বগুড়ার বিএনপি নেতা আব্দুল মোমিনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

বগুড়ার বিএনপি নেতা আব্দুল মোমিনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

মানবতাবিরোধী মামলায় বগুড়ার আদমদীঘির সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি নেতা আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

প্রসিকিউশনের আবেদনের শুনানি শেষে আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি মো. শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বাধীন দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল পরোয়ানা জারির আদেশ দেয়। প্রসিকিউশনের পক্ষে শুনানি করেন সুলতান মাহমুদ সীমন এবং মোখলেছুর রহমান বাদল।

সুলতান মাহমুদ সিমন বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আদমদীঘি এলাকায় রাজাকার কমান্ডার ছিলেন আব্দুল মোমিন তালুকদার। তার বিরুদ্ধে হত্যা, গণহত্যার অভিযোগ রয়েছে। বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকা এলাকায় অনেক প্রভাবশালী। তাই সঠিক তদন্তের স্বার্থে তাকে গ্রেপ্তারের আবেদন করা হয়েছে।

Abdul Momin talukder

বগুড়ার আদমদীঘির সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি নেতা আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকা।

বগুড়া-৩ আসন (আদমদীঘি-দুপচাঁচিয়া) থেকে দুইবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন আব্দুল মোমিন তালুকদার। নবম সংসদে বন ও পরিবেশ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ছিলেন তিনি।

২০১১ সালের মার্চে বগুড়ার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজেস্ট্রেট আদালতে এই বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে মামলা করেন আদমদীঘি থানার কায়েত পাড়া গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা মুহাম্মদ সুবেদ আলী।

মামলার এজাহারে বলা হয়, ১৯৭১ সালের ২৪ নভেম্বর আনুমানিক ১১টার দিকে আদমদীঘি বাজারে পশ্চিমে খারির ব্রিজের উত্তর শ্মশান ঘাটে আব্দুল মোমিন তালুকদার গুলি করে মুক্তিযোদ্ধা মনসুরুল হক তালুকদার টুলু, আব্দুস ছাত্তার, আব্দুল জলিল, আলতাফ হোসেনসহ কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যা করেন। মুক্তিযুদ্ধের সময় স্থানীয় শান্তি কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন আব্দুল মোমিনের বাবা আব্দুল মজিদ তালুকদার। দুজনই পাকিস্তানি সেনাবাহিনীকে সহযোগিতা করেছিলেন।

২০১১ সালে মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযোগের পর আব্দুল মোমিন সাংবাদিকদের বলেছিলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় আমার বয়স ছিল মাত্র ১৭ বছর। কোনো মানবতাবিরোধী অপরাধের সঙ্গে জড়িত ছিলাম না। রাজনৈতিকভাবে হয়রানির উদ্দেশ্যেই এ মামলায় আমাকে জড়ানো হয়েছে।

অভিযোগটি ট্রাইব্যুনালে আসার পর ২০১৬ সালের জানুয়ারি থেকে তদন্ত শুরু করে প্রসিকিউশনের তদন্ত সংস্থা। তদন্ত কর্মকর্তা জেড.এম. আলতাফুর রহমান ওই এলাকায় গিয়ে আদমদীঘির সুদিন, খাড়িপাড় শ্মশানঘাটি ও সান্তাহার রথবাড়ী (জমিদার সুরেন্দ্রনাথের বাড়ি) বধ্যভূমি ঘুরে দেখেন এবং স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা ও ক্ষতিগ্রস্তদের বক্তব্য রেকর্ড করেন। ওই তদন্তে অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ায় এই সাবেক সংসদ সদস্যকে গ্রেপ্তারের জন্য পরোয়ানা জারির আবেদন করে প্রসিকিউসন।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ