আপন জুয়েলার্সের সুবাস্তু শো-রুমে অভিযান চলছে
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

আপন জুয়েলার্সের সুবাস্তু শো-রুমে অভিযান চলছে

আপন জুয়েলার্সের মালিক ও তার ছেলের অসদুপায়ে অর্জিত টাকা বা ডার্টি মানির খোঁজে সিলগালা করে দেওয়া গুলশান-২ এ সুবাস্তু ইমরান টাওয়ারে জুয়েলার্সটির শো-রুমে অভিযান চালানো হচ্ছে।

আজ সোমবার বিকেল ৩টার দিকে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের পরিচালক সাইফুর রহমানের নেতৃত্বে অভিযান শুরু হয়। রোববার শো-রুম বন্ধ থাকায় শুল্ক গোয়েন্দা ওইদিন তা সিলগালা করে দেয়।

Apon Jewellers (4)

আপন জুয়েলার্সের একটি বিক্রয় কেন্দ্রে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের অভিযান।

সোমবার বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতির ২ নেতা ও শো-রুমের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। পরিচালক সাইফুর রহমান অর্থসূচককে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ডার্টি মার্নির খোঁজে রোববার আপন জুয়েলার্সের গুলশান, উত্তরা, মৌচাক ও সীমান্ত স্কয়ার শো-রুমে অভিযান চালিয়ে ২৮৬ কেজি স্বর্ণ ও ৬১ গ্রাম ডায়মন্ড জব্দ করে শুল্ক গোয়েন্দা।

গতকাল এক বিবৃতিতে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ জানায়, বনানীতে সাম্প্রতিক ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ ও তার ছেলে শাফাত আহমেদের ‘কালো টাকা’র তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশের পর শুল্ক গোয়েন্দার পক্ষ থেকে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের বৈধ উৎস ও পরিশোধেযোগ্য শুল্ক-করাদি সম্পর্কে খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

গত ৫ বছরে দেশে কোনো বৈধ বাণিজ্যিক আমদানি না থাকায় প্রাথমিকভাবে আপন জুয়েলার্সের স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের ব্যবসায় ‘অস্বচ্ছতা’ দেখছে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগ।

প্রসঙ্গত, বনানীতে রেইন ট্রি হোটেলে জন্মদিনের পার্টির কথা বলে ডেকে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া দুই ছাত্রীকে ধর্ষণ করা হয়। যাদের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে তাদের মধ্যে একজন আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার হোসেনের ছেলে সাফাত আহমেদ।

অর্থসূচক/রহমত/এস

এই বিভাগের আরো সংবাদ