'শুল্ক গোয়েন্দায় আসতেই হবে রেইনট্রির এমডিকে'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘শুল্ক গোয়েন্দায় আসতেই হবে রেইনট্রির এমডিকে’

অনুমতি ছাড়া মদ রাখা ও  ভ্যাট ও শুল্ক ফাঁকির অভিযোগের ব্যাখ্যা চেয়ে বনানীর রেইনট্রি হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এইচ এম আদনান হারুনকে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগে তলবের নোটিসের কার্যক্রমে দেওয়া হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ খারিজ করে দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

RainTree Dhaka

বনানীর দ্য রেইন ট্রি হোটেল।

আজ সোমবার বিকেল ৪টায় শুনানিশেষে হাইকোর্টের আদেশটি স্থগিত করে দেয় আপিল বিভাগ।

শুল্ক গোয়েন্দার পক্ষে এটর্নি জেনারেল জনাব মাহবুবে আলম ও ডিএজি জনাব এসএম মনিরুজ্জামান যুক্তিতর্ক পেশ করেন।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান অর্থসূচককে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, হোটেল কর্তৃপক্ষকে আগামীকাল ২৩ মে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের সদর দপ্তরে আসতে হবে।

এর আগে, রেইনট্রি হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এইচ এম আদনান হারুনের এক আবেদনের প্রেক্ষিতে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগে তলবের নোটিসের কার্যক্রম এক মাসের জন্য স্থগিত করে হাইকোর্ট। আজ সোমবার এ আদেশ দেয় বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি ইকবাল কবিরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ।

রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আহসানুল করিম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল এস এম মনিরুজ্জামান।

উল্লেখ, গত ২৮ মার্চ জন্মদিনের পার্টির কথা বলে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে ডেকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। গত ৬ মে ৫ জনকে আসামি করে বনানী থানায় ধর্ষণ মামলা করা হয়।

 ওই দুই ছাত্রীর বর্ণনায় মদের বিষয় উঠে আসায় রেইনট্রি হোটেলে অভিযান চালায় শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ। তখন ওই হোটেলের একটি রুমে ১০ বোতল মদ পাওয়া যায়। এ মদের বৈধ কোনো কাগজপত্র দেখাতে পারেনি হোটেল কর্তৃপক্ষ। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি সেবার বিপরীতে ৮ লাখ ২৭ হাজার টাকা ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে।
প্রথমে হোটেল কর্তৃপক্ষ আটক মাদককে ‘জুস’ হিসেবে বর্ণনা করেন। এরপর সংবাদ সম্মেলনে হোটেল থেকে মদ উদ্ধার হয়নি বলেও দাবি করা হয়।
আজ মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের রাসায়নিক পরীক্ষার আটক বোতলের নমুনা পরীক্ষায় ১৩.৪৯% অ্যালকোহল পাওয়া যায় মর্মে প্রত্যয়ন পাওয়া গেছে। এই রিপোর্টে আটক পণ্যকে ‘বিদেশী মদ’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে।

গত ১৫ মে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে রেইনট্রি হোটেলের এমডি শাহ মোহাম্মদ আদনান হারুনকে শুল্ক গোয়েন্দা অধিদপ্তরে হাজির হয়ে তার হোটেলে পাওয়া বেআইনি মাদকদ্রব্য বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নোটিশ দেওয়া হয়। সেই নোটিসের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট পিটিশন করেন আদনান হারুন।

রহমত/এসএম

এই বিভাগের আরো সংবাদ