যে সাইকেলে প্রথম ১৪ কিলোমিটার পাড়ি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

যে সাইকেলে প্রথম ১৪ কিলোমিটার পাড়ি

বাই-সাইকেল থেকে সাইকেল। বাংলায় যার নাম রাখা হয়েছে দ্বি-চক্রযান। যান্ত্রিক তবে পরিবেশ বান্ধব এই যানটি সকলের কাছে পরিচিত হলেও এর উৎপত্তি ও বিকাশ সম্পর্কে অনেকেই জানি না। তবে ইতিহাস বলে সাইকেলের সর্বোচ্চ বিকাশ সাধন হয়েছিল চীনে।

কিন্তু ২০০ বছর আগে, ১৮১৭ সালের ১২ জুন; এক পাগলামি করেছিলেন তৎকালীন জার্মানির দক্ষিণাংশের ম্যানহেইম শহরের তরুণ ব্যারন কার্ল ভন ড্যারিস। ৩২ বছর বয়সী এই তরুণ সর্বপ্রথম কাঠের সাইকেল নিয়ে জনসম্মুখে বেরিয়ে আসেন এবং এক ঘণ্টায় ১৪ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বেশ আলোচনার জন্ম দেন। সে হিসেবে সাইকেলে চড়ে দীর্ঘপথ পাড়ি দেওয়া ও জনমনে কৌতূহল তৈরি করার আগামী কাল ২০০ বছর পূর্তি হচ্ছে বলে আইরিশ টাইমস অবলম্বনে জানা গেছে।

এইরকম সাইকেলে চড়েই ব্যারন কার্ল ভন ড্যারিস ১৪ কিলোমিটার পাড়ি দেন।

তার কাঠের সাইকেলটি নিয়ে আলোচনার প্রধান কারণ ছিল এতে বিশেষভাবে হাতকে বিশ্রাম দেওয়ার একটা ব্যবস্থা ছিল। তাছাড়া বসার জন্য জায়গাটাও তুলনামূলক বড় ছিল। এর নাম রাখা হয়েছিল ‘ডান্ডি হর্স’।

এর বছর চল্লিশ পরে পিয়েরে মিখাউক্স নামের এক উদ্ভাবক স্ব-উদ্ভাবিত একটি সাইকেল প্যারিস ওয়ার্ল্ড ফেয়ারে প্রদর্শন করেন। সেখানে দেখানো সাইকেলে কয়েকটা নতুন বৈশিষ্ট্য ছিল। সামনের চাকা বেশ বড় ও তাতে প্যাডেল দেওয়ার মতো ব্যবস্থা করেন তিনি। এর পূর্বেকার সাইকেলগুলোতে তা ছিল না।

তবে ড্যারিসের কাঠের সাইকেলের খ্যাপাটে কার্যকলাপ যে পরবর্তীতে বিভিন্ন বিজ্ঞানী ও উদ্ভাবককে বেশ প্রেরণা জুগিয়েছে তা বলা বাহুল্য। ব্রিটিশ পেনি ফারনাথিংস, ডাচ গ্যাজেলস, চীনের ফ্লাইং পিজিয়ন প্রতিষ্ঠানগুলো সাইকেল শিল্প বিকাশে বেশ বড়সড় ভূমিকা রেখেছিল।

অর্থসূচক/কে এম

এই বিভাগের আরো সংবাদ