চট্টগ্রামে এসএসসির উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণে ৫৮ হাজার আবেদন
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

চট্টগ্রামে এসএসসির উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণে ৫৮ হাজার আবেদন

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে প্রকাশিত এসএসসি পরীক্ষার উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণে ৫৭ হাজার ৮১৪টি আবেদন পড়েছে।

২০১৬ সালে উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণে মোট আবেদনের সংখ্যা ছিল ৪৬ হাজার ৯৪টি। আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ১৬ হাজার ৫৬২ জন। এর মধ্যে ফল পরিবর্তন হয় ২৪৩ জনের। এর আগের বছর ২০১৫ সালে আবেদন পড়ে প্রায় সাড়ে ২২ হাজার। আর আবেদনকারীর সংখ্যা ছিল ৯ হাজার ৭৮৬ জন।

ছবি সংগৃহীত

গত ৪ মে প্রকাশিত এসএসসির ফলাফলে চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৮৩ দশমিক ৯৩ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৮ হাজার ৩৪৪ জন।

পরীক্ষায় অংশ নেওয়া ১ হাজার ১১১টি স্কুলের ১ লাখ ১৭ হাজার ৮৯৭ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে পাস করেছে ৯৯ হাজার ২২ জন। গত ৬ মে থেকে ১১ মে পর্যন্ত শিক্ষাবোর্ডের বেঁধে দেওয়া নির্ধারিত সময়ে এইসব শিক্ষার্থীরা শিক্ষাবোর্ডের নিয়ামানুযায়ী উত্তরপত্র পুনঃনিরীক্ষণের জন্য তারা আবেদন সম্পন্ন করেছে।

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা গেছে, গত ৪ মে প্রকাশিত ফলাফলে গণিত বিষয়ে গড় পাসের হার সবচেয়ে কম। গত দুই বছরের মতো এবারও গণিতের ফল পুনঃনিরীক্ষণে আবেদন পড়েছে সবচেয়ে বেশি। বিষয়টিতে এবার সর্বোচ্চ ৬ হাজার ১০টি আবেদন জমা পড়েছে।

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মো. মাহবুব হাসান অর্থসূচককে জানান, পুনঃনিরীক্ষণের জন্য এবার সবচেয়ে বেশি আবেদন পড়েছে গণিতে। উত্তরপত্রে পুনঃনিরীক্ষণে কোন প্রশ্নের নম্বর বাদ গেছে কিনা বা নম্বরের যোগফলে ভুল হয়েছে কিনা এসব দেখা হয়। এছাড়া অন্য কোনো ধরণের ভুল আছে কিনা পরীক্ষকরা খতিয়ে দেখেন। কিন্তু উত্তরপত্র পুনঃমূল্যায়নের কোনো সুযোগ নেই।

বোর্ড সূত্রে জানা যায়, গণিতের পর এবার সর্বোচ্চ আবেদন পড়েছে বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বিষয়ে। বিষয়টিতে ৫ হাজার ৪৫টি আবেদন পড়েছে এবার। এরপর বেশি আবেদন ইংরেজি প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রে। বিষয় দুটিতে এবার আবেদনের সংখ্যা ৪ হাজার ৪৮৫টি করে।

এরপর যথাক্রমে বেশি আবেদন পড়েছে ইসলাম ধর্মে ৪ হাজার ৩৬০, রসায়নে ৪ হাজার ১০৯, বাংলা প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রে ৩ হাজার ৭৭৯ করে , পদার্থ বিজ্ঞানে ৩ হাজার ৩০টি। এছাড়া উচ্চতর গণিতে ১ হাজার ৫৫১টি, সাধারণ বিজ্ঞানে ২ হাজার ৬৯০টি, কম্পিউটার শিক্ষায় ১১টি, কৃষি শিক্ষায় ১ হাজার ৭০টি. রসায়নে ৪ হাজার ১০৯টি, জীববিজ্ঞানে ২ হাজার ৩৮২টি, পৌরনীতিতে ৩১২টি, অর্থনীতিতে ১২৩টি, ব্যবসায় উদ্যোগে ২ হাজার ৮১৮টি, হিসার বিজ্ঞানে ১ হাজার ৬৩৭টি, শারিরীক শিক্ষায় ১ হাজার ৭৭১টি, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয়ে ৫ হাজার ৪৫টি, ২৫৯টি, গার্হস্থ বিজ্ঞান ১ হাজার ৯২০টি, ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিংয়ে ১ হাজার ৯২০টি, বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্ব সভ্যতায় ২৮৫টি, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি ৫৫৭টি, ভুগোলে ২২২টি, হিন্দু ধর্মে ৯১৯টি, বৌদ্ধ ধর্মে ১১৯, খ্রিষ্ট ধর্মে ১৬টি এবং ক্যারিয়ার শিক্ষায় ৭০টি আবেদন জমা পড়েছে।

উল্লেখ্, গত ৪ মে ফল প্রকাশের পর ৬ মে থেকে ১১ মে পর্যন্ত টেলিটক মোবাইল এসএমএস-এর মাধ্যমে এসব আবেদন করে শিক্ষার্থীরা। উত্তরপত্রগুলো পুনঃনিরীক্ষা শেষে আগামী ৩০শে মে ফল প্রকাশ করা হবে।

এদিকে একাদশে ভর্তিতে গত ৯ মে থেকে শুরু হয়েছে অনলাইনে আবেদন প্রক্রিয়া। আবেদনের শেষ সময় আগামী ২৬ মে। তবে পুনঃনিরীক্ষায় ফল পরিবর্তন হওয়া শিক্ষার্থীরা একাদশে ভর্তির জন্য ৩০ ও ৩১ মে (দুই দিন) নতুন করে আবেদনের সুযোগ পাবে।

দেবব্রত/এসএস

এই বিভাগের আরো সংবাদ