তামিমকে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে খেলার প্রস্তাব
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

তামিমকে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে খেলার প্রস্তাব

২০১৫ সাল থেকে নতুন এক তামিম ইকবালকে দেখছে ক্রিকেট বিশ্ব। দ্রুত কিছু রান তুলে দিয়ে সাজঘরে ফেরা মারকুটে তামিমকে এখন আর দেখা যায় না। বরং ক্রিজে সময় দিয়ে দলের পুঁজি বড় করার দায়িত্ব নেন তিনি। আবার শেষ দিকে বলের সঙ্গে ব্যবধানটাও কমিয়ে দিয়ে যান এই বামহাতি ব্যাটসম্যান।

২০১৫ ও ২০১৬ সালে দুর্দান্ত দুইটি বছর কাটিয়েছেন বাংলাদেশের এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। ২০১৭ সালেও এখন পর্যন্ত দারুণ ছন্দে আছেন তিনি। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ৪ ইনিংসের ব্যাট হাতে নিয়েছেন ২৯৩ রান; গড় ৭৩.২৫।

Tamim Iqbal

তামিম ইকবালের একটি শট।

টানা আড়াই বছর ধরে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের ফল হিসেবে আকর্ষণী এক প্রস্তাব পেয়েছেন তামিম। ইংল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি লিগ ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়েন্টি ব্লাস্টে খেলতে তাকে প্রস্তাব দিয়েছে এসেক্স কাউন্টি ক্রিকেট ক্লাব; ক্লাবটির টি-টোয়েন্টি দলের নাম এসেক্স ঈগলস।

জানা গেছে, চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির প্রথম দুই ম্যাচে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সেঞ্চুরি ও ৯৫ রানের ইনিংসের পরই তামিমকে প্রাথমিকভাবে আগ্রহের কথা জানায় এসেক্স। ইতোমধ্যে আনুষ্ঠানিক চুক্তিপত্রও পাঠিয়েছে ওই কাউন্টি ক্লাব।

তবে প্রায় দুই মাস দেশের বাইরে থাকা তামিম প্রস্তাবটি গ্রহণ করবেন কি না- তা এখনও জানা যায়নি। ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়ন্টি ব্লাস্ট শুরু হবে আগামী ৭ জুলাই। চুক্তিপত্রে সই করলে আগামী মাসের শুরুতেই ইংল্যান্ডে যেতে হবে তামিমকে। ওই সময়ে জাতীয় দলের সূচিতে কোনো খেলা নেই।

তবে ন্যাটওয়েস্ট টি-টোয়ন্টি ব্লাস্ট এসেক্সের হয়ে খেলে দেশে ফেরার পরই অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজ খেলতে হবে তামিমকে। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজ। তাই টানা দুই সিরিজের আগে একটু বিশ্রামের চিন্তা করলে এই চুক্তিতে সই নাও করতে পারেন বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনার।

আর চুক্তি করলে অ্যালেস্টার কুক, রবি বোপারা, আসহার জাইদি, জেমস ফস্টারদের সতীর্থ হয়ে রায়ান টেন ডেসকাটের নেতৃত্বে খেলবেন তামিম। ২০১১ সালে ইংল্যান্ডের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে খেলেছিলেন তিনি। নটিং হ্যামশায়ারের হয়ে ওই সময় ৫টি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান।

২০১৫ সালের বিশ্বকাপের পর ৮ ওডিআইতে তামিমের ব্যাট থেকে বাংলাদেশের স্কোরবোর্ডে যোগ হয়েছিল ৪৫৩ রান। ওই ৮ ম্যাচের মধ্যে ২টি শতক করেছেন এই ড্যাশিং ওপেনার।

২০১৬ সালে মোট ৯টি ওডিআই ম্যাচ খেলেছিলেন তামিম ইকবাল। এই সময়ে ১টি শতকসহ মোট ৪০৭ রান এসেছে তার ব্যাট থেকে; গড় ৪৫.২২। ২০১৬ সালে একটি শতক এবং দুইটি অর্ধশত রানের ইনিংস খেলেছেন তামিম। দুই বছরে ব্যাটিংয়ে উন্নতির পুরস্কার হিসেবে চলতি বছরের শুরুতে জাতীয় বর্ষসেরা ক্রিকেটারের সনদ পেয়েছেন তিনি। ওই পুরস্কার যেন তাকে আরও ক্ষুধার্থ করে তুললো।

চলতি ২০১৭ সালের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত ১১টি ওডিআই ম্যাচ খেলেছেন বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। এর মধ্যে ২টি শতক এবং ৪টি অর্ধশতকসহ মোট ৬২৩ রান করেছেন তিনি; গড় ৬৯.২২। স্ট্রাইক রেট ৮২.৮৪।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ