প্রথমবারের মতো সমকামী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

প্রথমবারের মতো সমকামী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড

নিজেদের রাজনৈতিক ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একজন সমকামী প্রধানমন্ত্রী পেতে যাচ্ছে আয়ারল্যান্ড। ৩৮ বছর বয়সী লিও ভারাদকার দেশটির সর্বকনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রীর রেকর্ডটিও নিজের করে নিচ্ছেন।

বিবিসি বলছে, শুক্রবার ফিনে গোয়েল পার্টির নেতা নির্বাচিত হয়েছেন লিও। দলীয় নির্বাচনে তিনি আবাসন মন্ত্রী সিমন কোভেনেকে হারিয়েছেন। মধ্য ডানপন্থী এ দলের নেতা কর্মীদের প্রায় ৬০ শতাংশের ভোট লিওর বাক্সে পড়েছে। 

আগামী ১৩ জুন দেশটির পার্লামেন্টের অধিবেশন বসবে। ওইদিনই নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করা হবে। তবে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়ার আগে লিও কে জোটের অন্যান্য শরিক দল ও স্বতন্ত্র সদস্যদের সমর্থন পেতে হবে। সমর্থন পেলে এই মাসের শেষ দিকে লিও আনুষ্ঠানিকভাবে আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেবেন।

লিও দলের সাবেক প্রধান এন্ডা কেনির স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন। ১৫ বছর দায়িত্ব পালনের পর চলতি বছরের মে-তে কেনি দলীয় প্রধানের পদ থেকে ইস্তফা দেন। পাশাপাশি আয়ারল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকেও সরে দাঁড়ান তিনি। ২০১১ সালে আয়ারল্যান্ডের তিসাহ বা প্রধানমন্ত্রী হন কেনি। তার বিদায়ের পর দলের নতুন প্রধান ঠিক করতে চলতি সপ্তাহে দেশজুড়ে ভোট করে ফিনে গোয়েল পার্টি।

ফিনে গোয়েলের নতুন এ প্রধানকে চিঠি দিয়ে অভিনন্দন জানিয়েছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী টেরিজা মে।  টেলিফোনে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন নর্দার্ন আয়ারল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার আর্লেন ফস্টার।

২০১৫ সালে আয়ারল্যান্ডে সমকামী বিয়ে নিয়ে গণভোটের পর লিওর সমকামী জীবনের কথা প্রকাশিত হয়। তিনি বর্তমানে দেশটির সামাজিক সুরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

একসময় চিকিৎসক হিসেবে কাজ করা লিও আইরিশ নার্স ও ভারতীয় এক চিকিৎসকের সন্তান। যৌন জীবনের পাশাপাশি বিভিন্ন প্রগতিশীল ইস্যু ও শ্রমিক অধিকার বিষয়ে লিওর অবস্থান নিয়েও ব্যাপক সমালোচনা আছে।

আয়ারল্যান্ডকে একসময় ইউরোপের সবচেয়ে রক্ষণশীল সমাজের দেশ বিবেচনা করা হতো; ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত সেখানে সমকামীতা ছিল আইনত অবৈধ।

টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ