পার্বতীপুরে এনজিও-পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি ও অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ

দিনাজপুর ম্যাপ

দিনাজপুর ম্যাপদিনাজপুরের পার্বতীপুরের এনজিও কাম টু ওয়ার্ককের পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ এনে বিভিন্ন জায়গায় অভিযোগ করেছেন কর্মসূচী সংগঠক মোছাঃ মনিরা বেগম করেছেন। অপরদিকে পরিচালক অভিযোগ করেছেন আড়াই লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে মামলা করায় মনিরা বেগম তার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ এনেছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, পার্বতীপুরে কাম টু ওয়ার্ক নামক এক এজিওতে কর্মসূচী সংগঠক পদে মোছাঃ মনিরা বেগম চাকুরীতে যোগদান করে নিয়মিত কর্ম করে আসছে। এনজিও কর্মী মনিরা বেগম দেখতে খুব সুর্দশন নারী হওয়ায় চাকরিতে যোগদানের পর থেকেই তার প্রতি লোলুপ দৃষ্টি পড়ে এনজিওটির নির্বাহী পরিচালক মতিউর রহমানের। তারই সুবাদে মনিরাকে একান্তভাবে কাছে পাওয়ার আশায় গত ২০১০ সালের ৬ জুন তারিখে মাঠ কর্মী থেকে পদোন্নতি দিয়ে তাকে প্রধান কার্যালয় বদলি করে নিয়ে আসেন নারী পিপাসু ওই নির্বাহী পরিচালক। তার কামলিপ্সা চরির্তাথ করতে অফিস চলাকালীন সময়ে-অসময়ে তাকে নিজ চেম্বারে ডাকেন ও ফোনে তার কুশলাদি জিজ্ঞাসা করেন। মনিরা তার কাজের বাহিরে পরিচালকের অনৈতিক আদেশ পালন করতে অস্বীকৃতি জানায়। তথাপিও পরিচালক বিভন্ন সময়ে তার খোঁজ-খবরসহ নানা প্রলোভন দিতে থাকেন। এক সময়ে মোবাইল ফোনে অশ্লীল কথা বার্তা বলে তাকে উত্ত্যক্ত করতে থাকে, যা পরর্বতী সময়ে বুঝতে পেরে মোবাইল ফোনের কথা বার্তা রেকর্ড করে রাখেন মনিরা। পরিচালক তাকে সহজেই দুর্বল করতে না পেরে মনিরাকে বস করার লক্ষ্যে সু-কৌশলে প্রশিক্ষণের কথা বলে তার সাথে ঢাকা যাওয়ার প্রস্তাব দেন এই পরিচালক। মনিরা তার কৌশল বুঝতে পেরে অসুস্থতার কথা বলে নিজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে প্রশিক্ষণে অংশ গ্রহণে অস্বীকৃতি জানালে পরিচালক মতিউর তার ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে মনিরার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ করবে বলে হুমকী দেয়। মনিরা অনেক চেষ্টা করেও পরিচালকের কু-দৃষ্টি থেকে নিজেকে রক্ষা করতে না পেরে অবশেষে নিজের সম্ভ্রম রক্ষার্থে চাকরি থেকে অব্যাহতি পত্র দেয়। মনিরা চাকরি করাকালীন সময়ের প্রদত্ত জামানত, প্রভিডেন্ট ফান্ড ও গ্রাইচুটির অর্থ ফেরত চাইলে পরিচালক তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। মনিরা গত চলতি বছরের ১৮ নভেম্বর এনজিও হতে তার পাওনা অর্থ ফেরত ও পরিচালক মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানিসহ তার বিভিন্ন অপকর্মের বিচার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করে।

এ ব্যাপারে এনজিওটির নির্বাহী পরিচালক মতিউর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, দিনাজপুর জেলায় অবস্থিত পার্বতীপুর উপজেলা বে-সরকারি  উন্নয়ন সংস্থা কাম টু ওয়ার্ক (সিটিডাব্লিউ) সংস্থায় মনিরা ওরফে আকতারা বানু গত ৬ বছর ধরে ক্ষুদ্রঋণ প্রকল্পে কর্মরত ছিলেন। মাত্র ২ দিনের ব্যাবধানে কর্মরত শাখার ম্যানেজার ও অন্যান্য কর্মকর্তাকে ফাঁকি দিয়ে সমিতির সদস্যদের প্রলোভন দেখিয়ে মৌসুমী ঋণের প্রায় আড়াই লাখ টাকা আগাম নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে সংস্থার কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিলে তিনি অত্যন্ত গোপনে বিভিন্ন সরকারী দপ্তরে সংস্থা কর্তৃপক্ষের নামে মিথ্যা যৌন হয়রানীর অভিযোগ এনে তাকে তার পাওনা জামানত, প্রভিডেন্ড ফান্ড ও গ্র্যাচিউয়িটির অর্থ দেওয়া হচ্ছে না মর্মে অভিযোগ দাখিল করেছেন। তিনি আরও  জানান  মনিরা ওরফে আকতারা অত্যন্ত ধুরন্ধর প্রকৃতির মহিলা। সংস্থার নিয়ম অনুযায়ী সে তার পাওনা পাবে। কোন প্রকার যোগাযোগ না করে সংস্থা তার পাওনা দিচ্ছে না বলে অভিযোগ করে এবং ১০বছর পূর্তি ছাড়া কোনো কর্মী গ্র্যাচিউয়িটির অর্থ পায় না বলে তিনি জানান। তার বিরুদ্ধে পাওনা টাকা আদায়ের জন্য থানায় মামলা করা হয়েছে। এ কারণে ওই মহিলা আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা যৌন হয়রানীর অভিযোগ এনেছে।

 

এআর