চট্টগ্রামের বাজারে মনিটরিং টিম
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চট্টগ্রামের বাজারে মনিটরিং টিম

আসন্ন রমজানে ন্যায্য মূল্যে পণ্য বিক্রি নিশ্চিত করতে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন বাজারে মনিটরিং টিম পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন। গতকাল মঙ্গলবার থেকে এই মনিটরিং টিম কার্যক্রম শুরু করে।

জেলা প্রশাসনের সহকারী কমিশনার সৈয়দ মুরাদ আলীর নেতৃত্বে মনিটরিং টিমটি গতকাল রিয়াজউদ্দিন বাজার পরিদর্শন করে। বাজারে বিভিন্ন দোকানে গিয়ে তিনি প্রতিটি পণ্যের মূল্য তালিকা দেখতে না পেয়ে সকল দোকানদারকে পণ্যের মূল্য তালিকা দোকানের সামনে টাঙানোর নির্দেশ দেন। পরবর্তীতে বাজারে এসে এই তালিকা না পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেবেন বলেও জানান।

আজ ২য় দিনে নগরীর কাজীর দেউরী বাজার পরিদর্শন করে মনিটরিং টিম। এসময় বাজারে পণ্যের দামের পার্থক্য দেখে এক মাংস বিক্রেতাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন বাজারে মনিটরিং টিম পরিচালনা করছে জেলা প্রশাসন।

সৈয়দ মুরাদ আলী জানান, জেলা প্রশাসক আগেই বিভিন্ন বাজার কমিটি ও ব্যবসায়ীদের সাথে মিটিং করে বিভিন্ন নির্দেশনা দিয়েছিলো। সেটা সরেজমিন পরিদর্শন শুরু করলাম। আজ আমরা টিম নিয়ে কাজীর দেউরী বাজারে এসেছি। এখানে বাজারের দামের সাথে কিছু পণ্যের দাম বেশী নেওয়া হচ্ছে। আমরা বাজারের প্রতিটা দোকানে মূল্য তালিকা দোকানের সামনে লাগানোর নির্দেশ দিয়েছি। পণ্যের দাম বেশী নিলে আমরা কঠোর অবস্থানে যাবো বলে তাদের মৌখিক নির্দেশ দিয়ে এসেছি। সতর্কতার পরে নিয়ম না মানলে আমরা আইনানুগ পদক্ষেপ নিবো।

তিনি আরও বলেন, একই পণ্যের দাম দুই দোকানে দুই রকম হতে পারেনা। দোকানদাররা অতিরিক্ত লাভের আশায় অনেক সময় ভুল তথ্য দিয়ে থাকেন। এই বিষয়ে আমরা সচেতন। আমরা বাজার দর জেনে তারপর ব্যবস্থা নিচ্ছি।

নিয়মিত বাজার মনিটরিং বিষয়ে তিনি বলেন, গতকাল থেকে শুরু হয়েছে এই বাজার মনিটরিং, চলবে ঈদের আগ পর্যন্ত। বাজার তদারকি করার জন্য আমাদের অনেকগুলো টিম বাজারে নামছে। কোনো সুযোগ কাজে লাগিয়ে তারা যেনো দাম বাড়াতে না পারে। এজন্য জেলা প্রশাসন বাজার নিয়ন্ত্রণে কঠোর হতে নির্দেশ দিয়েছেন।

মুদি দোকান। ছবি: সংগৃহীত

কাজীর দেউরী বাজারে ক্রেতা শামীম রহমান বলেন, এই বাজারে গরুর মাংসের দুই দোকানে দামের পার্থক্য ৫০ টাকা। ম্যাজিস্ট্রেট জরিমানা করার পর আবার ন্যায্য দামে বিক্রি করছে। তাছাড়া সবজিসহ অন্যান্য পণ্যের দাম হটাৎ একটু কমে গেছে দেখলাম। মনিটরিং আসলেই যেন দাম কমে। বাজারের দাম নিয়ন্ত্রণে মনিটরিং টিম পরিদর্শন করতে আসায় সকল ক্রেতাই সন্তুষ্ট।

এসময় কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) প্রতিনিধিরা জানান, পণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে আমরা সবসময় জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন বাজার কমিটির সাথে নিয়মিত বৈঠক করছি। আমরা চাই সাধারণ ক্রেতারা যাতে ন্যায্য মূল্যে বাজার থেকে তাদের পণ্য কিনতে পারেন।

গত ৪ ঠা মে চট্টগ্রামের সদ্য বিদায়ী জেলা প্রশাসক মো. সামসুল আরেফিন রমজানকে সামনে রেখে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে এক বৈঠকে অতিরিক্ত মুনাফা না করার নির্দেশের পাশাপাশি বাজারে খুচরা চিনি ও ছোলার দামও নির্ধারণ করে দেন। এবং রমজানে যাতে ভোগ্যপণ্যসহ অন্যান্য পণ্যের দাম যাতে সহনীয় থাকে সে বিষয়ে ঈদের আগ পর্যন্ত বাজারে মনিটরিং টিমের নিয়মিত বাজার যাচাই পর্যালোচনা করার কথা বলেন।

মুদি দোকান। ফাইল ছবি।

তবে ঘোষণার প্রায় ১২ দিন পর বাজারে মনিটরিং টিমের সদস্যরা কাজ শুরু করলেও সাধারণ মানুষের মাঝে কিছুটা স্বস্তি নেমেছে।

প্রসঙ্গত, গতবছর রমজানের আগে এবং রমজানে চট্টগ্রামের ভোগ্যপণ্য, কাপড়, শপিং মলসহ অন্যান্য বাজারে জেলা প্রশাসনের মনিটারিং টিমের তদারকিতে পণ্যমূল্য বেশ সহনীয় ছিল।

অর্থসূচক/দেবব্রত/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ