হলমার্ক কেলেংকারী : সাক্ষী হিসেবে সোনালী ব্যাংকের ৯ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ
শুক্রবার, ১৮ই সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » অপরাধ ও আইন

হলমার্ক কেলেংকারী : সাক্ষী হিসেবে সোনালী ব্যাংকের ৯ কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ

Dudak+Halmarkসোনালী ব্যাংকের হোটেল শেরাটন শাখা থেকে হলমার্ক গ্রুপের পাঁচ সহযোগী প্রতিষ্ঠানের ৩৭২ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দায়ের করা ২৭ টি মামলার সাক্ষী হিসাবে সোনালী ব্যাংকের  ৯ জন উর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের সিনিয়র উপ-পরিচালক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মীর জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে সাত সদস্যের টিম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে।

মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত রাজধানীর সেগুন বাগিচায় দুদক প্রধান কার্যালয়ে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে জানান দুদকের উপ-পরিচালক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য।

বহুল আলোচিত এ মামলার সাক্ষী হিসাবে যাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছেন তারা হলেন, সোনালী ব্যাংকের বুয়েট শাখার কর্মকর্তা তাসলীম বেগম, সোনালী ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুরুল চৌধূরী, সোনালী ব্যাংকের হোটেল শেরাটন শাখার সহকারী ব্যবস্থাপনা পরিচালক স্বপন কুমার ঘোষ, এক্সিকিউটিভ অফিসার আসলাম আলী, সিনিয়র অফিসার উজ্জল কিশোর ধর, সিনিয়র অফিসার মিহীর চন্দ্র মজুমদার, অফিসার উকিল উদ্দিন আহম্মেদ, অফিসার সাইদুর রহমান এবং অফিসার মোখলেছুর রহমান।

দুদক সুত্র জানায়, জিজ্ঞাবাদকালে তাদের কাছ থেকে প্রজনীয় কাগজপত্র ও জবানবন্দী গ্রহণ করা হয়। এ মামলার  স্বাক্ষী হিসাবে আরও ১৪জন কর্মকর্তা তলব করা হয়েছে। তাদের পর্যায়ক্রমে আগামীকাল বুধবার এবং বৃহষ্প্রতাবার স্বাক্ষী হিসাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

সূত্র আরও জানায়, হলমার্ক কেলেংকারীর সাথে জড়িত ৫টি সহযোগী প্রতিষ্ঠান  সোনালী ব্যাংক থেকে ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে প্রায় ৩৭২ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে। তাদের এই ঋণ জালিয়াতিতে সোনালী ব্যাংকের ৯ জনসহ বেশ কয়েকজন কর্মকর্তা জড়িত রয়েছেন। যারা বিভিন্ন ব্যাক্তিগত সুবিধা ও আর্থিকভাবে লাভবান হয়ে নিয়ম বহির্ভূতভাবে এই প্রতিষ্ঠানগুলোকে ক্রমাগত ঋণ সুবিধা প্রদান করেছে। মামলার তদন্তকালে অভিযুক্ত ব্যাংক কর্মকর্তাদের জড়িত থাকার প্রমান পাওয়ায় তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে  এবং এসব মামলার সাক্ষী হিসাবে উপরক্ত কর্মকর্তাগণ জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, হলমার্ক গ্রুপ সোনালী ব্যাংক রূপসী বাংলা শাখা থেকে ঋণ জালিয়াতির মাধ্যমে প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছিল।যার সাথে হলমার্ক গ্রুপের কর্মকর্তারা ছাড়াও সোনালী ব্যাংকের কর্মকর্তারা জড়িত রয়েছে। আর এ ঘটনায় ৩৮টি মামলা দায়ের করা হয় এর মধ্যে  গত ৭ অক্টোবর ফান্ডেড ১ হাজার ৫৬৮ কোটি ৩৪ হাজার ৮৭৭ টাকা অত্মসাতের দায়ে ১১টি মামলার চার্জশীট প্রদান করে দুদক।

দুদকের সিনিয়র উপ-পরিচালক মীর মো. জয়নুল আবেদীন শিবলীর নেতৃত্বে সাত সদস্যের টিম আলোচিত এ ঋণ কেলেঙ্কারীর ঘটনা তদন্ত করছেন। টিমের অন্য সদস্যরা হলেন-উপ-পরিচালক এস.এম.এম. আখতার হামিদ ভূঞা, সহকারী পরিচালক মো. মশিউর রহমান, মোছা. সেলিনা আক্তার মনি, মো. নাজমুচ্ছায়াদাত, উপ-সহকারী পরিচালক মো. মুজিবুর রহমান এবং মুহাম্মদ জয়নুল আবেদীন।

নয়ন/এআর

এই বিভাগের আরো সংবাদ