ঈদে ভুনা খিচুরি ও চিকেন-সবজি বিরিয়ানি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ঈদে ভুনা খিচুরি ও চিকেন-সবজি বিরিয়ানি

আর মাত্র ৮-৯ দিন বাকি ঈদের। ১ মাস রোজা রাখার পর ঈদের দিন আসলে তেমন কিছু খেতেই ইচ্ছে করে না। সকাল বেলা  সেমাই, পায়েস দিয়েই মিষ্টি মুখ করে নামাজে চলে যান পরিবারের ছেলে সদস্যরা। সে ক্ষেত্রে নামাজ থেকে এসে একটু ঝাল আইটেম হলে মন্দ হয় না। তাছাড়া ঈদের দিনের খাবারের মধ্যে খিচুরি আর গরুর মাংস অন্যতম। বাজারে এখন গরুর মাংসের দাম অনেক বেশি সেক্ষেত্রে চাইলে মুরগী বা খাসির মাংসও খেতে পারেন ।

তাই আজ ঈদ উপলক্ষে ভুনা খিচুরি মুরগির মাংস অার চিকেন-সবজি বিরিয়ানির রেসিপি দেওয়া হলো-

ঈদের নামাজ শেষে সকাল বেলার প্রধান খাবার খিচুরি আর মাংস। এবার জেনে নেই এর রেসিপি-

ভুনা খিচুড়ি ও মুরগির মাংস

উপকরণ
পোলাওর চাল বা আতপ চাল ১ কেজি, ঘি ২-৩ টেবিল চামচ, সামান্য জর্দার রং (চাইলে নাও দিতে পারেন), মুগ ডাল ২ কাপ (একটু ভেজে নিতে হবে), মসুর ডাল ১ কাপ,  মাংস পরিমান মত, আদা বাটা ২ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ৩ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ বাটা ৪-৫ টেবিল চামচ, তেজ পাতা ২-৩ টা, গরম মসলার গুঁড়া ১ চা চামচ, তেল পরিমান মত, কাঁচা মরিচ ৬-৭ টি, লবণ স্বাদ মত, জিরা বাটা আধা চা চামচ।

প্রস্তুত প্রনালীঃ
প্রথমে মাংস ভালোভাবে ধুয়ে নিয়ে তার সঙ্গে আদা বাটা, রসুন বাটা, পিঁয়াজ বাটা দিয়ে ২-৩ ঘন্টা মাখিয়ে রাখতে হবে, এ প্রক্রিয়াকে মেরিনেট করা বলে। মেরিনেট হয়ে গেলে চুলায় তেল দিয়ে মাংস ভালো ভাবে কষিয়ে নিতে হবে। কষানো হয়ে গেলে চাল ধুয়ে মাংসের সঙ্গে তেজ পাতা, গরম মসলার গুঁড়া, কাঁচা মরিচ, লবণ দিয়ে একটু নেড়েচেড়ে পরিমান মত গরম পানি দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। উতলে গেলে ঢাকন নামিয়ে কিছু সময় জ্বাল দিতে হবে। পানি ঘন হয়ে এলে ঘি দিয়ে একটু নেড়ে আবার ঢাকনা দিয়ে অল্প আঁচে ২০-৩০ মিনিট রেখে দিতে হবে। হয়ে গেলে চুলা থেকে নামিয়ে পরিবেশন করুন গরম গরম ভুনা খিচুরি।

মুরগির মাংস

উপকরণ
মুরগি ১ টি (দেড় কেজি), আলু বড় ২টি, পেঁয়াজ কুচি ১/২ কাপ, আদা বাটা ১ টে চামচ, রসুন বাটা ১ টে চামচ, জিরা বাটা/গুঁড়া  ১ চা চামচ, মরিচ গুঁড়া দেড় চা চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা চামচ, তেজপাতা ৩টি, দারুচিনি ৩ টুকরা (দেড় ইঞ্চির), এলাচ ৪/৫ টি, আস্ত জিরা ১ চা চামচ (নাও দিতে পারেন), কাঁচামরিচ ৫/৬ টি,  ভাজা জিরা গুঁড়া ১ চা চামচ, গরম মসলা গুঁড়া ১ চা চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ১/৪ কাপ ।

প্রস্তুত প্রনালীঃ
প্যানে তেল গরম করে আস্ত জিরা ও আস্ত গরম মসলা ফোঁড়ন দিয়ে পেঁয়াজ কুচি ভেজে নিন। পেঁয়াজ বাদামি হলে তাতে অল্প পানি দিয়ে সব মসলা (ভাজা জিরা ও গরমমসলা গুঁড়া বাদে) কষিয়ে নিন।
মসলা কষানো হলে আলু কষিয়ে মুরগি মিশিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন। পানি দেয়ার দরকার নেই। মুরগি থেকে যে পানি বের হবে তা দিয়েই মুরগি কষিয়ে নিন।
মুরগি কষানোর পানি শুকিয়ে গেলে ঝোলের জন্যে পরিমাণমতো পানি দিন। তেল ছেড়ে আসলে কাঁচামরিচ, ভাজা জিরা ও গরমমসলা গুঁড়া ছড়িয়ে কিছুক্ষণ দমে রেখে নামিয়ে ফেলুন।

চিকেন সবজি বিরিয়ানি

ঈদের দিন দুপুর বা রাতে খেতে পারেন এই চিকেন-সবজি বিরিয়ানি। সাধারণত দুপুর আর রাতেই বেশি অতিথি আসে তাই সে সময়টায় খাবার টেবিলে অন্যান্য খাবারের পাশে রাখতে পারেন এই মজাদার  বিরিয়ানি। অন্যদিকে পরিবারের ছোটরা যেহেতু সবজি খেতে চায় না তাদের জন্য রঙ্গিন সবজি এবং মুরগির মাংস দিয়ে তৈরি করে দিতে পারেন চিকেন ভেজিটেবল বিরিয়ানি। এটা বড়দের পাশাপাশি শিশুরাও বেশ পছন্দ করবে।

উপকরণঃ
বাসমতি চাল ৫০০ গ্রাম, মুরগির মাংস ৫০০ গ্রাম, গাজর ১/২ কাপ, ব্রকলি ১/২ কাপ, ক্যাপসিকাম ১ কাপ (লাল, সবুজ, হলুদ), আদা বাটা ১ টে চামচ, রসুন বাটা ১ টে চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ কাপ, সয়াসস ২ টে চামচ, গোল মরিচের গুঁড়া ১ চা চামচ, টেস্টিং সল্ট ১ চা চামচ, তেল ১ কাপ, লবণ স্বাদ মত, চিনি ২ টে চামচ ।

প্রস্তুত প্রণালীঃ
কড়াইতে আধা কাপ তেল দিয়ে আধা কাপ পেঁয়াজ কুচি ভেজে বাদামি হলে সব বাটা মসলা এবং মাংস দিয়ে কষাতে হবে। এবার সব সবজি, লবণ, চিনি, সয়াসস, গোল মরিচের গুঁড়া ও টে সল্ট দিয়ে ১ কাপ পানি দিয়ে রান্না করতে হবে। তেল উপড়ে উঠে এলে চুলা থেকে নামাতে হবে। এবার পোলাও রান্নার জন্য হাড়িতে আধা কাপ তেল দিয়ে পেঁয়াজ কুচি ভেজে বাদামি হলে আগেই ধুয়ে রাখা চাল ভেজে নিয়ে তার মধ্যে পানি (পানি চালের দ্বিগুণ হবে ) এবং লবণ দিয়ে চুলা পুরো আঁচে থাকবে। চাল এবং পানি সমান হয়ে এলে রান্না করা মাংস দিয়ে চুলার আঁচ কমিয়ে দিয়ে কিছুক্ষণ রাখতে হবে। এবার ৫-৬টা কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে তাওয়ার উপর দমে দিতে হবে।

অর্থসূচক/টি এম/কে এম

এই বিভাগের আরো সংবাদ