৫০ পেরিয়ে মাধুরী দিক্ষিত
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

৫০ পেরিয়ে মাধুরী দিক্ষিত

১৯৮৪ সালে ‘অবোধ’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে অভিষেক ঘটে। তখন তেমন সাড়া ফেলতে না পারলেও ৪ বছর পর  ‘তেজাব’ ছবির মাধ্যমে দর্শক মহলে বেশ সাড়া পান। অভিনয়ের পাশাপাশি সহজাত সৌন্দর্য এবং নাচে দক্ষতার কারণে খুব দ্রুত বি-পাড়ার শীর্ষস্থানেও উঠে আসেন।

নব্বই দশকের পুরোটা সময় জুড়ে হিন্দি সিনেমায় অভিনেত্রী ও শীর্ষস্থানীয় নৃত্যশিল্পী হিসেবে একচ্ছত্রাধিপত্য করেছেন। ক্যারিয়ারে শেষদিকে শাহরুখ খানের সঙ্গে ‘দেবদাস’এ ‘মার ডালা’ গানে তার নাচ আজও সমালোচকদের চোখের প্রশান্তি।

তিনি মাধুরী, মাধুরী দিক্ষিত। পুরো নাম মাধুরী শঙ্কর দিক্ষিত। আজ তার ৫০তম জন্মদিন।

আজ মাধুরী দিক্ষিতের ৫০তম জন্মদিন। ছবি সংগৃহীত।

১৯৬৭ সালের ১৫ মে মুম্বাইয়ের মারাঠি ব্রাহ্মণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন এই গুণী অভিনেত্রী। পিতার নাম শঙ্কর ও মাতা স্নেহলতা দীক্ষিত। চার ভাইবোনের মধ্যে সবার ছোট মাধুরী মাইক্রোবায়োলোজিস্ট হতে চেয়েছিলেন। পড়াশোনা করেছেন ডিভাই চাইল্ড হাই স্কুল এবং মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয়ে। কত্থক নৃত্যশিল্পী হিসেবে আট বছরের প্রশিক্ষণও রয়েছে তার ঝুলিতে।

চলচ্চিত্রে অংশগ্রহণ ‘দিল’ ছবির ব্যবসায়িক সাফল্য অনুসরণ করে সাজন (১৯৯১), বেটা (১৯৯২), খলনায়ক (১৯৯৩), হাম আপকে হে কৌন (১৯৯৪) এবং রাজা (১৯৯৫) বিপুল জনপ্রিয়তা অর্জন করে। ‘বেটা’ ছবিটি তাকে সেরা অভিনেত্রীর আসনে বসিয়ে ২য়বারের মতো ফিল্মফেয়ার পুরস্কার জিতিয়ে দেয়। এছাড়া ‘হাম আপকে হে কৌন’ ছবিটি হিন্দি সিনেমার ইতিহাসে বৃহত্তম ব্যবসায়িক সাফল্য অর্জন করে।

হিন্দী সিনেমায় অনবদ্য ভূমিকার জন্য ২০০৮ সালে ভারত সরকারের ৪র্থ সর্বোচ্চ বেসামরিক পুরস্কার হিসেবে তাকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করা হয়। ১৯৯৯ সালে মাধুরী মারাঠী ব্রাহ্মণ পরিবারের সন্তান ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওভাসকুলার সার্জন শ্রীরাম মাধব নেনে-কে বিয়ে করেন। দুই পুত্র আরিন (জন্ম ২০০৩) এবং রায়ান(২০০৫, কলোরাডো) নিয়ে এখন বেশ ঘর সংসার করছেন।

মাধুরী দিক্ষিত, ২০১৬ সালের ছবি। সংগৃহীত।

ভারতে তার অগণিত ভক্ত-সমর্থকদের দাবীর প্রেক্ষিতে ২০১০ এর শেষদিকে একটি টেলিভিশন নৃত্যানুষ্ঠানে তিনি সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইট টুইটারে যোগ দেন।

অনেকদিন বলিউড থেকে দূরে থাকলেও এখনও তাকে বলিউডের সেরা অভিনেত্রীদের একজন হিসেবে গণ্য করা হয়। বিশেষ করে নাচে তার অনবদ্য অবদানের জন্য।

অর্থসূচক/সাদিয়া/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ