ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নিয়মমাফিক পরিশ্রম
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে নিয়মমাফিক পরিশ্রম

ডায়াবেটিস রোগীদের নিয়মমতো ইনসুলিন নেওয়া প্রয়োজন হলেও ব্যায়ামরত অবস্থায় মাংসপেশীর কোষ ইনসুলিনের সাহায্য ছাড়াই সরাসরি রক্ত থেকে গ্লুকোজ গ্রহণ করতে পারে। ফলে একদিকে রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমে যায় আর অন্যদিকে মাংসপেশীর কোষগুলো পর্যাপ্ত গ্লুকোজ পেয়ে পূর্ণ শক্তিতে সবল হয়ে উঠে। বাচ্চারা বেশী নড়চড়া করে বলে বড়দের তুলনায় তাদের ইনসুলিন কম প্রয়োজন হয় (ওজন ভিত্তিতে)।

আমাদের শরীরের একটা অঙ্গ আছে যার মাংসপেশী ২৪ ঘন্টাই ব্যায়াম করে আর সেটা হলো হার্ট বা হৃদপিন্ড। প্রতি মিনিটে গড়ে ৭২ বার সংকুচিত ও ৭২ বার প্রসারিত হয়)। যেহেতু এটা সারাক্ষণ ব্যায়াম করে সেহেতু হৃদপিন্ডের মাংসপেশীর কোষে গ্লুকোজ ঢোকার জন্য ইনসুলিন গুরুত্বপূর্ণ নয়।

ডায়াবেটিস রোগীদের অত্যাবশ্যকীয় উপাদান ইনসুলিন। ফাইল ছবি

তবে অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গগুলোর জন্যে ব্যায়াম বেশ প্রয়োজনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার।

কখন ও কতক্ষণ ব্যায়াম করবেন

প্রতিদিন সকালে ৩০ মিনিট ও সন্ধ্যায় ৩০মিনিট ব্যায়াম করাই যথেষ্ট। শুরুতে ৫ মিনিট করে তারপর আস্তে আস্তে সময় বাড়িয়ে ৩০ মিনিট করাই উত্তম।

কী ধরনের ব্যায়াম করতে হবে

ফ্রি হ্যান্ড এক্সারসাইজ বা এরোবিক এক্সারসাইজ বলতে যেসব ব্যায়ামগুলোকে বোঝায় সেগুলোই করতে হবে। যেমন হাঁটা (তবে ধীরলয়ে গল্প করতে করতে হাঁটলে হবে না)। দ্রুত হাঁটতে হবে অথবা সাইকেল চালানো, সাঁতার কাটা ইত্যাদি নানান ধরনের কাজ করেও ব্যায়াম করা যেতে পারে।

তবে কিছু সাবধানতা

  • হার্টের রোগীরা ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া ব্যায়াম করবেন না।
  • ভারি ব্যায়াম বা রেজিস্ট্যান্ট এক্সারসাইজ (যেমন ভার উত্তোলন) করতে যাবেন না। এতে হিতে বিপরীত হতে পারে।এ ধরনের ব্যায়ামের সময় প্রচুর পরিমাণে স্ট্রেস হরমোন বের হয় যা রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়।

    exercise-balls

    এক্সারসাইজ বলে ঘরে বসেও ফ্রিহ্যান্ড ব্যায়াম করতে পারেন।

অন্যান্য কায়িক পরিশ্রম

শুধু কায়িক পরিশ্রমের মাধ্যমেই আপনি ডায়াবেটিসের অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন। মনে রাখবেন কায়িক পরিশ্রমই হচ্ছে প্রাকৃতিক ইনসুলিন। যতটা বেশী শারিরীক পরিশ্রম করা সম্ভব তা করতে চেষ্টা করবেন।

  • গন্তব্য নিকটে হলে পায়ে হেঁটে যান। দূরে হলে খানিকটা হেঁটে তারপর গাড়িতে উঠুন বা একটু আগে নেমে বাকিটা পথ হাঁটুন।
  • সপ্তাহে অন্তত ২ দিন ১ করে মাইল হাঁটার অভ্যাস করুন।
  • যে সব কাজ আপনি নিজেই করতে পারেন তা অন্য কাউকে দিয়ে করাবেন না।
  • এক নাগাড়ে অনেকক্ষণ বসে না থেকে হাত-পা নড়াচড়া করুন বা একটু উঠবস করুন।
  • খাওয়ার পর অন্তত ২ ঘন্টা বিছানায় যাবেন না বা বসে বসে রেস্ট নিবেন না। এসময়ের নড়াচড়া করতে থাকা আপনার রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হয়

অর্থসূচক/টি এম/কে এম

এই বিভাগের আরো সংবাদ