'২০৫০ সালের মধ্যে অন্ধত্ব বাড়বে ৩ গুণ'
শনিবার, ১৪ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘২০৫০ সালের মধ্যে অন্ধত্ব বাড়বে ৩ গুণ’

বর্তমানে সারাবিশ্বে যে পরিমাণ অন্ধ মানুষ রয়েছে ২০৫০ সালের মধ্যে তা তিনগুণ বৃদ্ধি পাবে বলে জানা গেছে। বিশ্বের মোট ১৮৮টি দেশের উপর চালানো একটি গবেষণায় এই দাবি করা হয়েছে বলে বিবিসির এক প্রতিবেদনে জানা গেছে।

সারাবিশ্বে মাঝারি থেকে গুরুতর দৃষ্টিজনিত সমস্যায় আক্রান্ত অন্তত ২০ কোটি মানুষ। আর আগামী চার দশকের মধ্যে এ সংখ্যা বেড়ে প্রায় ৫৫ কোটিতে পৌঁছাবে বলে ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

সারাবিশ্বে মাঝারি থেকে গুরুতর দৃষ্টিজনিত সমস্যায় আক্রান্ত অন্তত ২০ কোটি মানুষ।

ল্যানসেট গ্লোবাল হেলথ কর্তৃক পরিচালিত এ গবেষণায় বলা হয়েছে, যদি ভালো অর্থায়নের মাধ্যমে উন্নত চিকিৎসা না করা হয়; তবে ২০৫০ সাল নাগাদ অন্ধ মানুষের সংখ্যা বেড়ে সাড়ে ১১ কোটিতে পৌঁছুবে। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার পাশাপাশি বয়স্ক মানুষের সংখ্যাও বাড়ছে। আর এই অন্ধত্ব ও দৃষ্টিক্ষয় রোগের কিছু ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ হার দক্ষিণ এশিয়া ও সাব সাহারা অঞ্চলে। বর্তমানে সারাবিশ্বে সাড়ে ৩ কোটিরও বেশি অন্ধ মানুষ রয়েছে।

গবেষক দলের প্রধান ও যুক্তরাজ্যের অ্যাঙ্গলিয়া রাসকিন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রুপার্ট বোর্ন জানান, অল্প দৃষ্টিজনিত সমস্যাও মানুষের ব্যক্তি জীবনে গুরুতর প্রভাব ফেলতে পারে। যেমন তারা গাড়ি চালানোর মতো বিষয়ে বাধা পেতে পারেন।  এই সমস্যা ভুক্তভোগীদের স্বাধীনতার মাত্রা কমিয়ে দিতে পারে।

বর্তমানে সারাবিশ্বে সাড়ে ৩ কোটিরও বেশি অন্ধ মানুষ রয়েছে।

ওই গবেষণায় উঠে এসেছে, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অধিবাসীরা চোখের সমস্যায় সবেচেয়ে বেশি আক্রান্ত। সেইসঙ্গে সাব সাহারা আফ্রিকার কিছু অঞ্চলেও এ রোগের হার বেড়েছে।

চোখের ত্রুটি ও অন্ধত্ব নিয়ে ল্যানসেট গ্লোবাল হেলথের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বের মোট অন্ধত্বের শিকার মানুষের ১ কোটি ১৭ লাখ দক্ষিণ এশিয়া, ৬২ লাখ পূর্ব এশিয়া, ৩৫ লাখ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার অধিবাসী।

এর বাইরে সাব সাহারা আফ্রিকা অঞ্চলের ৪ শতাংশের বেশি মানুষ এবং পশ্চিম ইউরোপের মাত্র শূন্য দশমিক ৫ শতাংশেরও কম মানুষ অন্ধত্বের শিকার।

অর্থসূচক/কে এম

এই বিভাগের আরো সংবাদ