ভৈরবে সালিশ দরবারে সাংবাদিকের ওপর হামলা
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » ঢাকা

ভৈরবে সালিশ দরবারে সাংবাদিকের ওপর হামলা

কিশোরগঞ্জের ভৈরবে জমি সংক্রান্ত এক সালিশ দরবারে একপক্ষের হয়ে কথা বলায় অপরপক্ষের লোকজনের আক্রমণের শিকার হয়েছেন স্থানীয় এক সাংবাদিক। এ সময় ওই সাংবাদিকের বড় ভাইও আক্রমণের শিকার হন।

দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে গুরুতর আহত ওই সাংবাদিক ও তার বড়ভাইকে পরে স্বজনরা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর উন্নত চিকিৎসার জন্য তাদেরকে ঢাকায় পাঠানো হয়।

এদিকে এ ঘটনায় আহতদের বাবা বাদী হয়ে ভৈরব থানায় একটি মামলা করেন। পরে পুলিশ ওই মামলার প্রধান আসামি বরজু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে জেল-হাজতে পাঠানো হয়। অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারে পুলিশ তৎপর রয়েছে বলেও জানান ভৈরব থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. মোখলেছুর রহমান।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, ভৈরব উপজেলার কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের মিরারচর গ্রামের মৃত আব্দুল কাদিরের সন্তানদের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিলো। গত ৮ জুন বৃহস্পতিবার এ নিয়ে বাড়িতে এক শালিস দরবার বসে। দরবারে আব্দুল কাদিরের বড় ছেলে আব্দুর সাত্তারের পক্ষে আসা দরবারী এলাকার মৃত চাঁন মিয়ার ছেলে বরজু মিয়া (৫০) অন্যায়ভাবে অপর ভাইদের ওপর রায় চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করলে দৈনিক আমাদের কণ্ঠের ভৈরব প্রতিনিধি আশরাফুল আলমের বড় ভাই মজিবুর রহমান এর প্রতিবাদ করেন। এ সময় বরজু ও তার সমর্থকরা মজিবুরের ওপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আক্রমণ চারায়। এ সময় আশরাফুল ভাইকে বাঁচাতে গেলে তিনিও আক্রমণের শিকার হয়ে গুরুতর আহত হন।

এ ঘটনায় আহত সাংবাদিকের পিতা সাইদুর রহমান বাদী হয়ে ওইদিনই একটি মামলা করেন। বরজু মিয়াকে প্রধান আসামী করে অপর ১১জনের বিরুদ্ধে মামলাটি করেন সাইদুর রহমান। ওই মামলার প্রেক্ষিতে গতকাল শুক্রবার রাতে বরজু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে আজ শনিবার তাকে কিশোরগঞ্জ জেল-হাজতে পাঠায় পুলিশ।

এদিকে সাংবাদিক আশরাফুল আলমের ওপর  হামলার নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন ভৈরবে কর্মরত বিভিন্ন স্থানীয় ও জাতীয় গণমাধ্যম কর্মীরা। তারা অবিলম্বে আশরাফুল আলমের ওপর হামলাকারী সব অপরাধীকে গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি দাঁড় করাতে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

মোস্তাফিজ/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ