খাগড়াছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

খাগড়াছড়িতে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে

পাহাড় ধসের আশংকায় খাগড়াছড়িতে ঝুকিঁপূর্ন স্থানে বসবাসকারীদের আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নিতে শুরু করেছে জেলা প্রশাসন।

জানা গেছে,পাহাড় ধসে প্রাণহানির আশংকায় আজ শুক্রবার সকাল থেকে স্থানীয় প্রশাসন ঝুঁকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারীদের আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়ার উদ্যোগ গ্রহণ করে।

ইতোমধ্যে খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসক মো. রাশেদুল ইসলাম ও পৌর মেয়র মো. রফিকুল আলম ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলো পরিদর্শন করেছেন ।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, খাগড়াছড়িতে পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাস করছে প্রায় সহস্রাধিক পরিবার। বৃহস্পতিবার রাত থেকে ফের টানা বর্ষনে জেলা সদরের বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক পাহাড় ধসের আশংকা দেখা দিয়েছে।

শুক্রবার সকাল থেকে খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলিশ শারমিনের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ফায়ার সার্ভিস ও পুলিশ জেলা শহরের কলাবাগান,নেন্সিবাজার,শালবন,হরিনাথ পাড়া গ্যাপ,আঠার পরিবার এলাকায় পাহাড়ে ঝুকিপূর্ণ স্থানে বসবাসকারী লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নিতে শুরু করে।

খাগড়াছড়ি সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলিশ শারমিন জানান, বর্ষন শুরু হওয়ায় বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধস দেখা দিয়েছে। যাতে জানমালে ক্ষতি না হয় তার জন্যে লোকজনকে আশ্রয় কেন্দ্রে সরিয়ে নেওয়া হচ্ছে।

তিনি জানান,শালবনের জেলা প্রশাসনের একটি ডরমেটরিকে আশ্রয় কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। সেখানে আশ্রিতদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে।

এ ছাড়া জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাদেরকে দুপুরের খাবার সহজন প্রতিজনকে ৫০০ টাকা করে আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে ।

খাগড়াছড়ি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তারেক মো. আব্দুল হান্নান জানান, বর্ষন শুরু হওয়ায় বিভিন্ন স্থানে পাহাড় ধস দেখা দিয়েছে। দুপুর পর্যন্ত অন্তত ৩০টি পরিবারকে আশ্রয় কেন্দ্রে নেওয়া হয়েছে।

এদিকে বর্তমানে জেলার ৯ উপজেলায় প্রায় ১ লক্ষাধিক পরিবার পাহাড় ধসের ঝুঁকিতে বসবাস করছেন। এ নিয়ে গত ১০ বছরে জেলায় প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে প্রায় ৫০ জনের মতো ।

এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ