পিসিবির যেকোনো কাজ করতে পারলেই খুশি ইউনিস
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পিসিবির যেকোনো কাজ করতে পারলেই খুশি ইউনিস

২০০০ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি করাচিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওডিআইয়ের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় ইউনিস খানের। ওই ম্যাচে ২৯ রানে পরাজিত হয়েছিল স্বাগতিকরা। ওই ম্যাচে পাকিস্তানের ব্যাটিং ইনিংসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৬ রান করেছিলেন অভিষেক হওয়া ইউনিস খান।

একই বছরের ২৬ ফেব্রুয়ারি ইউনিস খানের টেস্ট অভিষেক হয়। ওই ম্যাচে শ্রীলঙ্কার কাছে ২ উইকেটে পরাজিত হয় পাকিস্তান। নিজেদের প্রথম ব্যাটিং ইনিংসে ১২ রান এবং দ্বিতীয় ইনিংসে ১০৭ রান করেন ইউনিস খান।

২০১৫ সালের ১১ নভেম্বর নিজের সর্বশেষ একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন ওই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। ওই ম্যাচে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৬ উইকেটে জয় পায় পাকিস্তান। গত ১৪ মে ক্যারিয়ারের সর্বশেষ টেস্ট ম্যাচ খেললেন তিনি। ইউনিসের ওডিআই ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ম্যাচের মতো টেস্ট ক্যারিয়ারের সর্বশেষ ম্যাচেও জয় পেয়েছে পাকিস্তান।

Younis Khan

বিদায়ী ম্যাচ শুরুর আগে পাকিস্তানের ব্যাটসম্যান ইউনিস খান।

ওডিআই এবং টেস্ট ক্যারিয়ারে ইউনিসের শুরুটা ভালো না হলেও দুই ফরম্যাট থেকে বিদায় নেওয়ার সময় হাসতে হাসতে মাঠ ছাড়েছেন ইউনিস। ২৬৫ ওডিআইয়ের ২৫৫ ইনিংসে ব্যাট হাতে ৭টি শতক এবং ৪৮ অর্ধশতকসহ মোট ৭২৪৯ রান করেছেন এ ডানহাতি ব্যাটসম্যান। অন্যদিকে ১১৮ টেস্টের ২১১ ইনিংসে ব্যাট হাতে ৩৪টি শতক এবং ৩৩টি অর্ধশতকসহ ১০ হাজার ৯৯ রান করেছেন তিনি।

২২ গজের ক্যারিয়ার শেষ করে ব্যাট-প্যাড গুছিয়ে রাখার আগেই ইউনিস খানকে দেশটির তরুণ ক্রিকেটারদের মেন্টর ঘোষণা করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। অন্যদিকে এই ক্রিকেটারকে কোচ হিসেবে নিতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)। এমনকি তাতে ইউনিস খানের সম্মতি পাওয়ার কথাও জানিয়েছেন এসিবি চেয়ারম্যান আতিফ মশাল। তবে সেই দাবিকে নাকচ করে দিয়েছেন ইউনিস। আর পিসিবির কাছ থেকে যেকোনো প্রস্তাব পেলে তাতেই খুশি বলে জানিয়েছেন তিনি।

ইউনিস বলেন, দেশের ক্রিকেটকে দেওয়ার মতো এখনও অনেক কিছুই আমার মধ্যে আছে বলে বিশ্বাস করি। যেকোনো অবস্থানে থেকে দেশের ক্রিকেটকে সেবা দিতে পারলেই আমি বেশি খুশি হবো।

তিনি আরও বলেন, মাঠের ক্রিকেট থেকে মাত্র অবসর নিয়েছি। আমার কিছু পরিকল্পনা আছে। তবে প্রথমে আমি আমার পরিবারকে কিছু সময় দিতে চাই। আমার ক্যারিয়ারের উত্থান-পতনের মাঝেও যারা আমার পাশে থেকেছে তাদের মধ্যে একটি হলো আমার পরিবার।

স্কাই স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ইউনিস বলেন, আমার জীবনের একটি পর্ব শেষ হয়ে গেছে। জীবনের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ পর্ব শুরু হতে যাচ্ছে। তবে ক্রিকেট কোচিং পেশায় ফেরার ইচ্ছে আছে আমার। পাকিস্তানের তরুণ ক্রিকেটারদের উন্নতিকল্পে ভবিষ্যতে পিসিবির সঙ্গে কাজ করতে পারলে আমি খুশি হবো। শুধু ক্রিকেট নয়; অনেক ক্ষেত্রেই আমি দেশকে সেবা দিতে চাই।

তিনি আরও বলেন, একজন ‘টিম ম্যান’ হিসেবে আমি স্মরণীয় হয়ে থাকতে চাই। সব সময় দেশের জন্য খেলেছি। আমি একজন ক্রিকেটার হিসেবে স্মরণীয় হতে চাই।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ