স্বর্ণ নীতিমালা চায় বাজুস
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

স্বর্ণ নীতিমালা চায় বাজুস

যুগোপযোগী স্বর্ণ নীতিমালা প্রণয়নের দাবি জানিয়েছে দেশের স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানায় সংগঠনটি।

gold

স্বর্ণের অলঙ্কার

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন বাজুসের সাবেক সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান আমিনুল ইসলাম শাহীন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা নানাভাবে হয়রানির শিকার। তাই এ শিল্পে একটি ব্যবসাবান্ধব নীতিমালা প্রয়োজন।

এসময় তিনি ভরিপ্রতি স্বর্ণের আমদানি শুল্ক ৩০০০ টাকা থেকে কমিয়ে ৫০০ টাকা করা, আমদানি স্বর্ণে আরোপিত অগ্রিম ট্রেড ভ্যাট (এটিভি) মওকুফ, ব্যাংকিং জটিলতা নিরসন করে এলসির মাধ্যমে স্বর্ণ আমদানি সহজ করা, গোল্ড এক্সচেঞ্জ বা গোল্ড ব্যাংক করাসহ মোট ১০ দফা দাবি তুলে ধরেন।

এছাড়া  হীরা ও হীরক খচিত অলংকারের আমদানি শুল্ক ৫ শতাংশ, সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ ও মূসক দেড় শতাংশ নির্ধারণ করার দাবি জানায় সংগঠনটি।

সংগঠনটির দাবিতে বলা হয়,  হীরা ও হীরক খচিত অলংকারের আমদানিতে ৪ শতাংশ এটিভি প্রত্যাহার করতে হবে।  উল্লেখ, বর্তমানে হীরা ও হীরক খচিত অলংকার আমদানিতে ১৫২ দশমমিক ৮২ শতাংশ ভ্যাট ও ট্যাক্স অরোপিত আছে।

আসন্ন ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাজেটে এইসব দাবি না মানলে বৃহত্তর কর্মসূচী দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন জুয়েলারি ব্যবসায়ীরা।

বনানীর ধর্ষণ ও আপন জুয়েলার্স সম্পর্কে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বাজুসের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা বলেন,  আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছি। আজকের সংবাদ সম্মেলনের সঙ্গে এ ঘটনার কোনো সম্পর্ক নেই।

তিনি অভিযোগ করেন, তাদের নানা ভাবে হয়রানি করা হচ্ছে। এভাবে ব্যবসা করা যায় না। অচিরেই একটি স্বর্ণ নীতিমালার প্রয়োজন বলে উল্লেখ করেন তিনি।

আজকের এই সংবাদসম্মেলন সভাপতি গঙ্গাচরণ মালাকারসহ বাজুসের অন্যন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থসূচক/মেহেদী/টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ