‘ব্লু ইকোনমিতে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতায় দেশের অর্থনৈতিক পরিসর বাড়বে’
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘ব্লু ইকোনমিতে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতায় দেশের অর্থনৈতিক পরিসর বাড়বে’

দেশের জলসীমার সদ্ব্যবহারে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতা কামনা করেছেন দ্য চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম। তিনি বলেন, ব্লু ইকোনমিতে অস্ট্রেলিয়ার সহযোগিতা পেলে দেশের অর্থনৈতিক পরিসর আরও বড় হবে। আর অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

সম্প্রতি চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেটের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি। ওই সভায় টিটাগং চেম্বারের পরিচালকরা উপস্থিত ছিলেন।

CTG Chamber

চট্টগ্রামের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে অস্ট্রেলিয়ান হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেটের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় দ্য চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলম।

মাহবুবুল আলম বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক খাত এংব নারী উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা রেখেছে অস্ট্রেলিয়া। দুই দেশের মধ্যে প্রায় ২০০ কোটি ডলারের বাণিজ্য হলেও ঘাটতি অনেক বেশি। বিদ্যমান বাণিজ্য ঘাটতি পূরণ এবং বাংলাদেশের রপ্তানি সম্প্রসারণে অস্ট্রেলিয়া সরকারের সহযোগিতা কামনা করছি।

তিনি আরও বলেন, চট্টগ্রামে এখন অনেকগুলো অর্থনৈতিক অঞ্চল হচ্ছে। সেখানে অস্ট্রেলিয়া বিনিয়োগ করলে দুই দেশের অর্থনীতির জন্য ভালো হবে। তাছাড়া বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়ায় পণ্য রপ্তানি বাড়াতে ভূমিকা রাখতে পারে অস্ট্রেলিয়ান সরকার।

এসময় দুই দেশের মাঝে কাঙ্ক্ষিত বাণিজ্য লক্ষ্য অর্জনে পিপল টু পিপল সম্পর্ক বৃদ্ধির উপর গুরুত্বারোপ করেন মাহবুবুল আলম। পাশাপাশি মিরসরাই ও আনোয়ারার অর্থনৈতিক অঞ্চলে অবকাঠামো, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিনিয়োগে অস্ট্রেলিয়াকে আহ্বান জানান তিনি।

হাইকমিশনার জুলিয়া নিবলেট বলেন, ব্যবসা-বাণিজ্য ও শিল্পায়নের কেন্দ্রবিন্দু এবং উপমহাদেশীয় অঞ্চলে ব্যবসা সম্প্রসারণে চট্টগ্রাম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। দ্বি-পাক্ষিক বাণিজ্য বাড়াতে সম্ভাবনাময় খাতগুলো চিহ্নিত করতে হবে। বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সফরও বাণিজ্য বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

কৃষিসহ বিভিন্ন খাতে দক্ষতা বাড়ানোর লক্ষ্যে কারিগরি প্রশিক্ষণ ও গণশিক্ষা কেন্দ্র স্থাপনে অস্ট্রেলিয়া সরকারের আগ্রহের কথাও জানান তিনি।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন নয়াদিল্লীর হাইকমিশনের ট্রেড কমিশনার গ্রেগরি হার্ভেই; অস্ট্রেলিয়ান ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কমিশনের কান্ট্রি ম্যানেজার মিনহাজ চৌধুরী; চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী আলমগীর, অঞ্জন শেখর দাশ, মো. রকিবুর রহমান টুটুল, মো. জাহেদুল হক, ওমর হাজ্জাজ, কামাল মোস্তফা চৌধুরী, মো, অহীদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন ও সরওয়ার হাসান জামিল।

অর্থসূচক/দেবব্রত/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ