খুলনা থেকে অপহৃত ব্যক্তি বাজিতপুরে উদ্ধার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » সর্বশেষ

খুলনা থেকে অপহৃত ব্যক্তি বাজিতপুরে উদ্ধার

মুক্তিপণের দাবীতে খুলনা থেকে আসা একটি প্রাইভেটকারসহ অপহৃত মোনায়েম খান মিথুন (২৬) এক ব্যবসায়ীকে কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর থেকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব-১৪, ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা।

গত ৭ জুন তাকে অপহরণ করার পর তার বড়বোন মারিয়া জুলির কাছে মোবাইলে ৩৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবী করে চক্রটি। বিষয়টি তিনি ভৈরব র‌্যাবকে জানালে র‌্যাব অভিযান চালিয়ে মিথুনকে উদ্ধার করে। আটক করে ওই অপহরণ চক্রের ৬ সদস্যকে।

আটককৃতরা হলেন-কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের মতিউর রহমান ডুলু মিয়ার ছেলে ওমর ফারুক রাসেল (৩৫). তাড়াইল উপজেলার আকুবপুর গ্রামের নূরুল ইসলামের ছেলে সাঈদ ইবনে নূর শিহাব (২৯), বাজিতপুরের সাতবাড়িয়ার মৃত হাজী সাইদুর রহমানের ছেলে গোলাম কাউছার মন্টু (৩৮), কুতুবপুরের বাচ্চু মিয়ার ছেলে রাকিবুল হাসান রাকিব (২০), নগরবান্দা গ্রামের মুছা মিয়ার ছেলে মান্নান মিয়া (৩০) এবং ভৈরব উপজেলার সাদেকপুর গ্রামের ইমাম উদ্দিনের ছেলে সোহানুর রহমান ইছাক (১৯)।

এ সময় উদ্ধার করা হয় একটি বিদেশী (আমেরিকা) পিস্তুল, দুটি ম্যাগজিন, ১১ রাউন্ড গুলি, নগদ এক লাখ পাঁচ হাজার পাঁচশত টাকা, ৭টি সীমসহ ৭টি মোবাইল ফোন এবং মিথুনের প্রাইভেটকারটি।

র‌্যাব-১৪, ভৈরব ক্যাম্প জানায়, গত ১৬ জুন অপহৃত মিথুনের বোন মারিয়া জুলি ভৈরব র‌্যাব ক্যাম্পে তার ভাইকে অপহরণ ও মুক্তিপণের ৩৫ লাখ টাকা পরিশোধে চক্রটি মোবাইল ফোনে বার বার তাগাদা দেওয়ার বিষয়টি জানান। অন্যথ্যায় মিথুনকে মেরে ফেলার হুমকির কথাও তিনি র‌্যাব জানান। ওই মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে র‌্যাব জানতে পারেন অপহরণকারী চক্রটি কিশোরগঞ্জের বাজিতপুরে অবস্থান করছে।

পরবর্তীতে গত ১৭ জুন চক্রটি মারিয়া জুলির মোবাইলে কিশোরগঞ্জের এসএ পরিবহণের মাধ্যমে মুক্তিপণের টাকা পাঠাতে বলে। এর সূত্র ধরে ভৈরব র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ, স্কোয়াড কমান্ডার এএসপি জুয়েল চাকমা ও কিশোরগঞ্জ র‌্যাব ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা স্বপনের নেতৃত্বে র‌্যাব সদস্যরা এসএ পরিবহণের আশেপাশে ছদ্মবেশে অবস্থান নেন। এ সময় মারিয়া জুলি এসএ পরিবহণের কাছে এসে ৭ লাখ টাকা গ্রহণ করার কথা বলে ফোন দেন। এ সময় ওইচক্রের দুই সদস্য কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর উপজেলার সাতবাড়িয়া গ্রামের মতিউর রহমান ডুলু মিয়ার ছেলে ওমর ফারুক রাসেল (৩৫). তাড়াইল উপজেলার আকুবপুর গ্রামের নূরুল ইসলামের ছেলে সাঈদ ইবনে নূর শিহাব (২৯) টাকা নিতে আসলে তাদেরকে আটক করেন র‌্যাব সদস্যরা। পরে রাসেলের দেওয়া তথ্যমতে তাদের বাড়ি থেকে অপহৃত মিথুনকে উদ্ধারসহ অপর চারজনকে আটক করে র‌্যাব।

পরে জিজ্ঞাসাবাদে রাসেলের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার নিজ বাড়ি থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। আটককৃত চক্রটিকে এলাকায় ত্রাস ও সন্ত্রাসী হিসেবে আখ্যায়িত করে র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পোর কোম্পানী কমান্ডার মেজর শেখ নাজমুল আরেফিন পরাগ জানান. রাসেলের কাছে থাকা অস্ত্র ও গুলি অপহরণ, চাঁদাবাজী ও সন্ত্রাসী কাজে ব্যবহার করতো। আটককৃতদের বিরুদ্ধে অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবী এবং অস্ত্র আইনে মামলা দায়েরের পর বাজিতপুর থানায় সোপর্দ করা হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন।

মোস্তাফিজ/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ