পাহাড়ে মৃত্যুর মিছিল, আরও ধসের আশঙ্কা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পাহাড়ে মৃত্যুর মিছিল, আরও ধসের আশঙ্কা

সোমবার রাত থেকে পাহাড়ে যেনো মৃত্যুর মিছিল শুরু হয়েছে। আজ মঙ্গলবার শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত চট্টগ্রাম, রাঙামাটি ও বান্দরবানে পাহাড় ধসে নিহতের সংখ্যা ১০০ ছুঁইছুঁই। এখনও নিখোঁজ আছেন অনেকে। মূলত ভারী বর্ষণের কারণেই ওইসব এলাকায় পাহাড় ধসের এই ঘটনা ঘটেছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে আজ মঙ্গলবার বিকেল ৫টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওইসব এলাকায় আরও পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটতে পারে।

আজ সন্ধ্যায় প্রকাশিত আবহাওয়ার সতর্কতা বার্তায় বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে আজ মঙ্গলবার বিকেল ৫টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় চট্টগ্রাম বিভাগের কোথাও কোথাও ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণ হতে পারে।

ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুছ স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মঙ্গলবার একথা জানানো হয়েছে।

উল্লেখ, গতকাল সোমবার রাতে তিন জেলায় পাহাড় ধসে বিধ্বস্ত হয়েছে অসংখ্য বাড়িঘর, রাস্তাঘাট। বিবিসিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে মাটিতে চাপা পড়ে সেনা সদস্যসহ প্রায় ১০০ জন নিহত হওয়ার খবর প্রকাশ করলেও সরকারি সংবাদ সংস্থা বাসস বলছে পার্বত্য জেলা রাঙামাটি, বান্দরবান ও চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে ৮০ জন নিহত হয়েছে।

এর মধ্যে রাঙামাটিতে সেনা কর্মকর্তাসহ ৪৭ জন, বান্দরবানে ৬ জন এবং চট্টগ্রামে ২৭ জন মারা গেছে।

মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ এখনও মাটির নিচে অনেকের লাশ চাপা পড়ে আছে।

এদিকে চট্টগ্রাম, রাঙামাটি ও বান্দরবানে ভারী বর্ষণ ও পাহাড় ধসে নিহত প্রত্যেকের পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা এবং আহতদের প্রত্যেককে নগদ ১০ হাজার টাকা করে বিতরণ করা হবে। এছাড়া নিহতদের পরিবার ও আহতদের প্রত্যেককে ৩০ কেজি করে চাল দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

আজ দুপুরে মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, ভারী বর্ষণ ও পাহাড় ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য ১৮টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এতে এখন পর্যন্ত সাড়ে ৪ হাজার মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। ক্ষতিগ্রস্ত এলাকার বাসিন্দাদের জন্য নগদ ১২ লাখ টাকা এবং ৫০০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বর্তমানে দেশে খাদ্যের কোনো অভাব নেই। জরুরি প্রয়োজনে যখন যেখানে যা প্রয়োজন তাই বরাদ্দ দেওয়া হবে। চট্টগ্রামে পাহাড় ধসের পরবর্তী ব্যবস্থাপনার বিষয়ে সার্বক্ষণিক খোঁজ-খবর নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আগামীকাল বুধবার সরকারের উচ্চ পর্যায়ের একটি টিম রাঙামাটির ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শনে যাবে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী। তিনি নিজেই সে প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ