ট্রাফিক সার্জেন্টকে মারধরের ঘটনায় মামলা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ট্রাফিক সার্জেন্টকে মারধরের ঘটনায় মামলা

রাজধানীর বাংলামোটরে দায়িত্ব পালনকালে ট্রাফিক সার্জেন্টকে মারধরের ঘটনায় আজ মঙ্গলবার রমনা থানায় মামলা করা হয়েছে। সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে দায়ের করা ওই মামলায় অজ্ঞাতনামা ৩০-৪০ জনকে আসামি দেখানো হয়েছে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হামলার শিকার হন সার্জেন্ট কায়সার হামিদ বাদি হয়ে মামলাটি করেন।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান এই তথ্য নিশ্চিত করেন। ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এই ঘটনায় খুবই ক্ষুব্ধ হয়েছেন। নিয়ম ভঙ্গকারী ও হামলাকারী শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে পুলিশের ওপর হামলা ও সরকারি কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে মামলা করার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন তারা।

Ramna Police Station

রমনা মডেল থানা।

গতকাল সোমবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে রাজধানীর বাংলামোটরে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হামলার শিকার হন সার্জেন্ট কায়সার হামিদ। শাহবাগের দিক থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইটি দোতলা বাস বাংলামোটরে সিগন্যালে এসে থামে। সে সময় কয়েকজন ছাত্র বাস থেকে নেমে কারওয়ান বাজারের (সোনারগাঁও ক্রসিং) দিক থেকে শাহবাগগামী গাড়িগুলোকে আটকে দোতলা বাস দুইটিকে উল্টো পথে নেওয়ার চেষ্টা করলে কর্তব্যরত সার্জেন্ট তাতে বাধা দেন।

সার্জেন্টের সঙ্গে তাদের বাগবিতণ্ডা হয়। চলতি ট্রাফিক আটকাতে ছাত্রদের নিষেধ করেন সার্জেন্ট। এক পর্যায়ে বাস থেকে আরও কয়েকজন ছাত্র নেমে সার্জেন্টের ওপর চড়াও হয়ে মারধর শুরু করেন। ওই সময় কিছু শিক্ষার্থী হামলাকারীদের নিরস্ত করারও চেষ্টা করেন। তবে তাদের থামানো যায়নি। ঘটনাস্থলে থাকা আরেক সার্জেন্ট দৌড়ে গিয়ে মোবাইল ফোনে ঘটনার ভিডিও ধারণ শুরু করলে ছাত্ররা বাসে ফিরে যান। তখন বাস দুইটি সোজা পথেই কারওয়ান বাজারের দিকে রওনা হয়।

অর্থসূচক/মুন্নাফ/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ