রাজশাহীতে বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে হরতাল-অবরোধ চলছে
শনিবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » রাজশাহী

রাজশাহীতে বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে হরতাল-অবরোধ চলছে

rajshahi mapরাজশাহী মহানগরীতে সংঘর্ষ, ককটেল বিস্ফোরণ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং কিছু বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা টানা অবরোধের মধ্যেও হরতাল চলছে।

সোমবার অবরোধের সর্মথনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ১৮ দলীয় জোট। অপরদিকে জামায়াতের ডাকা হরতালের সমর্থনে সকাল থেকে মহানগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করেছে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। এছাড়া ছাত্রদলের ডাকে রাজশাহী বিভাগের ৮ জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত হচ্ছে। পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, সোমবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে অবরোধের সমর্থনে মহানগরীর কাদিরগঞ্জ মহিলা কলেজের সামনে থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করে মহানগর ১৮ দল। এতে নেতৃত্ব দেন বিএনপি যুগ্ম-মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মিজানুর রহমান মিনু, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও রাজশাহী সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, মহানগর সাধারণ-সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, মহানগর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি ইমাজউদ্দিন, মাইনুল ইসলাম ও ইসলামী ঐক্যজোটের মাওলানা আব্দুস সাত্তার। মিছিলটি সাহেব বাজার ও নিউমার্কেট এলাকা হয়ে নগর ভবনের সামনে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্যে দিয়ে শেষ হয়।

এছাড়া ছাত্রদলের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতালের সমর্থনে মহানগর ছাত্রদল সভাপতি মাহফুজুর রহমান রিটন ও সাধারণ-সম্পাদক শাহ মইনুল হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রদল নেতৃবৃন্দ। হরতালের সমর্থনে সকাল থেকে মাঠে নামে জামায়াত-শিবিরের নেতকর্মীরা। সকাল সাড়ে ৬টার দিকে মহানগরীর কোর্ট স্টেশন এলাকার চারকোঠা মোড় থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে শিবির। মিছিল শেষে তারা সড়কে টায়ার জ্বালিয়ে পিকেটিং করেছে। সকাল সোয়া ৯টার দিকে শালবাগান এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল শেষে রাস্তায় বিদ্যুতের খুঁটি, গাছের গুড়ি ফেলে ও টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করতে রাবার বুলেট, টিয়ার শেল, শর্টগানের গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেড নিক্ষেপ করে। এ সময় শিবির নেতাকর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ ও বেশ কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়।

এতে উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় দুইজন পুলিশসহ ১৭ জন শিবির নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এছাড়া নগরীর শাহ্ মখদুম কলেজ, রাজপাড়া, রাজশাহী কলেজ, অক্ট্রর মোড় ও সাহেব বাজার এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল, ককটেল বিস্ফোরণ ও রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে শিবিরের নেতাকর্মীরা। এদিকে, হরতাল ও অবরোধের সমর্থনে বেলা সোয়া ১১টার দিকে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে থেকে মিছিল বের করে রাবি ছাত্রদল। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে সামনে পৌছলে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় নেতাকর্মীরা। এসময় পুলিশ রাবার বুলেট, টিয়ার সেল ও শর্টগানের কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

এতে ছাত্রদলের যুগ্ম-আহ্বায়ক ইসমাঈল, রাসেল ও ছাত্রদলকর্মী রবিন, পাপন, সামিউল, দেলওয়ার, তুর্য ও আরিফ আহত হন। রাজশাহীতে অবরোধের কারণে দূরপাল্লার সব বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ ও নাশকতার আশঙ্কায় পরিবহন মালিকরা তাদের যানবাহন চলাচল বন্ধ রেখেছেন। তবে সকাল গড়াতেই মহানগরীতে অটোরিকশা, রিকশাসহ বিভিন্ন হালকা যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়ে আসছে। রাজশাহী রেলস্টেশন থেকে ঢাকাসহ বিভিন্ন রুটের ট্রেন নিজ নিজ গন্তব্যের উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাচ্ছে। অফিস-আদালতে কাজকর্ম চলছে ঢিলে ঢালাভাবে।

রাজশাহী মহানগর পুলিশ কমিশনার ব্যারিস্টার মাহবুবুর রহমান জানান, আইন-শৃংখলা বাহিনীর কঠোর অবস্থানের কারণে কোথাও কোনো বড় ধরণের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায় নি। এছাড়া যেকোনো ধরনের নাশকতা এড়াতে মহানগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

এএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ