রাতে বন্ধ আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

রাতে বন্ধ আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার

গাড়ি চলাচলের জন্য গতকাল শুক্রবার চট্টগ্রামের বহুল প্রতিক্ষীত আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের এক পাশ খুলে দেওয়া হয়েছে। তবে কাজ এখনো শেষ না হওয়ায় রাতে এ ফ্লাইওভার বন্ধ রাখা হবে।

বাকি কাজ শেষ করতে এবং ফ্লাইওভারের নিরাপত্তার স্বার্থে রাত ১০টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে চট্টগ্রাম ডেভেলপমেন্ট অথোরিটি (সিডিএ)।

সিডিএ চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম অর্থসূচককে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

Akhtaruzzaman Flyover

যান চলাচলের জন্য খুলে দেওয়ার আগে বেলুন ও নানা রঙের পতাকা দিয়ে সাজানো হয়েছে আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের একাংশ।

তিনি বলেন,  ঈদের আগে নগরীর যানজট নিরসনের কথা চিন্তা করে বিভিন্ন প্রশাসন, ট্রাফিক বিভাগের অনুরোধে ফ্লাইওভারটির একপাশের দুই লেন খুলে দেওয়া হয়। তবে ফ্লাইওভারের কাজ এখনো শেষ হয়নি। বাকি কাজ শেষ করতে আপাতত রাতে গাড়ি চলাচল বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, রাত ১০টায় তেমন যানজট থাকে না। তাই এ সিদ্ধান্তে খুব একটা সমস্যা হবে বলে মনে করছি না। আবার ফ্লাইওভারের নিরাপত্তার বিষয়টিও মাথায় রাখা হয়েছে।

তবে ঈদের পর ২৪ ঘণ্টা এটি খুলে দেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

উল্লেখ, গতকাল বিকেলে গাড়ি চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় মুরাদপুর-লালখানবাজারের আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার।

সিডিএ-এর নির্বাহী প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান বলেন, ২০১৪ সালের ১২ নভেম্বরে আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। তবে এর কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালের মার্চ মাসে। ফ্লাইওভারের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ। একটি লেইনে কার্পেটিংয়ের কাজ শেষ হয়েছে যেখান দিয়ে এখন গাড়ি চলাচল করছে। তবে অন্য লেইনে এখনো কার্পেটিং শেষ হয়নি। এক্সটেনশনের কাজও করা হচ্ছে। ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজের কারণে নগরবাসীকে যানজটসহ বিভিন্ন কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

তিনি জানান, আখতারুজ্জামান ফ্লাইওভারের প্রাক্কলিত নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছিল ৪৬২ কোটি টাকা। পরে ‌র‌্যাম্প ও লুপ যুক্ত হওয়ায় প্রকল্পের ব্যয় বেড়ে ৬৯৮ কোটি টাকায় দাঁড়ায়। এর নির্মাণ কাজের মেয়াদ ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়। ফ্লাইওভারটি নির্মাণ করেছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স-রেঙ্কিন (জেভি)।

প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান বলেন, ফ্লাইওভারে কার্পেটিংয়ের কাজ শেষ হলে পুরো এলাকায় সৌন্দর্য্য বর্ধনের কাজ শুরু হবে।

দেবব্রত/এস

এই বিভাগের আরো সংবাদ