'অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে সব ধরনের নিরাপত্তা দেওয়া হবে'
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

‘অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে সব ধরনের নিরাপত্তা দেওয়া হবে’

অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলকে সব ধরনের নিরাপত্তা দেওয়া হবে বলে আশ্বস্ত করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। সচিবালয়ে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের নিরাপত্তা বিষয়ক কমিটির প্রধান শিন ক্যারলের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ আশ্বাস দেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সম্প্রতি ইংল্যান্ড দলের বাংলাদেশে সফরকালে তাদের নিরাপত্তায় আশ্বস্ত হয়েছে অস্ট্রেলিয়া। তারা মনে করছে, বাংলাদেশ সব সময় নিরাপদ। সেজন্য তারা খেলতে আসতে রাজি হয়েছে। তারা জানতে চায়, আমরা ইংল্যান্ডকে যে নিরাপত্তা দিয়েছি- তা তাদেরও দেওয়া হবে কি না?

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ স্পোর্টস লাভিং কান্ট্রি। খেলার জন্য এ দেশের মানুষ সব কিছুই করে। শুধু জনগণ নয়; খেলাকে প্রমোট করার জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও যথাসাধ্য চেষ্টা করে যাচ্ছেন। অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়, কোচ এবং কর্মকর্তাদের নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। শুধু ইংল্যান্ডের মতো নয়, অস্ট্রেলিয়া যে ধরনের নিরাপত্তা চাইবে- সে ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করবে সরকার।

এর আগে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরের দিকে অস্ট্রেলীয় হাইকমিশন, আইজিপি শহীদুল হকের সঙ্গে বৈঠক করেছিলেন শিন ক্যারল। বৈঠকের পর তিনি বলেন, ইংল্যান্ড ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের সময় তাদেরকে দেওয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থাই চায় অস্ট্রেলিয়া।

Security BCB

শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে পুলিশের মহড়া।

দুই দিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন শিন ক্যারল। তার সবুজ সংকেতের ওপরই অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফর অনেকটা নির্ভর করছে। ওই সফরে দুইটি টেস্ট খেলার কথা অস্ট্রেলিয়ার। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ সফর চূড়ান্ত হওয়ার কথা বলেছিলেন ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার প্রধান নির্বাহী জেমস সাদারল্যান্ড। তবু নিরাপত্তার ব্যাপারে শতভাগ আশ্বস্ত হতেই ক্যারলকে বাংলাদেশে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে ইংল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরের সময়ই বাংলাদেশে এসে নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেছিলেন ক্যারল। ঢাকা টেস্টের সময় মাঠে থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থার খুঁটি-নাটি পর্যবেক্ষণ করেছিলেন তিনি।

প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার পর ২০০৬ সালে রিকি পন্টিংয়ের নেতৃত্বে বাংলাদেশ সফর করেছিল অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট দল। এরপর ১০ বছরের বেশি সময় পার হলেও টেস্ট র‍্যাংকিংয়ের সামনের কাতারের দলটির বিপক্ষে আর কোনো টেস্ট খেলা হয়নি টাইগারদের।

২০১৫ সালের অক্টোবরে ঢাকা এবং চট্টগ্রামে দুইটি টেস্ট খেলার জন্য অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের বাংলাদেশ সফরের কথা ছিল। কিন্তু সেবার নিরাপত্তা ঝুঁকিতে ইস্যু করে সে সফর বাতিল করে নেয় দেশটির ক্রিকেট বোর্ড।

এরপর দেশের মাটিতে অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের আয়োজন করেছিল বাংলাদেশ। সে টুর্নামেন্ট থেকেও নিজেদের দল প্রত্যাহার করেছিল অস্ট্রেলিয়া। এরপর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ঘরের মাঠে দ্বি-পাক্ষিক সিরিজ আয়োজন করে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থার উদাহরণ তৈরি করে বাংলাদেশ।

ওসব টুর্নামেন্ট এবং সিরিজের নিরাপত্তা ব্যবস্থার দিকে নজর দিয়ে বার বার অস্ট্র্রেলিয়াকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানিয়ে আসছিল বিসিবি। অবশেষে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ সফরের বিষয়ে নিশ্চয়তা দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। তবে ব্যস্ত সিডিউলের কারণে ২০১৬ সালে বাংলাদেশে আসতে পারবে না বলে জানিয়েছিল নেতৃত্বস্থানীয় ক্রিকেট বোর্ডটি। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৮ আগস্ট স্মিথবাহিনী বাংলাদেশে আসবে বলে জানানো হয়েছে।

অর্থসূচক/এমই/

এই বিভাগের আরো সংবাদ