‘বেকারত্ব দূর না হলে প্রবৃদ্ধি কাজে আসবে না’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘বেকারত্ব দূর না হলে প্রবৃদ্ধি কাজে আসবে না’

৭ দশমিক ৪ শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য ধরে আগামী ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত। কিন্তু বেকারত্ব দূর না হলে প্রবৃদ্ধি কাজে আসবে না।

আজ শুক্রবার রাজধানীর গুলশানে লেকশোর হোটেলে বেসরকারি গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করা হয়। প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে সিপিডির পর্যালোচনা তুলে ধরতেই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে আগামী বাজেট নিয়ে সিপিডির পর্যালোচনা উপস্থাপন করেন সংস্থাটির বিশেষ ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য।

তিনি বলেন, প্রবৃদ্ধি লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সরকারি বিনিয়োগ বড় ভূমিকা পালন করতে হবে। এমনটি করা হলে বেসরকারি বিনিয়োগকারীরাও এগিয়ে আসবে। সবাই মিলে এই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে হবে।

CPD (1)

রাজধানীর হোটেল লেকশোরে বাজেট পর্যালোচনা জানাতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সিপিডির বিশেষ ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য। ছবি: মহুবার রহমান

দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, বাজেট কাঠামোতে বড় দুর্বলতা দৃশ্যমান। এই অবস্থা থাকলে বাজেট বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। তবে প্রস্তাবিত বাজেটের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্যের সঙ্গে আমরা একমত। কিন্তু এর আয় ও ব্যয়ের কাঠামোর মধ্যে দুর্বলতা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, অর্থনীতির সঙ্গে বাজেটের আকারও বাড়াতে হবে- এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বাজেটের আকার বাড়ানো জন্য যে সক্ষমতার প্রয়োজন- তাতে ঘাটতি আছে।

সিপিডির বিশেষ ফেলো বলেন, শুধু প্রসাশনিক কাঠামো দিয়ে বাজেটে বাস্তবায়ন সম্ভব নয়। বাজেট বাস্তবায়নে রাজনৈতিক সহায়তা দরকার। জনপ্রতিনিধিদের অংশগ্রহণ প্রয়োজন। কিন্তু আমরা তা দেখছি না।

দেবপ্রিয় বলেন, বাজেটে ঘাটতি মেটাতে ৭৬ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক ঋণের সহায়তা আমাদের আশ্চর্য করেছে। ২০১৬ সালে ২৭ হাজার কোটি টাকা বৈদেশিক ঋণ সহায়তা পেয়েছে বাংলাদেশ; যা দেশের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।

তিনি আরও বলেন, বৈদেশিক ঋণের যথাযথ ব্যবহার হচ্ছে না। তবু আগামী অর্থবছরের জন্য প্রায় ৩ গুণ বৈদেশিক ঋণ সহায়তার কথা বলা হয়েছে প্রস্তাবিত বাজেটে। ঘাটতি পূরণে বৈদেশিক উৎস থেকে অর্থায়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন নিয়েও সংশয় রয়েছে।

এ সময় সিপিডির সম্মানিত ফেলো মোস্তাফিজুর রহমান, নির্বাহী পরিচালক ফাহমিদা খাতুন, গবেষণা পরিচালক খন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেমসহ সংস্থাটির অন্য গবেষকরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/গিয়াস/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ