‘রডে অতিরিক্ত ভ্যাট বিদেশি বিনিয়োগে প্রভাব ফেলবে’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » জাতীয়

‘রডে অতিরিক্ত ভ্যাট বিদেশি বিনিয়োগে প্রভাব ফেলবে’

১৫ শতাংশ ভ্যাট কার্যকর হলে রডের দাম প্রতি টনে ৭৮০০ টাকা বাড়বে বলে আশঙ্কা করেছে ইস্পাত খাতের ব্যবসায়ীদের তিনটি সংগঠন। এই দামের সঙ্গে গ্যাস-বিদ্যুতেরও বাড়তি খরচ যোগ করলে সাকুল্যে প্রতি টন রডের দাম ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত বাড়তে পারে বলে ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা। তেমন হলে এর প্রভাব বিদেশি বিনিয়োগেও প্রভাব পড়তে পারে বলেও আশঙ্কা করেন তারা।

আজ বুধবার ঢাকা চেম্বার মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অটো রি-রোলিং অ্যান্ড স্টিল মিলস অ্যাসোসিয়েশন, স্টিল মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন এবং রি-রোলিং মিলস অ্যাসোসিয়েশনের নেতারা এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেন।

তারা আশঙ্কা প্রকাশ করেন, ভ্যাট আরোপের কারণে রডের ব্যবহার ব্যাপক হারে কমবে। গ্রাম-বাংলার উন্নয়ন থমকে যাবে। সরকারের প্রকল্প ব্যয় বাড়বে। শহরাঞ্চলে ফ্ল্যাটের দাম বেড়ে যাবে। এমনকি মূল্যস্ফীতি দেখা দিতে পারে।

সংবাদসম্মেলনে মূল বক্তব্য দেন অটো রি-রোলিং অ্যান্ড স্টিল মিলস অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মানোয়ার হোসেন।

মানোয়ার হোসেন বলেন, আমাদের দেশের চেয়ে ভারতে যদি ১০ হাজার টাকা কমে রড কিনতে পাওয়া যায় তবে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের কাছে ভুল বার্তা যাবে।

তিনি বলেন, ইস্পাত খাতে যে ভ্যাট আরোপ করা হয়েছে, সেটি ভেবে করা হয়নি। সব রোগের চিকিৎসা যেমন প্যারাসিটামল দিয়ে হয় না, তেমনি রডের ওপরেও ভ্যাট বসালে হবে না। ইস্পাত হচ্ছে যেকোনো দেশের মূল শিল্প খাত। এ খাতে আমরা এখনো বাচ্চা। এই সময়ে খাতটিকে ধাক্কা দেবেন না।

রডের ওপর ভ্যাট আরোপ নিয়ে এনবিআরসহ সরকারের মধ্যেও আলাপ-আলোচনা চলছে জানিয়েছে তিনি আশা প্রকাশ করেন ভ্যাট কমানো হতে পারে।

তিনি অভিযোগ করেন, এখনই তারা ঠিকমতো গ্যাস-বিদ্যুৎ পাচ্ছেন না। কিন্তু ঠিকই বাড়তি দাম দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, সবকিছুর একটা সীমা (লিমিট) আছে। এভাবে যদি দাম বাড়িয়ে যেতে থাকেন তাহলে কোনো না কোনো সময় জনগণ প্রতিক্রিয়া দেখাবে। আমরা সরকারকে উপদেশ দেওয়ার ক্ষমতা রাখি না। তবে আমাদের কথাও শুনতে হবে।

মানোয়ার হোসেন বলেন, একটি স্থাপনার কাঠামো দাঁড় করাতে কেবল রডের পেছনে ৪০-৪৫ শতাংশ অর্থ খরচ হয়। তাই ভ্যাটের কারণে রডের দাম বাড়লে প্রকল্পের ব্যয় সাড়ে পাঁচ থেকে ছয় শতাংশ বাড়বে।

সংবাদ সম্মেলনে রি-রোলিং মিলস অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী, স্টিল মিল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শেখ ফজলুর রহমান, অটো রি-রোলিং অ্যান্ড স্টিল মিলসের সাবেক চেয়ারম্যান শেখ মাসাদুল আলমসহ আরো অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ