সিনিয়র কর্মকর্তা বলেন, এটি খুবই দুর্ভাগ্যজনক এবং অগ্রহণযোগ্য। আমরা যখন একটি সিদ্ধান্তে উপনীত হতে চলেছি, তখন বেঞ্জামিন নেতানিয়াহুর (ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী) কাছে নতি স্বীকার করে ট্রাম্প প্রশাসন এমন পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে।

জানা গেছে, প্রতি ছয় মাস পরপর ওয়াশিংটনে পিএলও কার্যালয় চালানোর চুক্তি নবায়ন করে আসা হয়। এবারই তা নবায়নে অনীহা দেখিয়েছে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট। মার্কিন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আগামী সোমবার আইন বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে স্পষ্ট সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটনে পিএলও অফিস।

ফিলিস্তিনি নেতারা এর মধ্যেই ক্ষু্ব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন। পিএলও কার্যালয় বন্ধ করলে আরব বিশ্বে তার নেতিবাচক প্রভাব পড়তে পারে বলেও মনে করছেন ফিলিস্তিনি নেতারা। যুক্তরাষ্ট্রের এমন সিদ্ধান্তে বিস্মিত হয়েছেন ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। তবে ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু এটিকে মার্কিন আইনের বিষয় বলে মন্তব্য করেছেন।

তবে মার্কিন কর্তৃপক্ষ বলছে, পিএলও অফিস বন্ধ হলে ৯০ দিন পুনরায় খুলতে পারে। যদি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মনে করেন ইসরাইলের সঙ্গে ‘সরাসরি’ ও অর্থপূর্ণ আলাপের মাধ্যমে কাজ করে পিএলও।

অর্থসূচক/এসবিটি

এই বিভাগের আরো সংবাদ