হয়েও হলো না
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

হয়েও হলো না

প্রথম ওভারে উইকেট হারানোর মতো হোঁচট খেয়েও দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল বাংলাদেশ। পরের ২৭ ওভার পর্যন্ত ছিল অনেকটা স্বপ্নের মতো। এই সময়ের মধ্যে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ১৫২ রান সংগ্রহ করেছিল চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনালে খেলতে নামা বাংলাদেশ। কিন্তু এই ধারা শেষ পর্যন্ত ধরে রাখতে পারেনি তারা। মাত্র ২৬৪ রানেই থেমে যায় এই অভিযাত্রা।

ভারতের মতো শক্তিশালী ব্যাটিং লাইনআপের বিরুদ্ধে এই স্বল্প পুঁজি নিয়ে লড়াই করতে হলে যেভাবে জ্বলে উঠার দরকার ছিল সেটি করতেও ব্যর্থ হয়েছে বোলাররা। তাতে ৯ উইকেটের বিশাল পরাজয়ে শেষ হয়ে গেছে বাংলাদেশের স্বপ্নযাত্রা। ৯ ওভার ৫ বল হাতে রেখেই জিতে যায় ভারত। নিশ্চিত হয় দুই চির প্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তান-ভারতের ফাইনাল। আগামী ১৮ জুন চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ফাইনালে তারা পরস্পর মুখোমুখী হবে।

আজ বার্মিংহামের এজবাস্টনে বৃহস্পতিবার চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির দ্বিতীয় সেমিফাইনালে টস জিতে মাশরাফিবাহিনীকে প্রথমে ব্যাটিংয়ে আমন্ত্রণ জানান ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি।

ইনিংসের প্রথম ওভারের শেষ বলে কোনো রান করার আগেই ভুবনেশ্বর কুমারের শিকারে পরিণত হন হয়েছেন সৌম্য সরকার। ৬.৫ ওভারে সাব্বির রহমানকেও (১৯) আউট করেন ভুবনেশ্বর কুমার।

২৮তম ওভারে সাজঘরে ফেরেন তামিম ইকবাল (৭০)। এর আগে তৃতীয় উইকেটে মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ১২৩ রানের জুটি গড়েন তিনি। এর আগে ১৯তম ওভারে ৬২ বল খেলে ব্যক্তিগত অর্ধশত রান পূর্ণ করেন তামিম।

ইনিংসের ৩৪.২ ওভারে সাজঘরে ফেরেন সাকিব আল হাসান (১৫)। ৩৫.২ ওভার আউট হন মুশফিকুর রহিম (৬১)। এর আগে ২৬.২ ওভারে ৬১ বলে ব্যক্তিগত অর্ধশত রান করেন তিনি। ৪২.৩ ওভারে সাজঘরে ফেরেন মোসাদ্দেক হোসেন (১৫)। ৪৫তম ওভারের শেষ বলে বোল্ড হন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ (২১)। এরপর শুরু হয় মাশরাফি ঝড়। তিনি অপরাজিত থেকে করেন ৩০।

দ্বিতীয়ার্ধে ব্যাটিং এ নেমে ভারতও দুর্দান্তভাবে শুরু করে। শেষ পর্যন্ত বজায় থাকে আগ্রাসি ব্যাটিং। দিনের সেরা ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মার ১২৩ রান আর বিরাট কোহলির ৯৬ রানে ভর করে সহজেই জিতে নেয় ম্যাচ।

 

এই বিভাগের আরো সংবাদ