ইস, যদি ২ মিনিট আগে আসতাম ...
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

ইস, যদি ২ মিনিট আগে আসতাম …

বুধবার ভোর ৬টা। চট্টগ্রাম স্টেশনে এসেছেন মুহাম্মদ আলতাফ হোসেন ও তার ছেলে। লাইনে দাঁড়িয়েছেন তারা। সবাইকে নিয়ে ঈদ করতে যাবেন গ্রামের বাড়ি ময়মনসিংহ। নিবেন ৭টি টিকেট। কিন্তু সে আশা পূরণ হলো না। লাইনের সামনে গিয়ে জানতে পারলেন বিজয় এক্সপ্রেসের আর ৫টি টিকিট আছে। উপায় না পেয়ে বাপ-বেটা মিলে তা-ই নিয়ে ফেললেন। আর আক্ষেপের সুরে বলতে লাগলেন, ইস যদি ২ মিনিট আগে আসতাম। তাহলে সবাই একসঙ্গে বাড়ি যেতে পারতাম।

ছবি সংগৃহীত

অর্থসূচককে এ আক্ষেপের কথা মুহাম্মদ আলতাফ হোসেন নিজেই জানিয়েছেন। তিনি চট্টগ্রামের প্রতিবেদককে বলেন, ভেবেছিলাম একসঙ্গে বাড়ি যাবো। কিন্তু তা আর হলো না। বাড়ির মেয়ে সদস্যদেরই আগে পাঠিয়ে দিতে হবে। কাল আবার আসব, বাকি ২ জনের টিকিট করতে।

তিনি কালোবাজারেও হাতড়াচ্ছেন টিকেট। বললেন, দেখি কোনোভাবে বেশি দাম দিয়ে হলেও ২৩ তারিখের ট্রেনের টিকিট পাওয়া যায় কি-না! দালাল ধরে চেষ্টা করতে দোষ কি?

লাইনে আলতাফ হোসেনের পিছনে থাকা প্রীতম শীল বলেন, আমিও ঈদের ছুটিতে ময়মনসিংহ যাবার জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছিলাম। একদম সামনে চলে আসার পর শুনলাম টিকিট শেষ। এত কষ্টের পর টিকিট পেলে খুব ভালো লাগতো। আরেকটু আগে আসলেই হয়তো হতো। কপাল খারাপ। কাল রাতেই আসতে হবে।

সরেজমিনে দেখা যায়, বুধবার ময়মনসিংহ যাওয়ার অগ্রিম টিকিট বিক্রির প্রায় আড়াই ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে যায়। অনেকেই আক্ষেপ করে বলেন সেহেরির পরপরই আসতে চেয়েছিলাম। রাতে রাস্তায় গাড়ি না পেয়ে দেরি হয়ে গেছে। আজ তো দেখে গেলাম কাল সেহেরির আগেই আসতে হবে; উপায় নেই।

বাড়ি তো আমাদের যেতেই হবে সে- যত কষ্টই হোক। ট্রেন ময়মনসিংহ সরাসরি যাওয়াতে রাস্তায় অন্তত যানজটের সমস্যা নেই বলে জানান তারা।

দুপুর ১২টার দিকে স্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, অগ্রিম ট্রেনের জন্য মানুষের উৎসুক ভিড়। সকালে ময়মনসিংহের বিজয়ের টিকিটের সাথে ঢাকাগামী সোনার বাংলা, সুবর্ণ কিংবা তূর্ণার টিকিটেরও চাহিদা ছিল বেশি।

সিলেটগামী ট্রেনের চাহিদা কম থাকলেও অগ্রিম টিকিট বিক্রি সময় শেষ হওয়ার আগেই শেষ হয়ে যাবে বলে জানান স্টেশন সংশ্লিষ্টরা।

কম্পিউটার অপারেটর রুমের ফিল্ড অফিসার দিপেন মজুমদার জানান, ময়মনসিংহ ও ঢাকার টিকিট বিক্রি বেশি হয়েছে। ময়মনসিংহগামী বিজয়ের টিকিট বিক্রি শেষ। তাছাড়া ঢাকাগামী ট্রেনগুলোর প্রায় ৬০ শতাংশ টিকিট বিক্রি শেষ। সিলেট, চাঁদপুর কিংবা অন্য রুটের টিকিট আছে।

তবে অনেকেই অভিযোগ করেন এসির টিকিট এত দ্রুত শেষ হবার কথা নয়। কিন্তু পাওয়া যায়নি। হয়তো ভেতর থেকে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে?

এই অভিযোগ অস্বীকার করে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের বিভাগীয় বাণিজ্যিক কর্মকর্তা মো. মিজানুর রহমান জানান, কোন কালোবাজারি হচ্ছে না। আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী এবং মনিটারিং টিম সবসময় কালোবাজারি রোধে কাজ করছে। সবারই চাহিদা থাকে এসির টিকেট। সেজন্য হয়তো এসি কিংবা কেবিন আগেই বিক্রি হয়ে গেছে। তবে চেয়ারের টিকিট তো এখনো আছে।

তিনি জানান, গত দুই দিনের থেকে আজকের টিকেটের চাহিদা অনেক বেশি। সেহেরির পর থেকে টিকেট নেওয়ার জন্য যাত্রীরা লাইনে দাঁড়িয়েছেন। সকাল ৮টায় টিকেট বিক্রি শুরুর ২ ঘণ্টার মধ্যেই বিজয় এক্সপ্রেস ট্রেনের সব টিকেট শেষ হয়ে যায়। ঢাকার টিকিটের বিক্রি বেশ। একজন সর্বোচ্চ চারটি টিকিট কিনতে পারবেন।

মিজানুর রহমান বলেন, আমাদের নিরাপত্তা বাহিনী জানিয়েছেন যারা লাইনে দাঁড়িয়েছেন তারা প্রায় সবাই ৪টি করেই টিকিট কিনছেন। তবে যাত্রী ছদ্মবেশে থাকলে তাকে ধরা মুশকিল।

ঈদের ছুটি ২৩ জুন থেকে হতে পারে এজন্য এদিনের টিকেটের চাহিদা অনেক বেশি। কাল ভিড় আরও বাড়বে। সবমিলিয়ে প্রায় চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে ১০টি নিয়মিতসহ স্পেশাল মিলিয়ে প্রায় ৮ হাজার যাত্রী পরিবহন করা সম্ভব হবে।

রেলওয়ে পরিবহন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন সুবর্ণ এক্সপ্রেস সকাল ৭টায়, চট্টলা এক্সপ্রেস সকাল সোয়া ৮টায়, মহানগর এক্সপ্রেস বেলা সাড়ে ১২টায়, মহানগর গোধূলী বিকেল ৩টায়, সোনার বাংলা বিকেল ৫টায় এবং তূর্ণা এক্সপ্রেস রাত ১১টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে।

এদিকে পাহাড়িকা সকাল সোয়া ৯টায়, উদয়ন এক্সপ্রেস রাত ৯টা ৪৫ মিনিটে সিলেটের উদ্দেশ্যে, মেঘনা এক্সপ্রেস বিকেল সোয়া ৫টায় চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে এবং বিজয় এক্সপ্রেস সকাল ৭টা ২০ মিনিটে ময়মনসিংহের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম ছেড়ে যাবে।

কর্ণফুলী এক্সপ্রেস সকাল ১০টায় ও ঢাকা মেইল এক্সপ্রেস রাত সাড়ে ১০টায় ঢাকার উদ্দেশ্যে, সাগরিকা এক্সপ্রেস সকাল সাড়ে ৭টায় চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে, ময়মনসিংহ এক্সপ্রেস বিকেল সাড়ে ৩টায় বাহাদুরাবাদের উদ্দেশ্যে ও জালালাবাদ এক্সপ্রেস রাত সাড়ে ৯টায় সিলেটের উদ্দেশ্যে চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে।

এছাড়া ঈদের আগে ২৩ জুন থেকে চট্টগ্রাম-চাঁদপুর রুটে দুই জোড়া স্পেশাল ট্রেন চলাচল করবে। চাঁদপুর স্পেশাল-১ ট্রেনটি সকাল সাড়ে ১১টায় এবং চাঁদপুর স্পেশাল-২ বিকেল সাড়ে ৩টায় চট্টগ্রাম স্টেশন ছেড়ে যাবে।

অগ্রিম টিকেট বিক্রি কার্যক্রমে ১৫ জুন দেওয়া হবে ২৪ জুনের ও ১৬ জুন দেওয়া হবে ২৫ জুনের টিকেট। আর ১৯ জুন ২৮ জুনের, ২০ জুন ২৯ জুনের, ২১ জুন ৩০ জুনের, ২২ জুন ১ জুলাই ও ২৩ জুন ২ জুলাইয়ের ফিরতি টিকেট দেওয়া হবে।

এস

এই বিভাগের আরো সংবাদ