বিশ্বকাপের পর ওডিআইতে তামিমের ৪ শতক; গড় ৫৬.৬৬
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বিশ্বকাপের পর ওডিআইতে তামিমের ৪ শতক; গড় ৫৬.৬৬

২০১৫ সালে বিশ্বকাপের পর থেকে এখন পর্যন্ত ২৪টি একদিনের আন্তর্জাতিক (ওডিআই) ম্যাচ খেলে ১১৯০ রান করেছেন তামিম ইকবাল। এই সময়ের মধ্যে তার ব্যাটিং গড় ৫৬.৬৬। বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকায় তৃতীয় স্থানে আছেন বাংলাদেশের এই ড্যাশিং উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান।

Tamim Iqbal

শতকের পর বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইবকালের উচ্ছ্বাস।

ক্রিকেটের জনপ্রিয় ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইফোর এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে। বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে তামিম ইকবালের ব্যাটিং ধারাবাহিকতা নিয়ে এই প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে সাইটটি।

তুলনামূলক বিশ্লেষণের জন্য বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহকারীদের তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে এতে। ১৮৯৯ রান নিয়ে এই তালিকার শীর্ষে আছেন ডেভিড ওয়ার্নার। এই সময়ের মধ্যে ৩১টি একদিনের আন্তর্জাতিক (ওডিআই) ম্যাচ খেলেছেন অসি উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান; গড় ৬৫.৪৮।

আর ১৬৫০ রান নিয়ে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকার দ্বিতীয় স্থানে আছেন নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিল; গড় ৫৬.৮৯। ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে ৩৪টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। সেখানে সর্বোচ্চ রান সংগ্রহের তালিকায় বাংলাদেশের তামিম ইকবাল খেছেলেন মাত্র ২৪টি ম্যাচ। ১০ ম্যাচ কম খেললেও তামিমের ব্যাটিং গড় ৫৬.৬৬; যা মার্টিন গাপটিলের তুলনায় মাত্র শূন্য দশমিক ২৩ কম।

২০১৫ সালে বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে খেলা ম্যাচে তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে ১১৯০ রান। যা গাপটিলের ৩৪ ম্যাচে করা রানের তুলনায় ৪৬০ রান কম।

গত দুই বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের উত্থান সত্যিই আশ্চর্যজনক। এই সময়ের ২৪টি ম্যাচের মধ্যে ১৪টি জয়; একটি ড্র এবং ৯টিতে পরাজিত হয়েছে টিম টাইগার। এতে অসাধারণ ভূমিকা রেখেছেন তামিম ইকবাল। ওই ২৪টি ম্যাচের মধ্যে ২৩ ইনিংসে ব্যাট হাতে মাঠে নেমেছেন তিনি। এর মধ্যে ৪টি শতক করেছেন এই বামহাতি ব্যাটসম্যান। এখন পর্যন্ত ১৬৯ ম্যাচের ১৬৭ ইনিংসে ব্যাট হাতে ৮ শতকসহ ৫৪৫০ রান করেছেন তিনি। এর মধ্যে বিশ্বকাপ পরবর্তী ২৩ ইনিংসেই তামিমের ব্যাট থেকে এসেছে ৪টি শতক। বিশ্বকাপের পর খেলা ম্যাচগুলোতে ৪টি ওডিআই শতক এসেছে বাংলাদেশের অন্য ক্রিকেটারদের ব্যাট থেকে।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ