আপন জুয়েলার্সে অভিযানের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাজুস
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

আপন জুয়েলার্সে অভিযানের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাজুস

দেশের জুয়েলারি ব্যবসায়ীদের কাছে যে স্বর্ণ মজুদ রয়েছে তার বেশিরভাগই বৈধপথে আমদানি করা নয়। ফলে জুয়েলারি দোকানে শুল্ক গোয়েন্দাদের অভিযানে উদ্বিগ্ন স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা।

গতকাল আপন জুয়েলার্সের বিভিন্ন শাখায় অভিযানের প্রতিবাদও জানিয়েছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতির (বাজুস)।

আজ সোমবার সংগঠনের সভাপতি গঙ্গা চরন মালাকার ও সাধারণ সম্পাদক দিলীপ কুমার আগরওয়ালা স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়।

বাজুস বলেছে, কোনো নোটিস ছাড়াই আপন জুয়েলার্সের ৫টি শো-রুম শুল্ক গোয়েন্দা কর্তৃক বন্ধ করে দেওয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোন নোটিশ ছাড়াই শো-রুম বন্ধ করার প্রেক্ষিতে আজ বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির কেন্দ্রীয় কার্যা লয়ে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সকলে শো-রুম বন্ধ করার তীব্র প্রতিবাদ জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আপন জুয়েলার্সের ৫টি শো-রুমের সাথে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে কয়েক হাজার পরিবারের ভরণ পোষণ জড়িত। তার সরাসরি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। এ পরিবারের সাথে জড়িত ৫ হাজার মানুষের দায়ভার কে নেবে?

সমিতির জানামতে, আপন জুয়েলার্স সরকারের সকল নিয়ম কানুন মেনে বৈধভাবে ব্যবসা করে আসছে বলে উল্লেখ করা হয়। কিন্তু হঠাৎ তাদের ৫টি শো-রুম বন্ধ করে দেয়া কতটা যৌক্তিক বলে প্রশ্ন তোলা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো উল্লেখ করা হয়, একটি স্বর্ণের দোকানে যে পরিমাণ স্বর্ণ মজুদ থাকে তার একটি অংশ ক্রেতাদের, যা নতুন স্বর্ণ ক্রয়ের ক্ষেত্রে অগ্রিম হিসেবে গচ্ছিত থাকে।

আপন জুয়েলার্সের সাথে জড়িত নির্দোষ কর্মকর্তা-কর্মচারি, স্বর্ণ শিল্পী ও ক্রেতাদের কথা বিবেচনায় শো-রুমগুলো দ্রুত খুলে দেয়া ও এ ধরণের হয়রানিমূলক অভিযান বন্ধের জোর দাবি জানানো হয়।

উল্লেখ, আপন জুয়েলার্সের মালিক ও তার ছেলের ডানি মার্নির খোঁজে রোববার আপন জুয়েলার্সের শুলশান, উত্তরা, মৌছাক ও সীমান্ত স্কয়ার শো-রুমে অভিযান চালিয়ে ২৮৬ কেজি স্বর্ণ ও ৬১ গ্রাম ডায়মন্ড জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দা। গুলশান-২ সুবাস্তু শাখা সিলগালা করে দেওয়া হয়।

অর্থসূচক/রহমত

এই বিভাগের আরো সংবাদ