পাটের মোড়ক ব্যবহার নিশ্চিতে সোমবার থেকে অভিযান
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

পাটের মোড়ক ব্যবহার নিশ্চিতে সোমবার থেকে অভিযান

পলিথিন ও প্লাস্টিক ব্যাগ ব্যবহারের বিরুদ্ধে সারাদেশে সপ্তাহব্যাপী বিশেষ অভিযান শুরু হবে আগামীকাল সোমবার থেকে। বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, নির্ধারিত ১৭টি পণ্যে পাটের মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার নিশ্চিত করতে ১৫ মে থেকে সারা দেশে স্বরাষ্ট্র, বন ও পরিবেশ, সড়ক ও সেতু পরিবহন, নৌপরিবহন, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রণালয় ও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহায়তায় এই সাঁড়াশি অভিযান পরিচালিত হবে।

আজ রোববার সচিবালয় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত প্রেস ব্রিফিংয়ে বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।

এদিকে হাইকোর্টের স্থগিতাদেশে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা না করা গেলে সাধারণ আইন অনুযায়ী দ্বিতীয় দফায় টানা এই অভিযান চলবে বলে জানিয়েছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।

আজ রোববার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী বলেন, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকে হাই কোর্ট অসাংবিধানিক ঘোষণা করলেও আমরা বিশ্বাস করি আজকের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টে স্থগিত হয়ে যাবে।

এ সময় অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোছলেহ উদ্দিন, বিজেএমসি’র চেয়ারম্যান ড. মাহমুদুল হাসান, নাসিমা বেগম (যুগ্মসচিব) সহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

মির্জা আজম বলেন, আগামী ১৫ মে  হতে সড়ক, মহাসড়ক, তফসিলে বর্ণিত পণ্যসমুহ উৎপাদন, বিক্রয় ও বিতরণ এলাকা এবং  ঢাকাসহ  সমগ্র দেশে একসাথে  বিশেষ অভিযান  পরিচালনা হবে।

তিনি বলেন, হাইকোর্ট থেকে স্থগিতাদেশ দেওয়ায় আমরা একটুও বিচলিত নই। আগামীকাল থেকেই অভিযান শুরু হবে। কাউকে হয়তো জেল বা জরিমানা দেওয়া যাবে না, তবে অভিযান পরিচালনায় কোনো বাধা নাই।

মন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় কর্তৃক মোবাইল কোর্টসহ সার্বিক সহযোগিতা প্রদানের জন্য মহাপুলিশ পরির্দশক, ডিআইজি, পুলিশ সুপারদের নির্দেশনা প্রদান করেছে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয় নির্ধারিত পণ্য আমদানি ও রপ্তানিকালে পাটজাত পণ্য দ্বারা মোড়কীকরণ না করা হলে আইআরসি এবং ইআরসি বাতিল করবে।

স্থানীয় প্রশাসন এবং পাট অধিদপ্তরের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে অভিযান চলবে জানিয়ে মির্জা আজম বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা না গেলে স্বাভাবিক আইনে থানায় মামলা হবে, চার্জশিট হবে, জেল-জরিমানা হবে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনাকে গত ১১ মে অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে হাই কোর্ট। তবে চেম্বার আদালত এই রায় ১৮ মে পর্যন্ত স্থগিত করে আপিল বিভাগে নিয়মিত শুনানির জন্য পাঠিয়েছে। ফলে আপাতত পাটের মোড়ক নিশ্চিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় বাধা নেই।

উল্লেখ, ধান, চাল, গম, ভুট্টা, সার ও চিনি সংরক্ষণ ও পরিবহনে বাধ্যতামূলকভাবে পাটের ব্যাগ ব্যবহারের নির্দেশ দিয়ে ২০১৫ সালের ১৭ ডিসেম্বর আদেশ জারি করে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়। এরপর গত ২১ জানুয়ারি পেঁয়াজ, আদা, রসুন, ডাল, আলু, আটা, ময়দা, মরিচ, হলুদ, ধনিয়া এবং তুষ-খুদ-কুড়ার মোড়ক হিসেবে পাটের ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়। দুই দফায় ১৭টি পণ্যে পাটের মোড়ক ব্যধ্যতামূলক করে সরকার।

অর্থসূচক/আজম/টি

এই বিভাগের আরো সংবাদ