'গরুকে জাতীয় পশু করা উচিত'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘গরুকে জাতীয় পশু করা উচিত’

গরুকে জাতীয় পশু করার সুপারিশ করেছে ভারতের রাজস্থানের হাইকোর্ট। একইসঙ্গে গরু হত্যার শাস্তি ৩ বছরের বদলে যাবজ্জীবন করার প্রস্তাব করা হয়েছে। রাজস্থান হাইকোর্টে করা জনৈক ব্যক্তির মামলা পর্যবেক্ষণে বিচারপতি মহেশচন্দ্র শর্মা এ রায় দিয়েছেন।

সম্প্রতি গরু হত্যা ও বেচাকেনায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার। এ নিয়ে দেশজুড়ে শোরগোলের মধ্যে একে জাতীয় পশু করার সুপারিশ করা হলো।

ছবি সংগৃহীত

তবে পশ্চিমবঙ্গ ও কেরালার মতো রাজ্যগুলোর সরকার সরকারের এই নিষেধাজ্ঞা আইন বাস্তবায়ন করতে নারাজ। তারা বলছে, গরু জবাইয়ে তাদের নিজস্ব আইন করার অধিকার আছে।  তারা কেন্দ্রীয় সরকারের প্রতি আঙ্গুল তুলে বলছে, সরকার গরু জবাই ও কেনাবেচায় নিষেধাজ্ঞা এনে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার লঙ্ঘন করছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের নতুন আইনে বলা হচ্ছে, কৃষিকাজের প্রয়োজন ছাড়া অন্য কোনও উদ্দেশ্যে গরু, ষাঁড়, গাড়ি টানা বলদ, হাল টানা বলদ, মহিষ, বকনা বাছুর ও উট বিক্রি করা যাবে না।

সরকারি ওই নির্দেশনায় আরও বলা হয়, বাজারে গরু বা অন্য গবাদি পশু আনতে গেলে প্রয়োজনীয় আগাম অনুমতি নিতে হবে। যাতে কৃষি ও পশুপালন সংক্রান্ত উদ্দেশ্য উল্লেখ করলে তবেই ছাড় দেওয়া হবে। বিক্রেতা সঠিক পরিচয়পত্রে নিজেকে কৃষক প্রমাণ করতে পারলেই গরু বা মহিষ কিনতে পারবেন।

পাশাপাশি রাজ্যের সীমান্তের ২৫ কিলোমিটারের মধ্যে কোনো পশু বিক্রির বাজার থাকতে পারবে না বলেও নির্দেশিকায় জানানো হয়।

তবে সমালোচকরা বলছেন, এই নিষেধাজ্ঞায় কসাই ও গরু ব্যবসায়ীদের ওপর গোরক্ষকদের সচরাচর হামলা আরও বাড়বে।

বিজিপি শাসিত রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজি গতকাল জোর দিয়ে বলেন, গো-রক্ষকসহ যারা এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট সহিংসতায় জড়িত, তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে। তাদেরকে অবশ্যই শাস্তির আওতায় আসতে হবে।

গত এপ্রিলে দেখা যায়, গরু রক্ষার নামে ৫৫ বছর বয়সী এক ব্যবসায়ীকে হত্যা করা হয়। ওই ব্যবসায়ীর আরও ৪ সহযোগীকে আহত করা হয়।

শুধু রাজস্থান নয়, সারা ভারতজুড়ে এ ধরনের ঘটনা নিত্য দিনের।

তবে রাজি বলেন, সরকার এর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কোনো সহিংসতাকে প্রশ্রয় দেবে না। তিনি বলেন, ওই ব্যবসায়ী হত্যার ঘটনায় প্রশাসন জড়িতদের ধরার চেষ্টা করছে।

তথ্যসূত্র: এনডিটিভি

এই বিভাগের আরো সংবাদ