একাদশে ভর্তি কার্যক্রম শুরু
today-news
brac-epl
প্রচ্ছদ » App Home Page

একাদশে ভর্তি কার্যক্রম শুরু

দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে (উচ্চ মাধ্যমিক) শিক্ষার্থী ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এ কার্যক্রম চলবে ২৬ মে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে এ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. সোহরাব হোসাইন এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আলমগীর।

Ideal-5অনলাইনের (www.xiclassadmission.gov.bd) পাশাপাশি টেলিটক মোবাইল থেকে এসএমএস করে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির আবেদন করা যাচ্ছে।

এর আগে, গত রোবববার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় ২০১৬-২০১৭ শিক্ষাবর্ষে ভর্তির নীতিমালা চূড়ান্ত করা হয়।

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে শিক্ষার্থী ভর্তি করতে হবে উল্লেখ করে নীতিমালায় বলা হয়, একজন শিক্ষার্থী যতগুলো কলেজে আবেদন করবে, তার মধ্য থেকে শিক্ষার্থীর মেধা ও পছন্দক্রমের ভিত্তিতে একটিমাত্র কলেজে তার অবস্থান নির্ধারণ করা হবে।

এতে বলা হয়, আগামী ৯ থেকে ২৬ মে অনলাইন ও টেলিটক মোবাইল থেকে এসএমএসের মাধ্যমে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির জন্য আবেদন করা যাবে। যারা ফল পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করেছে, তাদেরও এ সময়ের মধ্যেই আবেদন করতে হবে। এরপর ২৭-২৯ মে শিক্ষার্থীদের আবেদন যাচাই-বাছাই ও আপত্তি নিষ্পত্তি করা হবে। পুনঃনিরীক্ষণে যাদের ফল পরিবর্তন হবে, তারা ৩০-৩১ মে পর্যন্ত আবেদন করতে পারবে। ৫ জুন প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে।

এবার মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ ১৪ লাখ ৩১ হাজার ৭২২ শিক্ষার্থীর মধ্যে ৭ লাখ ২৭ হাজার ৬৮৮ জন ছাত্র এবং ৭ লাখ ৪ হাজার ৩৪ জন ছাত্রী।

ওই নীতিমালায় ভর্তি ফি নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছে। নীতিমালা অনুযায়ী, মফস্বল/পৌর (উপজেলা) এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সেশনচার্জসহ সর্বসাকুল্যে এক হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় দুই হাজার টাকা এবং ঢাকা ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকায় তিন হাজার টাকার বেশি ফি নেওয়া যাবে না।

এছাড়া ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকায় এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থী ভর্তিতে পাঁচ হাজার টাকার বেশি নিতে পারবে না। আর এ এলাকায় আংশিক এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও এমপিও বর্হিভূত শিক্ষকদের বেতনভাতা দেওয়ার জন্য ভর্তির সময় মাসিক বেতন, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফি বাবদ বাংলা মাধ্যমে নয় হাজার টাকা এবং ইংরেজি মাধ্যমে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

নীতিমালা অনুযায়ী,  উন্নয়ন খাতে কোনো প্রতিষ্ঠান ৩ হাজার টাকার বেশি নিতে পারবে না। এছাড়া দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে ফি যতদূর সম্ভব মওকুফের নির্দেশনা দিয়েছে মন্ত্রণালয়।

অতিরিক্ত ফি নিলে পাঠদানের অনুমতি, একাডেমিক স্বীকৃতি বাতিলসহ এমপিও বাতিল করে ওই প্রতিষ্ঠানের সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে এ নীতিমালায় ।

এই বিভাগের আরো সংবাদ