ঈদের ছুটি শেষেও চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচেপড়া ভিড়
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ঈদের ছুটি শেষেও চট্টগ্রামের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচেপড়া ভিড়

ঈদুল ফিতরের ৩ দিনের নির্ধারিত ছুটি শেষ হয়েছে গত মঙ্গলবার। তবে চট্টগ্রামে এখনও কাটেনি ঈদের রেশ। নগরীর প্রতিটি সড়ক ও বিনোদন কেন্দ্রে এখনও ঈদের আমেজ। ঈদের সময় শহরে থাকা বাসিন্দারা এখনও ঘুরে বেড়াচ্ছেন বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রে।

ঈদের দিনে স্বজনদের বাড়িতে বেড়ানোর পর ঈদের দ্বিতীয় দিন থেকে বিনোদন কেন্দ্রে ভিড় করছেন নগরবাসী। গতকাল বুধবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে মানুষের উপচেপড়া ভিড় ছিল। এতে বিঘ্ন ঘটাতে পারেনি নগরী ঠাণ্ডা করা বৃষ্টিও।

EID CTG (1)

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকতে দর্শনার্থীর ভিড়।

পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত, কাট্টলী সৈকত, নেভাল, প্রজাপতি পার্ক, আগ্রাবাদ ও কাজীর দেউড়ি শিশুপার্ক, ফয়’স লেক ওয়াটার পার্ক, চিড়িয়াখানা, সিআরবি মোড়, বাটালি হিল, ডিসি হিল, ভাটিয়ারি পাহাড় পার্ক, তৃতীয় কর্ণফুলী সেতু, ওয়ার সিমেট্রি ও স্বাধীনতা পার্কে ভিড় জমিয়েছে মানুষ। শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ মানুষও বাদ পড়ছে না এই তালিকা থেকে।

নগরীর প্রায় সব বিনোদন কেন্দ্র সরেজমিন পরিদর্শনে দেখা গেছে, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব নিয়ে বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে জড়ো হয়েছেন বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। দর্শনার্থীদের মধ্যে কিশোর-কিশোরী, তরুণ-তরুণী ও প্রেমিক যুগলের সংখ্যা তুলনামূলক বেশি।

ফয়’স লেক কনকর্ড এমিউজমেন্ট পার্কের সহকারী ব্যবস্থাপক বিশ্বজিৎ ঘোষ অর্থসূচককে বলেন, ঈদের ছুটিতে যারা বাড়ি যাননি এবং যারা শহরেই ঈদ করেন তারা ফয়’স লেকে ভিড় করছেন। এছাড়া দূর-দূরান্ত থেকেও লোকজন আসেন এখানে। ঈদের দিন লোকজন কম আসলেও গত মঙ্গলবাল ও বুধবার ভিড় বেড়েছে। গত মঙ্গলবার ফয়’স লেগে প্রায় ৭ হাজার দর্শনার্থী এসেছিলেন। গতকাল বুধবার দর্শনার্থীর সংখ্যা আরও বেড়েছে।

EID CTG (2)

বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্র বসেছে অস্থায়ী সার্কাস।

বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল সংলগ্ন মিনি বাংলাদেশের পরিচালক আশরাফ কাদের জানান, ঈদের দিন এখানে ব্যাপক লোকের সমাগম হয়েছিলো। ঈদের দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনেও প্রচুর লোক এসেছে। আগামী শনিবার পর্যন্ত এমন ভিড় থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে। ঈদ উপলক্ষে বিভিন্ন রাইড ভ্রমণে বিশেষ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

ঈদের ছুটিতে সবচেয়ে বেশি ভিড় ছিল পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত ও নেভাল জেটিতে। দূর-দূরান্ত থেকে মানুষ এসেছেন সাগরের নীল জলরাশি ও নদী-সাগরের মোহনার উত্তাল ঢেউ দেখতে। খোলা আকাশের নিচে আড্ডায় মেতেছেন অনেকেই; স্মার্টফোনে নিজেদের ছবিও ধারণ করছেন কেউ কেউ। মুহূর্তের মধ্যেই ছবি আপলোড হচ্ছে ফেসবুকসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

নিউমার্কেট এলাকা থেকে পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত ঘুরতে যাওয়া সাইদুল জামান বলেন, আমি চট্টগ্রামের ছেলে। চাকরির সুবাদে কুষ্টিয়ায় থাকি। প্রতি বছর ঈদ করতে কুষ্টিয়া থেকে স্বপরিবারে নিজের বাড়িতে আসি। ঈদের ছুটির দিনগুলো পরিবার নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরি। গত মঙ্গলবার ফয়’স লেকে গিয়েছিলাম। আজ পতেঙ্গা ও বাটারফ্লাই পার্ক দেখতে এসেছি।

EID CTG (3)

বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্র বসেছে অস্থায়ী নাগরদোলা; সেখানে ভিড় করছেন ছোট-বড় বিভিন্ন বয়সের মানুষ।

নগরীর অভয়মিত্র ঘাটেও ব্যাপক ভিড় দেখা গেছে। সেখানে পরিদর্শনে গিয়ে কথা হয় ফোরকান রাসেল নামে যুবকের সঙ্গে। তিনি বলেন, বছরের সব সময় বন্ধুদের কাছে পাওয়া যায় না। ঈদের ছুটিতে সিআরবি, পতেঙ্গা, মিনি বাংলাদেশ, ফয়’স লেকসহ বিভিন্ন জায়গায় ঘুরলাম। অভয়মিত্র ঘাটে এসে অনেক ভালো লাগছে। ৫ বছর আগেও এখানে তেমন কেউ আসতো না। এখন প্রচুর ভিড় হয়।

অন্যদিকে নগরীর বাইরে আনোয়ারার পারকি সমুদ্র সৈকত, বাঁশখালী ও সীতাকুণ্ডের ইকো পার্ক, রাউজানের রাবার বাগান, মিরসরাইয়ের মহামায়া লেক, কাপ্তাই লেক, সানসেট পয়েন্ট, ভাটিয়ারী গলফ ক্লাব, কর্ণফুলী সেতুসহ বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রেও ভিড় করছেন নগরবাসী।

অর্থসূচক/দেবব্রত/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ