'বিনিয়োগকারীরা সচেতন হলেই পুঁজিবাজার এগিয়ে যাবে'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘বিনিয়োগকারীরা সচেতন হলেই পুঁজিবাজার এগিয়ে যাবে’

বিনিয়োগকারীরা সচেতন হলেই পুঁজিবাজার এগিয়ে যাবে। আর সেই পুঁজিবাজারকে ব্যবহার করে এগিয়ে নেওয়া যেতে পারে দেশের সামগ্রিক শিল্পায়ন।

আজ সোমবার ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগ জ্ঞান বৃদ্ধির লক্ষ্যে সচেতনতামূলক অনুষ্ঠানে এমন কথা বলেন এসআইবিএল সিকিউরিটিজের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির।

সারা দেশের সাধারণ মানুষের মাঝে বিনিয়োগ শিক্ষা কর্মসূচির অংশ হিসেবে এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন ডিএসইর মহাব্যবস্থাপক ও কোম্পানি সচিব আসাদুর রহমান, বিশেষ অতিথি ছিলেন ডিএসই ট্রেনিং একাডেমির সিনিয়র ম্যানেজার মোহাম্মদ রনি ইসলাম লিমান।

কর্মশালায় প্রশিক্ষণ দেন এসআইবিএল সিকিউরিটিজের হেড অব অপারেশন আশিকুজ্জামান চৌধুরী ও রিসার্সের কর্মকর্তা আহসানুল হক সবুজ। উপস্থিত ছিলেন হেড অব ট্রেড জিকরুল হক ও শাখা ব্যবস্থাপক শহিদুল আলমসহ প্রায় ৮০ জন বিনিয়োগকারী।

হুমায়ুন কবির বলেন, জাতি গঠনে যেমন শিক্ষার প্রয়োজন, তেমনি অর্থনীতি উন্নয়নে সমৃদ্ধ পুঁজিবাজার প্রয়োজন। আর সমৃদ্ধ পুঁজিবাজারের প্রয়োজন দক্ষ বিনিয়োগকারী। বিনিয়োগকারী তৈরি হলেই ভালো ভালো কোম্পানি পুঁজিবাজারকে ব্যবহার করতে পারবে। আর পুঁজিবাজারকে ব্যবহার করে এগিয়ে নেওয়া যেতে পারে দেশের শিল্পায়ন। যার প্রভাব পড়বে দেশের অর্থনীতির উন্নয়নে।

হুমায়ুন কবির বলেন, দেশের অর্থনীতিতে অবদান বাড়াতে পুঁজিবাজারকে আরও সমৃদ্ধ করা প্রয়োজন। এই জন্য প্রয়োজন সমৃদ্ধ বিনিয়োগকারী। আর সমৃদ্ধ বিনিয়োগকারী তৈরি করার জন্যই দেশব্যাপী কার্যক্রম পরিচালনা করছে বিএসইসি ও ডিএসই।

তিনি বলেন, পুঁজিবাজার একটা ঝুঁকির ব্যবসা। কাজেই এখানে ঝুঁকির কথা মাথায় থাকতে হবে। কী ধরণের রিটার্নের বিপরীতে কত ঝূঁকি নেওয়া সম্ভব তা নিয়ে সতর্ক থাকতে হবে।

আসাদুর রহমান বলেন, দেশের অর্থনীতির উন্নতির সঙ্গে পুঁজিবাজারও সম্পৃক্ত। যে দেশের পুঁজিবাজার যত বেশি উন্নত; সে দেশের অর্থনীতি তত বেশি সমৃদ্ধ; আর পুঁজিবাজার ভালো হলে অর্থনীতির প্রবৃদ্ধিও অনেক শক্তিশালী হয়। তাই অর্থনীতির ভিত্তি শক্তিশালী করতে পুঁজিবাজারের উন্নয়ন প্রয়োজন।

তিনি বলেন, ২০১০ সালের পর থেকে পুঁজিবাজারের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন সংস্কারমূলক পদক্ষেপ গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করেছে বর্তমান সরকার। পাশাপাশি দেশব্যাপী ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা বিনিয়োগকারীদের ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসি প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বিএসইসি। এরই অংশ হিসাবে আজকের এই প্রশিক্ষণ কর্মশালা করছে এসআইবিএল সিকিউরিটিজ।

মোহাম্মদ রনি ইসলাম লিমান বলেন, যাতে পুঁজিবাজারে ১৯৯৬ ও ২০১০ সাল আর ফিরে না আসে সে জন্য নিয়ন্ত্রক সংস্থা অনেক আইন-কানুন পরিবর্তন করেছে। একই সঙ্গে বিনিয়োগকারীদের সচেতন করার জন্য দেশব্যাপী ফিন্যান্সিয়াল লিটারেসি প্রশিক্ষণ চালু করেছে। এর মাধ্যমে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিনিয়োগকারীদের বুঝে শুনে বিনিয়োগের প্রতি আগ্রহী করে তুলছে।

তিনি বলেন, এই কর্মশালার একটি বড় উদ্যেশ্য হলো বিনিয়োগকারীরা যাতে পড়াশুনা করে বিনিয়োগ করে। যাতে কোনো বিনিয়োগকারী হুজুগে বা গুজব কান না দেয়। বিনিয়োগের আগে যাতে বাজারের পরিস্থিতি, কোম্পানির বাস্তব অবস্থা বিবেচনা করে।

অর্থসূচক/গিয়াস/টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ