আপন জুয়েলার্সের ২৮৬ কেজি স্বর্ণ জব্দ
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

আপন জুয়েলার্সের ২৮৬ কেজি স্বর্ণ জব্দ

চোরাচালান ও মানিলন্ডারিং এর  অভিযোগে আপন জুয়েলার্সের ঢাকার বিভিন্ন শাখায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ২৮৬ কেজি স্বর্ণালংঙ্কার ও ৬১ গ্রাম হীরার অলঙ্কার জব্দ করা হয়েছে। শাখাগুলোর মধ্যে একটি শাখা বন্ধ থাকায় তা সিলগালা করে দেওয়া হয়েছে।

জব্দকৃত স্বর্ণ ও হীরার অলঙ্কার সাময়িকভাবে আটক করে শুল্ক আইন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানগুলোর জিম্মায় দেয়া হয়েছে।

আপন জুয়েলার্সের একটি বিক্রয় কেন্দ্রে শুল্ক গোয়েন্দা বিভাগের অভিযান। ফাইল ছবি।

গতকাল রোববার সকাল থেকে আপন জুয়েলার্স, ডিসিসি মার্কেট শাখা (বিন- ১৮১৪১০১১৯২৭), সীমান্ত স্কোয়ার শাখা (বিন-১৯১৫১০২১৭৩০), উত্তরা শাখা (বিন- ১৮০২১০২৮৭৮৫), মৌচাক শাখা (বিন- ১৯০৬১০০৫৯৬৪) এবং গুলশান এভিনিউ শাখা (বিন- ১৮১৪১০৭১৬৫৭) শাখায় একযোগে অভিযান পরিচালনা করা হয়। গুলশান এভিনিউ শাখা (বিন- ১৮১৪১০৭১৬৫৭) বন্ধ থাকায় এটি সিলগালা করে দেওয়া হয়।

অভিযানে মৌচাক মার্কেট শাখায় ৫৩ কেজি ৫১৮ গ্রাম স্বর্ণালঙ্কার ও ১৭ দশমিক ৩৫ গ্রাম হীরার অলঙ্কার, সীমান্ত স্কোয়ার শাখায় ৮১ কেজি ৬৮৮ গ্রাম স্বর্ণালঙ্কার ও ৩৩ দশমিক ৪৪ গ্রাম হীরার অলঙ্কার, উত্তরা শাখায় ৮২ কেজি স্বর্ণালঙ্কার ও ৯ দশমিক ৭ গ্রাম হীরার অলঙ্কার, ডিসিসি মার্কেট শাখায় ৬৮ কেজি ৪৬২ গ্রাম স্বর্ণালঙ্কারসহ মোট ২৮৬ কেজি স্বর্ণালংকার  ও ৬১ গ্রাম হীরার অলঙ্কার পাওয়া গেছে। স্বর্ণের মোট মূল্য প্রায় ৮০ দশমিক ২৩ কোটি টাকা এবং হীরার মোট মূল্য প্রায় ৫ দশমিক ১৫ কোটি টাকা। সর্বমোট স্বর্ণ ও হীরার মূল্য প্রায় ৮৫ দশমিক ৩৮ কোটি টাকা।

Apon Jewellers (3)

আপন জুয়েলার্সের গুলশানের সুবাস্তু টাওয়ার শাখা সিলগালা করে দেয় গোয়েন্দা বিভাগ। ফাইল ছবি।

শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান জানান, অভিযানে স্বর্ণ ও হীরার বৈধ উৎস ও পরিশোধযোগ্য শুল্ক-করাদি সম্পর্কে খোঁজ নেয়া হয়। প্রাথমিক অনুসন্ধানে আপন জুয়েলার্সের এ সকল শাখা কর্তৃক উপস্থাপিত দলিলাদি অভিযান পরিচালনাকারী দলের নিকট অপর্যাপ্ত প্রতীয়মান হয়েছে। তাছাড়া উপস্থাপিত দলিলাদিতে উল্লিখিত স্বর্ণ ও হীরার পরিমাণের সাথে জব্দকৃত স্বর্ণ ও হীরার পরিমাণের গরমিল পাওয়া যায়।

এসব মূল্যবান পণ্যের কাগজ-পত্রাদি গভীরভাবে যাচাই করা হবে। এ অনুসন্ধানে কোন অনিয়ম প্রমাণিত হলে এ প্রতিষ্ঠান ও প্রতিষ্ঠান মালিকদের বিরুদ্ধে চোরাচালান ও মানিলন্ডারিং এর  অভিযোগে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

অর্থসূচক/রহমত/কাঙাল মিঠুন

এই বিভাগের আরো সংবাদ